প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সপ্তাহের ব্যবধান: বেশিরভাগ শেয়ারের দর কমেছে

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেশের উভয় পুঁজিবাজারে সপ্তাহের ব্যবধানে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ারদর কমেছে। একই চিত্র ছিল টার্নওভারের ক্ষেত্রেও। তবে ডিএসইতে দৈনিক গড় লেনদেন আগের সপ্তাহের চেয়ে বেড়েছে। পাশাপাশি বেড়েছে বাজার মূলধন।

সাপ্তাহিক বাজার পর্যালোচনায় দেখা গেছে, গেলো সপ্তাহে ডিএসইতে ৩৩৩টি কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১২৭টির, কমেছে ১৮০টি এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৫টি কোম্পানির শেয়ারদর।

অন্যদিকে সিএসইতে ২৮১টি কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১২১টির, কমেছে ১৩৫টি এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৫টি কোম্পানির শেয়ারদর।

এদিকে গত সপ্তাহে ডিএসইতে গড় লেনদেনের পরিমাণ ছিল এক হাজার ২৯৩ কোটি ২৮ লাখ ৬৫ হাজার ৪৩৯ টাকা। আগের সপ্তাহে যার পরিমাণ ছিল এক হাজার ৭০ কোটি আট লাখ পাঁচ হাজার ৬৬৫ টাকা। অর্থাৎ এক সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইতে দৈনিক গড় লেনদেন বেড়েছে ২২৩ কোটি টাকা বা ২০ দশমিক ৮৬ শতাংশ।

অন্যদিকে গত সপ্তাহে ডিএসইর মোট টার্নওভারের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে পাঁচ হাজার ১৭৩ কোটি ১৪ লাখ ৬১ হাজার ৭৫৬ টাকা। আগের সপ্তাহে যা ছিল পাঁচ হাজার ৩৫০ কোটি ৪০ লাখ ২৮ হাজার ৩২৫ টাকা। অর্থাৎ এক সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইতে টার্নওভার কমেছে ১৭৭ কোটি ২৫ লাখ ৬৬ হাজার ৫৬৯ টাকা বা ৩ দশমিক ৩১ শতাংশ।

ডিএসইতে গত সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস রোববার বাজার মূলধন পরিমাণ ছিল তিন লাখ ৭৪ হাজার ৫০৭ কোটি ৬৬ লাখ ৬৪ হাজার ৭৩৪ টাকা। শেষ কার্যদিবসে যার পরিমাণ দাঁড়িয়েছে তিন লাখ ৭৬ হাজার ২২২ কোটি ১৫ লাখ ৪২ হাজার ২১৭ টাকা। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে বাজার মূলধন বেড়েছে এক হাজার ৭১৪ কোটি ৪৮ লাখ ৭৭ হাজার ৪৮৩ টাকা বা শূন্য দশমিক ৪৬ শতাংশ।

ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের সপ্তাহের চেয়ে ৩৪ পয়েন্ট বেড়ে গত সপ্তাহের শেষ দিন পাঁচ হাজার ৫৯০ পয়েন্টে অবস্থান করছে। এছাড়া শরিয়াহ সূচক ডিএসইএস ৩ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ৩০৬ পয়েন্টে এবং ডিএস ৩০ সূচক ৯ পয়েন্ট বেড়ে দুই হাজার ২৭ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

দেশের অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) এক সপ্তাহে সার্বিক সূচক সিএসসিএক্স বেড়েছে শূন্য দশমিক ৭১ শতাংশ। এছাড়া সিএএসপিআই সূচক বেড়েছে শূন্য দশমিক ৬৩ শতাংশ, সিএসই৫০ সূচক শূন্য দশমিক ৬৭ শতাংশ এবং সিএসআই শরিয়াহ সূচক শূন্য দশমিক ৪২ শতাংশ এবং সিএসই৩০ সূচক শূন্য দশমিক ৬৭ শতাংশ।

সিএসইতে গেলো সপ্তাহে টার্নওভারের পরিমাণ দাঁড়ায় ২৯৩ কোটি টাকা, যা আগের সপ্তাহের চেয়ে কমেছে। আগের সপ্তাহে টার্নওভারের পরিমাণ ছিল ৩১৮ কোটি টাকা।

গত সপ্তাহে ডিএসইর টপ টেন তালিকায় উঠে আসা কোম্পানির মধ্যে রয়েছে সালভো কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, আইপিডিসি ফাইন্যান্স লিমিটেড, পদ্মা অয়েল কোম্পানি লিমিটেড, এএফসি এগ্রো বায়োটেক লিমিটেড, মতিন স্পিনিং মিলস লিমিটেড, সিএমসি কামাল টেক্সটাইল মিলস লিমিটেড, আলহাজ টেক্সটাইল মিলস লিমিটেড, জিপিএইচ ইস্পাত লিমিটেড, লংকাবাংলা ফাইন্যান্স লিমিটেড ও ইস্টার্ন হাউজিং লিমিটেড।

অন্যদিকে ডিএসইতে টপ টেন লুজার তালিকায় উঠে আসা কোম্পানির মধ্যে রয়েছে আরএন স্পিনিং মিলস লিমিটেড, আইসিবি এএমসিএল ফার্স্ট এনআরবি মিউচুয়াল ফান্ড, ডাচ্-বাংলা ব্যাংক লিমিটেড, আইসিবি ইসলামিক ব্যাংক লিমিটেড, আনলিমা ইয়ার্ন ডায়িং লিমিটেড, জিলবাংলা সুগার মিলস লিমিটেড, ইস্টার্ন ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড, জাহিনটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, দুলামিয়া কটন স্পিনিং মিলস লিমিটেড ও রহিমা ফুড করপোরেশন লিমিটেড।

সিএসইতে সাপ্তাহিক টপ টেন গেইনার তালিকার শীর্ষে উঠে আসা কোম্পানির মধ্যে রয়েছে সালভো কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, আইপিডিসি ফাইন্যান্স লিমিটেড, পদ্মা অয়েল কোম্পানি লিমিটেড, এএফসি এগ্রো বায়োটেক লিমিটেড, প্রাইম ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড, লংকাবাংলা ফাইন্যান্স লিমিটেড, জিপিএইচ ইস্পাত লিমিটেড, ইস্টার্ন হাউজিং লিমিটেড, সাইফ পাওয়ারটেক লিমিটেড ও তিতাস গ্যাস টান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড।