প্রচ্ছদ শেষ পাতা

শিল্প-কারখানার পাশে জলাধার থাকতে হবে

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা

নিজস্ব প্রতিবেদক: শিল্প-কারখানার পাশে জলাধারসহ বর্জ্য ব্যবস্থাপনা শক্তিশালী করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল সকালে শেরেবাংলা নগরে এনইসি সম্মেলন কক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে একনেক সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভা শেষে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা তুলে ধরে পরিকল্পনামন্ত্রী এম. এ. মান্নান বলেন, প্রতিটি শিল্প-কারখানার পাশে জলাধার রাখতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী। অনেক সময় অবকাঠামোতে আগুন লাগলে পানি পাওয়া যায় না। জলাধার থাকলে ভালো হয়। অনেক সময় দেখা যায় অবকাঠামো নির্মাণে মাটি কাটতেই হয়। সুতরাং সহজেই আমরা একটি জলাধার নির্মাণ করতে পারি। একই সঙ্গে শিল্প-কারখানায় বর্জ্য ব্যবস্থাপনা শক্তিশালী করতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী। প্রয়োজন অনুযায়ী কেন্দ্রীয় বর্জ্য শোধনাগার (সিইটিপি) ও তরল বর্জ্য শোধনাগার (ইটিপি) অবশ্যই থাকতে হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

ভবন নির্মাণ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা তুলে ধরে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘আবদ্ধ ঘর নির্মাণ না করে খোলামেলা ঘর নির্মাণ করতে হবে। ঘরের বারান্দা থাকতে হবে। যাতে করে ঘরের ভেতরে আলো-বাতাস প্রবেশ করতে পারে।’ জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় মোট আটটি প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। প্রকল্পগুলোয় ব্যয় হবে ২২ হাজার ৯৪৫ কোটি ৮৪ লাখ টাকা।

অপরদিকে, বিদেশে দক্ষ জনশক্তি পাঠানো ও রেমিট্যান্স প্রবাহ বৃদ্ধির জন্য সারা দেশে উপজেলা পর্যায়ে ৩২৯টি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ স্থাপন করবে সরকার। এ কাজে ব্যয় হবে ২০ হাজার ৫২৫ কোটি ৬৯ লাখ টাকা। ‘উপজেলা পর্যায়ে ৩২৯টি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ স্থাপন’ প্রকল্পের আওতায় এমন উদ্যোগ নেওয়া হবে।

প্রকল্পটি অনুমোদনের বিষয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘দেশে রেমিট্যান্স প্রবাহ দিন দিন বাড়ছে। এটি আমাদের অন্যতম শক্তি। আমরা বিশ্বাস করি, ভালো মানের জনশক্তি যদি বেশি বেশি পাঠাতে পারি, তবে রেমিট্যান্স আরও বাড়বে। তাই ৩২৯ উপজেলায় কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নির্মাণ করা হবে। কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে প্রকল্পটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।’

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন
ট্যাগ »

সর্বশেষ..