সারা বাংলা

শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে লঞ্চ-স্পিডবোট চলাচল বন্ধ

শেখ মোহাম্মদ রতন, মুন্সীগঞ্জ: কভিডের বিস্তার রোধে গতকাল মঙ্গলবার সকাল থেকে মুন্সীগঞ্জসহ সাত জেলায় কঠোর লকডাউন ঘোষণা করেছে সরকার।

লকডাউনে মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে লঞ্চ, স্পিডবোট ও ট্রলার চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ রয়েছে। তবে পণ্যবাহী গাড়ি ও জরুরি অ্যাম্বুলেন্স পারাপারে পদ্মার এ রুটে ফেরি সচল রাখা হয়েছে।

এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) শিমুলিয়া ঘাটের ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) প্রফুল্ল চৌহান।

তিনি জানান, সরকার ঘোষিত নির্দেশনা অনুযায়ী মঙ্গলবার সকাল থেকে শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে ফেরি চলাচল সীমিত করা হয়েছে। ১৬টি ফেরির মধ্যে বর্তমানে ১৪টি ফেরি চলাচল করছে। এসব ফেরি দিয়ে শুধু কাঁচামাল, পণ্যবাহী গাড়ি ও জরুরি রোগীবাহী অ্যাম্বুলেন্স পারাপার করা হচ্ছে।

বিআইডব্লিউটিএর পরিবহন পরিদর্শক মো. সোলেমান জানান, ৮৭টি লঞ্চের সবগুলো বন্ধ রয়েছে। গত ৩ এপ্রিল থেকে তিন শতাধিক স্পিডবোট চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ রয়েছে।

মাওয়া ট্রাফিক ইনচার্জ (টিআই প্রশাসন) মো. জাকির হোসেন জানান, সরকার ঘোষিত কঠোর লকডাউন কার্যকর করার লক্ষ্যে নির্দেশনা অনুযায়ী সকাল থেকে শিমুলিয়া ঘাটে কঠোর অবস্থানে রয়েছি। সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী ঘাটে ফেরি ছাড়া সব নৌযান চলাচল বন্ধ রয়েছে। গণপরিবহন বন্ধ থাকায় যাত্রীবাহী সব ধরনের যানবাহন বন্ধ রয়েছে।

তবে অ্যাম্বুলেন্স ও জরুরি সেবার যানবাহনসহ পণ্যবাহী যানবাহন পারাপারের জন্য সীমিত পরিসরে ১৪টি ফেরি সার্ভিস চালু রাখা হয়েছে। বতর্মানে শিমুলিয়া ঘাট এলাকায় ওপারে যাওয়ার অপেক্ষায় ৭০-৮০টি পণ্যবাহী ট্রাক রয়েছে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..