খবর

সড়ক দুর্ঘটনায় দুজেলায় নিহত ৯

শেয়ার বিজ ডেস্ক: পঞ্চগড়-তেঁতুলিয়া মহাসড়কে সড়ক দুর্ঘটনায় সাতজন নিহত হয়েছেন। গতকাল বেলা ১টায় মাগুরমারী চৌরাস্তা আমতলী এলাকায় ব্যাটারিচালিত ইজিবাইককে যাত্রীবাহী বাস চাপা দেয়। এতে চালকসহ ইজিবাজকের ছয় যাত্রী নিহত হন। এদিকে ঢাকার অদূরে কেরানীগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় বাবা ও ছেলের মৃত্যু হয়েছে। বেলা ২টায় মোটরসাইকেলকে পেছন থেকে একটি ট্রাক ধাক্কা দিলে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

শেয়ার বিজের পঞ্চগড় প্রতিনিধি জানান, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন পঞ্চগড়ের জেলা প্রশাসক সাবিনা ইয়াসমিন। তিনি সাতজন নিহত হওয়ার তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তবে তাৎক্ষণিকভাবে নিহতদের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ঘাতক বাসটি যাত্রী নিয়ে পঞ্চগড় থেকে তেঁতুলিয়ার দিকে যাচ্ছিল। এ সময় মাগুরমারী চৌরাস্তা আমতলী এলাকায় বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ব্যাটারিচালিত ইজিবাইককে চাপা দেয় বাসটি। এতে ঘটনাস্থলে পাঁচজন ও হাসপাতালে নেওয়ার পর আরও দুজনের মৃত্যু হয়।

পঞ্চগড় ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের স্টেশন অফিসার নিরঞ্জন সরকার বলেন, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গেলে স্থানীয়রা আমাদের ওপর চড়াও হন। ঘটনার পর স্থানীয় লোকজন মহাসড়ক অবরোধ করে রাখেন। তাদের জন্য আমরা ঠিকমতো উদ্ধারকাজ করতে পারছি না।

এদিকে রাজধানীর কেরানীগঞ্জের রুহিতপুর এলাকায় ট্রাকের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী বাবা আসাদুল হক ইপু (৪০) ও তার শিশুসন্তান সোহান (৬) নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় সঙ্গে থাকা আসাদুলের স্ত্রী রেশমা আক্তার আহত হয়েছেন।

দুর্ঘটনার পর পথচারীরা তিনজনকেই আহত অবস্থায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসেন। পরে বিকাল সোয়া ৩টায় বাবা আসাদুল ও তার শিশুসন্তান সোহানকে দায়িত্বরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত আসাদুলের স্ত্রী রেশমা জানান, তারা সায়েদাবাদের করাতিটোলা এলাকায় থাকেন। তার স্বামী একটি বেসরকারি কোম্পানিতে চাকরি করতেন। শুক্রবার স্বামী ও সন্তানের সঙ্গে মোটরসাইকেলে কেরানীগঞ্জের বাগমারা এলাকায় শ্বশুরবাড়িতে যাচ্ছিলেন রেশমা।

পথে রোহিতপুর কুড়াহাটি এলাকায় পৌঁছানোর পর একটি ট্রাক তাদের মোটরসাইকেলটিকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। তখন তিনজনই ছিটকে পড়েন। দুর্ঘটনায় আসাদুল ও শিশুসন্তান সোহান মাথায় গুরুতর আঘাত পান। পরে তিনজনকেই উদ্ধার করে ঢামেকে নিয়ে এলে দায়িত্বরত চিকিৎসক আসাদুল ও সোহানকে মৃত ঘোষণা করেন।

ঢাকা মেডিক্যাল পুলিশ ক্যাম্প ইনচার্জ বাচ্চু মিয়া বলেন, বাবা ও শিশুসন্তানের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে রাখা হয়েছে। আহত রেশমাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। তিনি ভালো আছেন।

এদিকে কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ওসি শাকির মোহাম্মদ জানান, ঘটনার পরপরই ঘাতক ট্রাকটি জব্দ করা হয়েছে। তবে চালক পালিয়ে যাওয়ায় তাকে আটক করা যায়নি।

সর্বশেষ..