সারা বাংলা

শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুটে ৯ ঘণ্টা পর ফেরি চলাচল স্বাভাবিক

প্রতিনিধি, মুন্সীগঞ্জ: শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুটে ঘন কুয়াশার কারণে ৯ ঘণ্টা ফেরি চলাচল বন্ধ ছিল। গত রোববার রাত সাড়ে ৯টায় দুর্ঘটনা এড়াতে ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেয় বিআইডব্লিউটিসি কর্তৃপক্ষ।

গতকাল সকাল সাড়ে ৬টার দিকে কুয়াশা কমে যাওয়ায় ফেরি চলাচল স্বাভাবিক হয়। এ সময় দুই পার থেকে ছেড়ে যাওয়া ১০টি ফেরি দিক নির্ণয় বাতি না দেখায় মাঝ নদীর বিভিন্ন পয়েন্টে নোঙর করেছিল। দুই পারে বেলা ১১টা পর্যন্ত পাঁচ শতাধিক ছোট-বড় যানবাহন পারাপারের অপেক্ষায় ছিল। ঢাকাসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে ছেড়ে আসা দক্ষিণ বঙ্গগামী ২০টি নাইট কোচ সকালেও পার হতে পারেনি। রাতে মাঝ নদীতে ও ঘাটে আটকে থাকা এ রুটের হাজারো যাত্রীদের কনকনে ঠাণ্ডা ও কুয়াশায় চরম ভোগান্তিতে পরতে হয়েছে। শিমুলিয়া ঘাটে দুপুরে ধীরে ধীরে চাপ কমতে শুরু করে।

মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার শিমুলিয়া ঘাট এলাকায় সাড়ে তিন শতাধিক ছোট বড় যানবাহন পারাপারের অপেক্ষায় ছিল বিকাল পর্যন্ত। এর মধ্যে ছোট গাড়ি ও ট্রাকের সংখ্যাই বেশি। রাতে পার না হতে পারা নাইটকোচগুলোকে আগে পার করার ব্যবস্থা করেছে ঘাট কর্তৃপক্ষ। 

মাওয়া বিআইডব্লিউটিসি মেরিন ইঞ্জিনিয়ার শাজাহান আলী এসব তথ্য নিশ্চিত করে জানান, ঘন কুয়াশার কারণে রোববার রাত সাড়ে ৯টা থেকে সোমবার সকাল সাড়ে ৬টা পর্যন্ত ফেরি চলাচল বন্ধ ছিল। টানা ৯ ঘণ্টা বন্ধ থাকায় দুই পারে পাঁচ শতাধিক যানবাহন আটকে আছে। কুয়াশার কারণে মাঝ নদীতে রাতে ১০টি ফেরি নোঙরে ছিল। শিমুলিয়া ঘাটে ২০টির মতো নাইটকোচ বেলা ১০টার পরে পার করা সম্ভব হয়েছে। ১৪টি ফেরি দিয়ে যানবাহন পারাপার করা হয়েছে। 

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..