শোবিজ

শুরু হচ্ছে ডয়েচে ভেলে বাংলার ইউটিউবের নতুন শো ‘খালেদ মুহিউদ্দীন জানতে চায়’

শোবিজ ডেস্ক : জার্মানির পাবলিক ইন্টারন্যাশনাল ব্রডকাস্টার ডয়েচে ভেলে বাংলার ইউটিউব চ্যানেলে শুরু হতে যাচ্ছে সাপ্তাহিক আয়োজন ‘খালেদ মুহিউদ্দীন জানতে চায়’ শীর্ষক টকশো। আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ সময় রাত ৯টায় এ টকশো শুরু হবে। দেশের রাজনীতি, অর্থনীতি, রাষ্ট্র ও সমাজের বিভিন্ন সমস্যার ওপর ভিত্তি করে এ অনুষ্ঠানটি পরিচালিত হবে। ডয়েচে ভেলের বাংলা বিভাগের প্রধান খালেদ মুহিউদ্দীন জার্মানির ‘বন’ থেকে এটি পরিচালনা করবেন। এছাড়া স্কাইপে যুক্ত হবেন বাংলাদেশসহ বিশ্বের যে কোনো প্রান্ত থেকে দুজন অতিথি। এ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বিশ্বের যে কোনো দেশের জনগণ রাজনীতি, অর্থনীতি, রাষ্ট্র ও সমাজের বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে সঞ্চালককে প্রশ্ন করতে পারবেন। এ চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করে দর্শক তাদের মতামত জানাতে পারবেন। চ্যানেলটির সঙ্গে যুক্ত হতে ভিজিট করতে হবে যঃঃঢ়ং://নরঃ.ষু/২ঝঔড়বছয়-এ ঠিকানায়। এ বিষয়ে গতকাল জাতীয় প্রেস ক্লাবের আবদুস সালাম হলে ডয়েচে ভেলে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করেন। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক খালেদ মুহিউদ্দীন, ডয়েচে ভেলে’র এশিয়ার প্রধান দেবারতি গুহ এবং বাংলাদেশের প্রতিনিধি হারুন-উর রশীদ স্বপন। দেবারতি গুহ বলেন, ডয়েচে ভেলে মতপ্রকাশের স্বাধীনতা, মানবাধিকার, নারীর ক্ষমতায়ন, ন্যায়বিচার এবং সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির পক্ষে অবস্থান নেয়। আমি এশিয়ার দায়িত্ব নেওয়ার পর এটাকে আরও শক্তিশালী ও সমন্বিত করতে চেষ্টা করে যাচ্ছি। খালেদ মুহিউদ্দীন জানতে চায় দিয়ে ডয়েচে ভেলে দেশ ও বিদেশের বাইরের বাংলাভাষী মানুষের কাছাকাছি থাকতে চায় ও তাদের মনের প্রশ্নগুলো জানতে চায়। সংবাদ সম্মেলনে আরও বলা হয়, আমাদের সবার মনে প্রশ্ন আছে, আমরা প্রশ্ন করতে চাই সবাইকে। সবাইকে তার কাজের মূল্যায়ন বা জবাবদিহি করতে চাই। প্রশ্ন করতে, মতামত দিতে এ টকশোটিতে সবাইকে পাশে পেতে চাই। আমরা আশা করি, দর্শকদের প্রশ্নেই নিশ্চিত হবে বাকস্বাধীনতা। বিষয়ভিত্তিক প্রশ্ন করুন, উপযুক্ত তথ্য দিয়ে পাশে থাকুন। আমরা নিশ্চিত করতে চাই সবার জবাবদিহি। সত্য, একতা, নিরপেক্ষতা আমাদের শক্তি। ১৯৫৩ সাল থেকে সম্প্রচার শুরু হয় ডয়েচে ভেলের। জার্মানির ‘বন’-এ প্রতিষ্ঠানটির সদরদপ্তর। এছাড়া টেলিভিশনের অনুষ্ঠানগুলো জার্মানির বার্লিন শহর থেকে সম্প্রচারিত হয়। এ দুশহর থেকেই প্রতিষ্ঠানটির নিউজ ওয়েবসাইটের জন্য বিভিন্ন সংবাদ তৈরি করা হয়। বর্তমানে ৩০টি ভাষায় এটি পরিচালিত হচ্ছে। ডয়েচে ভেলে স্যাটেলাইট টেলিভিশনে ইংরেজি, জার্মান, স্প্যানিশ এবং আরবি ভাষায় প্রোগ্রাম সম্প্রচার করা হয়। প্রতিষ্ঠানটি তার নিউজ ওয়েবসাইটে নিয়মিত বিভিন্ন আর্টিকেলের আপডেট প্রকাশ করে। আন্তর্জাতিক মিডিয়া বিকাশে কাজ করে যাচ্ছে ডয়েচে ভেলে একাডেমি।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..