মার্কেটওয়াচ

শেয়ারদরে ডিএসইর নিয়ন্ত্রণ সমর্থনযোগ্য নয়

আমরা এমন একটি পুঁজিবাজার চাই, যেখানে বাজার তার নিজস্ব গতিতে চলবে এবং স্বচ্ছভাবে শেয়ার কেনাবেচা হবে। এটাই নিয়ম। এটি বিশ্বের সব পুঁজিবাজারেই রয়েছে। আবার একটি শেয়ারের দর কত হবেÑসেটিও নির্ধারণ করবেন ক্রেতা-বিক্রেতা। যদি শেয়ার কেনাবেচায় কোনো ধরনের অনিয়ম বা দুর্নীতি হয়, সেটি নিয়ন্ত্রণের দায়িত্ব ডিএসইর রয়েছে। কিন্তু কোনো শেয়ারদরে ডিএসইর নিয়ন্ত্রণ করা সমর্থনযোগ্য নয়। গতকাল এনটিভির মার্কেট ওয়াচ অনুষ্ঠানে বিষয়টি আলোচিত হয়। হাসিব হাসানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পুঁজিবাজারের টেকনিক্যাল অ্যানালিস্ট রহমত উল্লাহ ও আমার স্টক ডটকমের সিইও মোহাম্মদ আলী জাহাঙ্গীর।

রহমত উল্লাহ বলেন, গত ৯ বছরে যখনই কোনো কোম্পানির শেয়ারদর বেড়েছে, তখনই ডিএসই তাতে হস্তক্ষেপ করেছে। আসলে আমরা এমন একটি পুঁজিবাজার চাই, যেখানে বাজার তার নিজস্ব গতিতে চলবে এবং স্বচ্ছভাবে শেয়ার কেনাবেচা হবে Ñএটাই নিয়ম। এটি বিশ্বের সব পুঁজিবাজারেই রয়েছে। আবার শেয়ারের দর কত হবে, তাও নির্ধারণ করবেন ক্রেতা-বিক্রেতা। যদি শেয়ার কেনাবেচায় কোনো ধরনের অনিয়ম বা দুর্নীতি হয়, সেটি নিয়ন্ত্রণের দায়িত্ব ডিএসইর রয়েছে। কিন্তু কোনো শেয়ারের দর ডিএসইর নিয়ন্ত্রণ করা সমর্থনযোগ্য নয়। ধরুন, আজ সূচক পাঁচ হাজারে রয়েছে। এ সূচক কি ১৬ হাজার অতিক্রম করবে না? অবশ্যই করবে। তাহলে আজ যে শেয়ারের দর ১০ টাকা, সেটি তিনগুণ হবে। তখন কী করে বাধা দেবেন? 

মোহাম্মদ আলী জাহাঙ্গীর বলেন, একটি পুঁজিবাজারে বিভিন্ন ধরনের পণ্য থাকবে; থাকবেন বিভিন্ন ধরনের বিনিয়োগকারী এবং তারা বিনিয়োগ করবেন। বন্ড, মিউচুয়াল ফান্ড, ডেরিভেটিস ও ইকুইটি প্রভৃতি পণ্য থাকা উচিত। অর্থাৎ, একটিতে লোকসান হলে যাতে অন্যটিতে বিনিয়োগ করে লাভ-লোকসানের ভারসাম্য রাখা যায়।

শ্রুতিলিখন: শিপন আহমেদ

সর্বশেষ..