প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সপ্তাহজুড়ে ব্লক মার্কেটে ১১৭ কোটি টাকা লেনদেন

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ব্লক মার্কেটে বিদায়ী সপ্তাহে ১১৬ কোটি ৭১ লাখ ৩৬ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে। সপ্তাহের পাঁচ কার্যদিবসে মোট তিন কোটি ৬০ লাখ ৫২ হাজার ১৯৬টি শেয়ার ৯৪ বার লেনদেন হয়। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস রোববার ব্লক মার্কেটে এবি ব্যাংকের ৪০ লাখ ১৫ হাজার ২৪৭টি শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারমূল্য আট কোটি ৪৭ লাখ ২২ হাজার টাকা। ব্যাংক এশিয়ার চার লাখ ৮১ হাজার ৭৭৬টি শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারদর ৮৪ লাখ ৭৯ হাজার টাকা। বার্জার পেইন্টের সাত হাজার শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারদর এক কোটি ৬৩ লাখ ১০ হাজার টাকা। সিটি ব্যাংকের ১৮ লাখ ৭৬ হাজার ৭১৪টি শেয়ার ছয়বার লেনদেন হয়, যার বাজারদর পাঁচ কোটি ৫ লাখ ৫৮ হাজার টাকা।
এক্সিম ব্যাংকের দুই লাখ ৪৫ হাজার ১৪৬টি শেয়ার দুইবার লেনদেন হয় যার বাজারদর ২৫ লাখ ৭৪ হাজার টাকা। মার্কেন্টাইল ব্যাংকের ১২ লাখ ৫৯ হাজার ৬৮৩টি শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারমূল্য এক কোটি ৭৬ লাখ ৩৬ হাজার টাকা। এমআই সিমেন্টের ৭২ হাজার ৮০টি শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারদর ৫৬ লাখ ৩৭ হাজার টাকা। মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের ৮১ হাজার ৪০৫টি শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারমূল্য ১৮ লাখ ৭২ হাজার টাকা।
অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজের দুই লাখ ৫০ হাজার শেয়ার পাঁচবার লেনদেন হয়, যার বাজারমূল্য ৭ কোটি ৬৬ লাখ ৩০ হাজার টাকা। ওয়ান ব্যাংকের আট লাখ ২০ হাজার ৮৬৩টি শেয়ার দুইবার লেনদেন হয়, যার বাজারদর এক কোটি ৩০ লাখ ২৩ হাজার টাকা। প্রিমিয়ার ব্যাংকের ৫৯ হাজার ৭৬১টি শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারদর পাঁচ লাখ ২০ হাজার টাকা। পূবালী ব্যাংকের ১০ লাখ ৭৬ হাজার ৭১৮টি শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারমূল্য দুই কোটি ৫৫ লাখ ১৮ হাজার টাকা।
কাশেম ড্রাইসেলের ১৫ হাজার শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারমূল্য ১৪ লাখ ৬২ হাজার টাকা। এসআইবিএলের ৮৪ লাখ শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারমূল্য ১৪ কোটি ২৮ লাখ টাকা। সাউথইস্ট ব্যাংকের আট লাখ ৫৭ হাজার ১১৩টি শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারমূল্য এক কোটি ৪৪ লাখ ৮৫ হাজার টাকা।
স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের ১০ লাখ ৭০ হাজার ৫৩৬টি শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারমূল্য এক কোটি ১৪ লাখ ৫৫ হাজার টাকা। ট্রাস্ট ব্যাংকের দুই লাখ ৮১ হাজার ৭১০ শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারদর ৬৩ লাখ ৩৮ হাজার টাকা। উত্তরা ব্যাংকের এক লাখ আট হাজার ১৫৬টি শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারদর ২৫ লাখ ৩১ হাজার টাকা এবং ইয়াকিন পলিমারের ৫৫ হাজার শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারমূল্য ১৭ লাখ ৮২ হাজার টাকা।
