বাজার বিশ্লেষণ

শেয়ার কেনার চাপে উভয় বাজারে সূচক ইতিবাচক

নিজস্ব প্রতিবেদক

উভয় বাজারে গতকাল সপ্তাহের প্রথম দিনে ইতিবাচক গতিতে লেনদেন হয়েছে। লেনদেন আগের কার্যদিবসের তুলনায় কম হলেও গতকাল শুরু থেকেই ছিল শেয়ার কেনার চাপ। গতকাল ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ৫৪ শতাংশ শেয়ারের দর বেড়েছে, কমেছে ৩৫ শতাংশের দর। সবগুলো সূচক ইতিবাচক ছিল। লেনদেন আগের কার্যদিবসের তুলনায় কমলেও লেনদেনের শুরুতে শেয়ার কেনার চাপে ৩৫ পয়েন্ট উত্থান হয় ডিএসইএক্স সূচকের। এরপর সামান্য ব্যবধানে ওঠানামা করে শেষ পর্যন্ত ২৯ পয়েন্ট ইতিবাচক থাকে। অন্যদিকে চিটাগং স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচক, শেয়ারদর ও লেনদেনে একই চিত্র দেখা গেছে।

বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ২৯ দশমিক ১৮ পয়েন্ট বা দশমিক ৬২ শতাংশ বেড়ে চার হাজার ৭১২ দশমিক শূন্য আট পয়েন্টে অবস্থান করে।

ডিএসইএস বা শরিয়াহ্ সূচক সাত দশমিক ৬৯ পয়েন্ট বা দশমিক ৭১ শতাংশ বেড়ে               এক হাজার ৮৩ দশমিক ১৭ পয়েন্টে অবস্থান করে। আর ডিএস৩০ সূচক ১০ দশমিক ৬০ পয়েন্ট বা দশমিক ৬৫ শতাংশ বেড়ে এক হাজার ৬৩৮ দশমিক ৩৫ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল ডিএসইর বাজার মূলধন এক হাজার ১২৯ কোটি টাকা বেড়ে দাঁড়িয়েছে তিন লাখ ৫৭ হাজার ৬৭ কোটি ৩৭ লাখ টাকায়। ডিএসইতে লেনদেন হয় ৩২৫ কোটি ৯৭ লাখ ৮৪ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৪০৫ কোটি ৪৩ লাখ ১৯ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসেবে লেনদেন কমেছে ৭৯ কোটি ৪৫ লাখ টাকা। এদিন ১১ কোটি ৬৮ লাখ ৮৬ হাজার ৭০১ শেয়ার এক লাখ ১৭ হাজার ৪৫৮ বার হাতবদল হয়। লেনদেন হওয়া ৩৫২ কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৯০টির, কমেছে ১২৩টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ৩৯টির দর।

গতকাল টাকার অঙ্কে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে ন্যাশনাল টিউবস। কোম্পানিটির ১৯ কোটি আট লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ছয় টাকা ৬০ পয়সা। এরপর নর্দান জুটের ১৩ কোটি ৮০ লাখ টাকা লেনদেন হয়। দর কমেছে ৫৭ টাকা ৩০ পয়সা। সোনার বাংলা ইন্স্যুরেন্সের ৯ কোটি ৮৪ লাখ টাকা লেনদেন হয়। দর কমেছে ১০ পয়সা। সুহƒদ ইন্ডাস্ট্রিজের ৯ কোটি ৭৬ লাখ টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে এক টাকা ৩০ পয়সা। স্টাইল ক্রাফটের আট কোটি ৯১ লাখ টাকা লেনদেন হয়, দর কমেছে ৪১ টাকা ১০ পয়সা। এছাড়া ফরচুন শুজের ছয় কোটি ৬৬ লাখ টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে  ৯০ পয়সা। ভিএফএস থ্রেডের ছয় কোটি ৪২ লাখ টাকা, ফার্মা এইডের ছয় কোটি ৪১ লাখ টাকা, মুন্নু জুট স্টাফলার্সের পাঁচ কোটি ২৮ লাখ টাকা, প্রিমিয়ার ব্যাংকের চার কোটি ৬১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।                      

