সারা বাংলা

শিবপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রোগীর মা-বাবাকে লাঞ্ছিনার অভিযোগ

প্রতিনিধি, নরসিংদী: নরসিংদীর শিবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সাত মাসের শিশুসন্তানের চিকিৎসা নিতে এসে চিকিৎসকের হাতে তার মা-বাবা লাঞ্ছিত হয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। গতকাল শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে

শিবপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ ঘটনা ঘটে। লাঞ্ছিত হয়েছেন উপজেলার মাছিমপুর ইউনিয়নের দত্তেরগাঁও ভিটিপাড়া গ্রামের বেনজীর আহমেদ খানের ছেলে ইলিয়াস খান (২৮) ও তার স্ত্রী স্বর্ণা আক্তার (২০)।

তাদের মারধর করার অভিযোগ উঠেছে ওই হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. সিরাজ উদ্দিনের বিরুদ্ধে। এ ব্যাপারে ভুক্তভোগীরা ওই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে হাসপাতালে কর্তৃপক্ষের কাছে তাৎক্ষণিক মৌখিকভাবে অভিযোগ দায়ের করেন। তিনি প্রায় দুই যুগ ধরে একই কর্মস্থলে চাকরি করছেন বলে জানা গেছে।

ইলিয়াস খান জানান, ‘আমার শিশুসন্তানের চিকিৎসা নিতে এসে প্রথমে শিবপুর সরকারি হাসপাতালে টিকিট নিয়ে সিরাজ উদ্দিনের কক্ষে জমা দিই। এ সময় রোগীর টিকিট ছিল তিনটি। কিন্তু এক ঘণ্টা অপেক্ষার পরও আমার বাচ্চার সিরিয়াল না আসায় চিকিৎসকের কক্ষে গিয়ে দেখি মোবাইল ফোনে তিনি কথা বলছেন। এ সময় দুজন নারীও বসে ছিলেন। তখন আমি বলেছি, রোগী দেখার জন্য আপনাকে আরও সিøপ এনে দেব? এ কথা বলার কারণে ডাক্তার ক্ষিপ্ত হয়ে আমাকে এলোপাতাড়ি কিল-ঘুষি মারতে থাকে। এতে আমার স্ত্রী বাধা দিলে তাকেও তিনি কিল-ঘুষি মারে।’

হাসপাতালে কর্মরত নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যক্তি জানান, ডা. সিরাজ উদ্দিন দীর্ঘদিন ধরে একই স্থানে চাকরি করছেন? কিছু দিন আগেও তাকে নিয়ে সালিশ হয়েছে।

তবে মারধরের কথা অস্বীকার করে ডাক্তার সিরাজ উদ্দিন বলেন, ‘রোগী দেখতে দেরি হওয়ায় আমার সঙ্গে খারাপ আচরণ করে। তখন উপস্থিত লোকজন তাকে ঘাড় ধরে আমার কক্ষ থেকে বের করে দিয়েছে।’

এ বিষয়ে শিবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সাইফুল ইসলাম কোনো কথা বলতে অস্বীকৃতি জানান। তবে তিনি উভয় পক্ষকে নিয়ে নিজ অফিসে মীমাংসার জন্য ব্যস্ত ছিলেন।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..