বাণিজ্য সংবাদ শিল্প-বাণিজ্য

শ্রমিকদের দক্ষতা বাড়াতে সহযোগিতা করবে দক্ষিণ কোরিয়া

নিজস্ব প্রতিবেদক: চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের (৪ আইআর) সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে দক্ষ শ্রমিকদের দক্ষতা বাড়াতে বাংলাদেশকে সহযোগিতা করার আশ্বাস দিয়েছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত দক্ষিণ কোরিয়ার হাইকমিশনার লি জ্যাং কেয়ান। গত মঙ্গলবার রাজধানীর মতিঝিলে ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ ভবনে সংগঠনের সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিমের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে হাইকমিশনার এ পরামর্শ দেন।

সাক্ষাতের সময় এফবিসিসিআই সভাপতি দক্ষিণ কোরিয়ার হাইকমিশনারকে এফবিসিসিআই ইমপ্যাক্ট ৪.০ সম্পর্কে অবহিত করেন, যার মধ্যে রয়েছে এফবিসিসিআই এডিআর সেন্টার, টেক সেন্টার, স্কিল ল্যাব, এফবিসিসিআই ইনস্টিটিউট, এফবিসিসিআই ইউনিভার্সিটি, ইকোনমিক অ্যান্ড অ্যাপ্লায়েড রিসার্চ সেন্টার, মাল্টিপারপাস ওয়ার্কশপ/সেমিনার/স্কিলস অডিটোরিয়াম ও বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে পার্টনারশিপে ফেডারেশনের সক্ষমতা বৃদ্ধি এবং এলডিসি ও এসডিজি ২০৩০ বাস্তবায়নের রোডম্যাপ প্রভৃতি। বাংলাদেশের উন্নয়ন গতিপথের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে বর্তমান এফবিসিসিআই বোর্ড এফবিসিসিআই ভিশন ২০৪১ চালু করেছে, যা ইমপ্যাক্ট ৪.০ উদ্যোগ নিয়ে গঠিত।

এছাড়া বৈঠকের মূল আকর্ষণ ছিল অটোমোবাইল শিল্পের খুচরা যন্ত্রাংশ তৈরিতে সরাসরি বিদেশি বিনিয়োগ বা যৌথ উদ্যোগে কোরিয়ার আগ্রহ প্রকাশ, প্রযুক্তি কেন্দ্রের সম্ভাব্য অবদান, স্টার্টআপ ইকোসিস্টেমে অ্যাক্সেস সুবিধা প্রদান এবং  বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তি কেন্দ্রের (অলটারনেটিভ ডিসপ্যুট রেসল্যুশন সেন্টার) জন্য মধ্যস্থতাকারী প্রদানের জন্য অনুরোধ জ্ঞাপন।

এফবিসিসিআই সভাপতি কোরিয়ার হাইকমিশনারের সঙ্গে কভিড-১৯ মহামারিতে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের উল্লেখযোগ্য অর্থনৈতিক ও সামাজিক কর্মকাণ্ড তুলে ধরেন। পাশাপাশি তারা উভয় দেশের দ্বিপক্ষীয় ভ্যালু চেইন ইনিশিয়েটিভ, কূটনৈতিক সম্পর্ক, কেসিসিআই, কেওআইএমএ, কেআইটিএকে সম্পৃক্ত করে বাণিজ্য চুক্তি, কভিড-১৯ সম্পৃক্ততা, বিনিয়োগে প্রণোদনা, জ্ঞান বিনিময়ের মাধ্যমে টিভিইটি দক্ষতা উন্নয়ন এবং শ্রমিক অভিবাসন বিষয়ে আলোচনা করেন।

এ সময় এমবাসি অব রিপাবলিক অব কোরিয়ার (আরওকে) কমার্শিয়াল সেকশনের ট্রেড রিপ্রেজেন্টেটিভ জং ওন কিম ও ডেপুটি চিফ অব মিশন কাউন্সিল চিওল-স্যাং কিমসহ এফবিসিসিআইয়ের সহসভাপতি রেজাউল করিম রেজনু সিআইপি, মীর নিজাম উদ্দিন আহমেদ, নিজামুদ্দিন রাজেশ এবং পরিচালক সুজিব রঞ্জন দাশ, মো. মুনির হোসাইন ও সালাউদ্দিন আলমগীর উপস্থিত ছিলেন।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..