দ্বিতীয় কার্যদিবসে ব্লক মার্কেটে ডেল্টা ব্র্যাক হাউজিংয়ের ১৭ লাখ ৫০ হাজার শেয়ার ১৬ বার লেনদেন হয়, যার বাজারমূল্য ১৭ কোটি ৫০ লাখ ১৫ হাজার টাকা। ফরচুন সুজের ২৯ হাজার ৭০০টি শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারদর ১৬ লাখ ৮১ হাজার টাকা। লংকাবাংলা ফাইন্যান্সের ১৯ হাজার শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারদর ছয় লাখ ৫২ হাজার টাকা। অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজের এক লাখ ১৫ হাজার শেয়ার চারবার লেনদেন হয় যার বাজারদর তিন কোটি ৫২ লাখ ৮৫ হাজার টাকা।
আরএকে সিরাকিসের সাত লাখ শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারমূল্য চার কোটি ১৫ লাখ ১০ হাজার টাকা। আরএসআরএম স্টিলের ১৫ হাজার ৫০০টি শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারদর ১১ লাখ আট হাজার টাকা। এসআইবিএলের ৯৯ লাখ ১৩ হাজার ৯৪২ শেয়ার পাঁচবার লেনদেন হয়, যার বাজারদর ১৬ কোটি ৯৫ লাখ ২৮ হাজার টাকা এবং শাহজীবাজার পাওয়ারের ৫৫ হাজার ৫০০টি শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজার মূল্য ৮১ লাখ তিন হাজার টাকা।
তৃতীয় কার্যদিবসে ব্লক মার্কেটে বাটা সুজের ১০ হাজার শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারমূল্য এক কোটি ১৮ লাখ ৫০ হাজার টাকা। ডেল্টা ব্র্যাক হাউজিংয়ের ১৭ হাজার ৬৮৯টি শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারদর ১৭ লাখ ৬৯ হাজার টাকা। ফারইস্ট ফাইন্যান্সের ৫০ হাজার শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারদর পাঁচ লাখ ৫০ হাজার টাকা।
ন্যাশনাল টি কোম্পানির দুই হাজার শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারমূল্য ১৩ লাখ ৭০ হাজার টাকা এবং অলিম্পিক অ্যাকসেসরিজের ৮৩ হাজার ৭০০টি শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারদর ২০ লাখ ৯ হাজার টাকা।
চতুর্থ কার্যদিবসে ব্লক মার্কেটে বিএটিবিসির ১০ হাজার ৪০২টি শেয়ার দুইবার লেনদেন হয়, যার বাজারমূল্য দুই কোটি ৬০ লাখ ৬৭ হাজার টাকা। ফারইস্ট নিটিংয়ের ৩৫ হাজার শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারদর আট লাখ ৫৮ হাজার টাকা এবং অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজের দুই লাখ শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারদর ছয় কোটি ১৫ লাখ টাকা। শেষ কার্যদিবস বৃহস্পতিবার ব্লক মার্কেটে বার্জার পেইন্টসের তিন হাজার শেয়ার দুইবার লেনদেন হয়, যার বাজারমূল্য ৬৯ লাখ টাকা। গোল্ডেন হার্ভেস্ট এগ্রোর এক লাখ পাঁচ হাজার শেয়ার তিনবার লেনদেন হয়, যার বাজারদর ৫৭ লাখ ৭৫ হাজার টাকা। লাফার্জ সুরমার দুই লাখ শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারদর এক কোটি ৬২ লাখ টাকা। মবিল যমুনার দুই লাখ ৫৮ হাজার ৩৫৫টি শেয়ার তিনবার লেনদেন হয়, যার বাজারদর তিন কোটি ১১ লাখ ১৩ হাজার টাকা। এনসিসি ব্যাংক মিউচুয়াল ফান্ড ওয়ানের এক লাখ শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারদর সাত লাখ টাকা। প্যারামাউন্ট ইন্স্যুরেন্সের ৯ লাখ ৮৭ হাজার শেয়ার সাতবার লেনদেন হয়, যার বাজারমূল্য দুই কোটি ১৫ লাখ ১৭ হাজার টাকা। রেনাটার ১৭ হাজার ৫০০টি শেয়ার দুইবার লেনদেন হয়, যার বাজারদর এক কোটি ৯০ লাখ ৭৫ হাজার টাকা। এস আলম কোল্ড রোল স্টিলের দুই লাখ শেয়ার একবার লেনদেন হয়, যার বাজারদর ৭৭ লাখ টাকা এবং স্কয়ার ফার্মার এক লাখ ৪০ হাজার শেয়ার পাঁচবার লেনদেন হয়, যার বাজার মূল্য তিন কোটি ৪৯ লাখ ৭০ হাজার টাকা।