২৬ দশমিক ৬৬ শতাংশ বেড়ে দর বৃদ্ধির শীর্ষে উঠে আসে হাক্কানি পাল্প। জাহিন স্পিনিংয়ের দর ১৬ দশমিক ৯৪ শতাংশ, এ্যাপোলো ইস্পাতের ১০ শতাংশ, গোল্ডেন হার্ভেস্ট এগ্রোর ৯ দশমিক ৮৯ শতাংশ, সেন্ট্রাল ফার্মাসিউটিক্যালসের ৯ দশমিক ৩৩ শতাংশ, প্রিমিয়ার লিজিংয়ের ৯ শতাংশ, প্রিমিয়ার লিজিংয়ের ৯ দশমিক শূন্য ৯ শতাংশ, মার্কেন্টাইল ইন্স্যুরেন্সের আট দশমিক ২৪ শতাংশ, আমরা নেটের সাত দশমিক ৭৬ শতাংশ, সাফকো স্পিনিংয়ের সাত দশমিক ২৭ শতাংশ, আরএসআরএম স্টিলের দর পাঁচ দশমিক ৮৬ শতাংশ বেড়েছে। 

সাত দশমিক ৬৯ শতাংশ কমে দরপতনের শীর্ষে উঠে আসে ফার্স্ট ফাইন্যান্স। মেঘনা পিইটির সাত দশমিক ৬৯ শতাংশ, নর্দান জুটের সাত দশমিক ৪৮ শতাংশ, স্ট্যান্ডার্ড সিরামিকের সাত দশমিক ৪৮ শতাংশ, মেঘনা কনডেন্সড মিল্কের সাত দশমিক ২৫ শতাংশ, লিগ্যাসি ফুটওয়্যারের সাত দশমিক ১৫ শতাংশ, স্টাইল ক্রাফটের পাঁচ দশমিক ৭৭ শতাংশ, এমারাল্ড অয়েলের পাঁচ দশমিক ২৬ শতাংশ, মুন্নু জুট স্টাফলার্সের চার দশমিক ৭৩ শতাংশ, জেএমআই সিরিঞ্জের দর চার দশমিক ৭০ শতাংশ কমেছে। 

অন্যদিকে সিএসইতে গতকাল সিএসসিএক্স মূল্যসূচক ৪৪ দশমিক ৭৯ পয়েন্ট বা দশমিক ৫১ শতাংশ বেড়ে আট হাজার ৬৯০ দশমিক ৯০ পয়েন্টে এবং সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৭৮ দশমিক ৭৮ পয়েন্ট বা দশমিক ৫৫ শতাংশ বেড়ে ১৪ হাজার ৩০০ দশমিক ৫৬ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল সর্বমোট ২৫১ কোম্পানি এবং মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৬৪টির, কমেছে ৬৩টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ২৪টির দর।

সিএসইতে এদিন ১৫ কোটি ২২ লাখ ৯৪ হাজার ৪৩০ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ১৮ কোটি ৩২ লাখ ৪৩ হাজার ৮৬৪ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসাবে লেনদেন কমেছে তিন কোটি ৯ লাখ টাকা।

সিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে অবস্থান করে মতিন স্পিনিং। কোম্পানিটির চার কোটি ৫৪ লাখ টাকা লেনদেন হয়। হাক্কানি পাল্পের তিন কোটি ১৩ লাখ টাকা, জাহিন স্পিনিংয়ের এক কোটি ৬৯ লাখ টাকা, এ্যাপোলো ইস্পাত ও তুংহাই নিটিংয়ের এক কোটি টাকা, মিথুন নিটিংয়ের ৯৮ লাখ টাকা, গোল্ডেন হার্ভেস্ট এগ্রোর ৯৭ লাখ টাকা, শেফার্ড ইন্ডাস্ট্রিজের ৯৬ লাখ টাকা, সেন্ট্রাল ফার্মার ৯৪ লাখ টাকা ও আমরা নেটের ৯১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

সর্বশেষ..