সারা বাংলা

সক্ষমতার অতিরিক্ত মরদেহ নিয়ে বিপাকে কর্তৃপক্ষ

নারায়ণগঞ্জের ভিক্টোরিয়া জেনারেল হাসপাতাল মর্গ

প্রতিনিধি, নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জে ময়নাতদন্তের জন্য রয়েছে ভিক্টোরিয়া জেনারেল হাসপাতালে অবস্থিত একমাত্র মর্গ। ১০০ শয্যার এ হাসপাতালে প্রায় ছয় বছর আগে মর্গের কার্যক্রম শুরু হয়। শুরু থেকেই মর্গটিতে রয়েছে নানা সমস্যা। কোনোদিন ধারণক্ষমতার অতিরিক্ত মরদেহ মর্গে এলে তা ময়লা ও অপরিচ্ছন্ন স্থানে ফেলে রাখা হয়। গণপূর্ত বিভাগে চিঠি দিয়েও কোনো ফল পায়নি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

জানা গেছে, ভিক্টোরিয়া হাসপাতালের দুটি কক্ষ নিয়ে স্থাপিত মর্গটি ২০১৩ সালের ১৬ জানুয়ারি উদ্বোধন করা হয়। কিন্তু মরদেহ রাখার জন্য নেই পর্যাপ্ত মরচুয়ারি কুলার (মরদেহ সংরক্ষণের ফ্রিজ) কিংবা মরদেহ রাখার কোনো কফিন (কাঠের বাক্স)। কোনোদিন ধারণক্ষমতার অতিরিক্ত মরদেহ মর্গে এলে তা ময়লা ও অপরিচ্ছন্ন স্থানে ফেলে রাখা হয়। আর অপরিচ্ছন্ন পরিবেশেই চলে ময়নাতদন্ত। মর্গের ভেতরে অবস্থিত চারটি এসির মধ্যে একটি নষ্ট। বেশিরভাগ জানালা ভেঙে গেছে। ফলে বাকি তিনটি এসি চললেও মর্গ পুরোপুরি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত থাকে না। ফলে মর্গে ময়নাতদন্তের জন্য রাখা মরদেহ দ্রুত পচন ধরে দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ে। এতে অপেক্ষায় থাকা স্বজনদের দুর্ভোগ পোহাতে হয়।

মর্গের দেখভালে নিয়োজিত এক ডোম জানান, মর্গের মরদেহের সংখ্যা বেশি হলে মেঝেতে রাখতে হয়। আর বৃষ্টির দিনে মর্গের সামনের রাস্তায় পানি জমে যায়। সেই পানি ভেতরে প্রবেশ করায় দ্রুত অপরিচ্ছন্ন হয়ে যায় মর্গ। আবার জানালার গ্লাস ভাঙা থাকায় জানালা দিয়েও পানি ভেতরে ঢোকে।

হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার মো. আসাদুজ্জামান জানান, মর্গের সমস্যা সমাধানে গণপূর্ত বিভাগকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত কোনো ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। এসিগুলোতে কিছুটা সমস্যা আছে কিন্তু আগে পুরো চারটা এসি নষ্ট ছিল। এগুলো মেরামত করা হয়েছে। এছাড়া অন্য যেসব সমস্যা রয়েছে সে বিষয়ে গণপূর্ত বিভাগকে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে। এগুলো এ অর্থবছরে সমাধান হবে বলে আশা করা যায়।

গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ জাকির হোসেন জানান, এ বছরই মর্গের এসিগুলো ঠিক করা হয়েছে। এগুলো ঠিক করার পর আর কোনো লিখিত বা কোনো ধরনের অভিযোগ হাসপাতাল থেকে করা হয়নি। আর কোনো সমস্যা হলে ঠিক করা হবে। গত বছর মর্গের মরচুয়ারি কুলারের জন্য ৪৮ লাখ টাকার একটি প্রস্তাবনা মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত অনুমোদন পাওয়া যায়নি।

সর্বশেষ..