প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সন্তানদের সাথে ঈদ করবেন টাঙ্গাইল কারাগারের আট নারী বন্দি

প্রতিনিধি, টাঙ্গাইল: ঈদের দিন নিজ সন্তানদের সাথে সময় কাটানোর সুযোগ পাবে টাঙ্গাইল জেলা কারাগারে বিভিন্ন মামলায় সাজারত ৮ নারী বন্দি। শুধু তাই নয়, কারা কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে সেই সকল শিশুদের জন্য ব্যবস্থা করা হয়েছে নতুন পোশাক। পাশাপাশি কারাগারের সকল বন্দিদের জন্য থাকছে বিশেষ খাবারের ব্যবস্থা। গণমাধ্যমকে এমনটাই জানিয়েছেন জেল সুপার আবদুল্লাহ আল মামুন।

কারা সূত্রে জানা যায়, পবিত্র ঈদুল ফিতরের দিন টাঙ্গাইল জেলা কারাগারের বন্দিরা পাচ্ছেন বিশেষ খাবার ও সুবিধা। ওইদিন দিনব্যাপী পরিবারের সঙ্গে দেখা করা ও বিয়ের খাবারের মতো নানান সুবিধা পাবেন তারা। এছাড়াও নারী বন্দিদের শিশু সন্তানরা পাবে নতুন পোশাক।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, টাঙ্গাইল জেলা কারাগারে বর্তমানে এক হাজার ৪৩৫ জন হাজতি ও কয়েদি রয়েছে। এরমধ্যে পুরুষ এক হাজার ৩৭০জন ও নারী ৬৫জন। ঈদুল ফিতর উপলক্ষে এই বন্দিদের জন্য এদিন স্পেশাল সুবিধার ব্যবস্থা করেছে কারা কর্তৃপক্ষ। এদিন ঈদের জামায়াতের পর থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত বন্দিরা তাদের স্বজনদের সঙ্গে দেখা করার সুযোগ পাবেন। ওইদিন প্রতিজন বন্দি সাক্ষাতের সময় পাবেন ১০ মিনিট করে। এছাড়াও পরিবারের সঙ্গে ফোনে কথা বলার সময় পাবেন ৭ থেকে ৮ মিনিট করে। কারাগারে ৬৫জন নারী বন্দির মধ্যে আটজনের শিশু সন্তান রয়েছে। তাদের সন্তানদের জন্য নতুন জামা-কাপড়ের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এদিন সকাল ৯টায় কারাগারের ভিতরে ঈদের জামায়াত অনুষ্ঠিত হবে। ঈদের জামায়াত পড়ানোর জন্য বাইরে থেকে ঈমাম নিয়োগ দেওয়া হবে।

এদিন খাবারের তালিকায় রয়েছে- সকালে সেমাই ও মুড়ি; দুপুরে পোলাও, গরু ও খাসির মাংস, মুরগির রোস্ট, সালাদ, টাঙ্গাইলের পোড়াবাড়ির চমচম, কোল্ডড্রিংক্স ও পান সুপারি; রাতে রয়েছে সাদা ভাতের সঙ্গে বুটের ডালের লটপটি ও মাছ।

টাঙ্গাইল জেলা কারাগারের জেল সুপার মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, ‘অন্যান্য সময়ের চেয়ে ঈদের দিন কারাবন্দিদের জন্য বেশ কিছু সুবিধার ব্যবস্থা করা হয়। এদিন বিয়ের খাবারের মতোই তাদের জন্য উন্নত মানের খাবারের ব্যবস্থা রয়েছে। নারী বন্দিদের মধ্যে আটজনের সন্তান রয়েছে। তাদের জন্য আমরা নতুন পোশাকের ব্যবস্থা করেছি। কারাবন্দিরা ওইদিন ঈদের জামায়াতের পর থেকে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত তাদের স্বজনদের সঙ্গে দেখা ও ফোনে কথা বলার সুযোগ পাবেন। এছাড়াও ওইদিন আরও কিছু বিশেষ সুবিধা রয়েছে তাদের জন্য।’