Print Date & Time : 23 June 2021 Wednesday 4:52 pm

সপ্তাহের লেনদেনে আধিপত্য ছিল মিউচুয়াল ফান্ডের

প্রকাশ: April 16, 2021 সময়- 11:48 pm

নিজস্ব প্রতিবেদক: কভিড মহামারি রোধে সর্বাত্মক লকডাউনের মধ্যে সূচকের উত্থানে শেষ হয়েছে চলতি সপ্তাহের পুঁজিবাজারের লেনদেন। বিগত সপ্তাহে পুঁজিবাজারের লেনদেন হয়েছে মোট চার দিন। বাংলা নববর্ষের প্রথম দিন পহেলা বৈশাখে সরকারি ছুটি থাকায় সেদিন লেনদেন হয়নি। শেষ হওয়া সপ্তাহে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে লেনদেনের শীর্ষে ছিল সিএপিএম আইবিবিএল ইসলামিক মিউচুয়াল ফান্ড।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ সূত্রে এ তথ্য জানা যায়। সূত্র অনুযায়ী, পুঁজিবাজারে এ ক্যাটেগরিতে লেনদেন হওয়া সিএপিএম আইবিবিএল ইসলামিক মিউচুয়াল ফান্ড কোম্পানিটির শেয়ার দর বাড়ে ২০ দশমিক ৩৬ শতাংশ। আলোচিত এ কোম্পানিটির গেল সপ্তাহে প্রতিদিন লেনদেন হয় এক কোটি ৩৯ লাখ ৭৫ হাজার ২৫০ টাকা সমমূল্যের শেয়ার ইউনিট, যা সপ্তাহ শেষে এসে দাঁড়ায় পাঁচ কোটি ৫৯ লাখ এক হাজার টাকার সমান শেয়ার ইউনিট।

আলোচিত এ কোম্পানিটির সর্বশেষ লেনদেন হয় ২০ টাকা ১০ পয়সা। এর আগের দিন থেকে এক টাকা ৮০ পয়সা বা ৯ দশমিক ৮৪ শতাংশ বেশি। ঈদের কার্যদিবসেই কোম্পানিটির লেনদেন শেষ হয় ১৯ টাকা ২০ পয়সায়। গত সপ্তাহের পুঁজিবাজারের শেষ কার্যদিবসে কোম্পানিটির শেয়ার দর সর্বনি¤œ হাজার ৯০০ টাকা ১০ পয়সা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ২০ টাকা ১০ পয়সায় লেনদেন হয়। কোম্পানিটির মোট কোটি ৭০ লাখ টাকার বেশি শেয়ার ইউনিট হাতবদল হয়। কার্যদিবসে সর্বমোট আট লাখ ৬৪ হাজার ৫৩৪টি শেয়ার ইউনিট মাত্র? ৫০৬ বারে হাতবদল হয়।

আলোচিত এই কোম্পানিটির বাজার মূলধন আছে ১২২ কোটি টাকারও বেশি। ৬৬ কোটি টাকারও বেশি পরিশোধিত মূলধন থাকলেও এ কোম্পানিটির নেই কোনো অনুমোদিত মূলধন। পুঁজিবাজারে এই কোম্পানিটির সর্বমোট ছয় কোটি ৬৮ লাখ ৫৩ হাজার ৫০০টি শেয়ার রয়েছে।

সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী এ কোম্পানিটির শেয়ারের ৭৪ দশমিক শূন্য চার শতাংশ শেয়ার রয়েছে এ কোম্পানির উদ্যোক্তা পরিচালকদের হাতে। বিনিয়োগকারীদের কাছে আছে দুই দশমিক ৫১ শতাংশ, সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে রয়েছে ২৩ দশমিক ৪৫ শতাংশ শেয়ার। কোনো শেয়ার সরকার কিংবা বৈদেশিক বিনিয়োগকারীদের কাছে নেই। এখন পুঁজিবাজারে এ ক্যাটেগরিতে লেনদেন করছে। গেল বছর কোম্পানিটি আট শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দেয় বিনিয়োগকারীদের।

 গেল সপ্তাহে তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল বিমা খাতের কোম্পানি ক্রিস্টাল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড। এই কোম্পানিতে প্রতিদিন শেয়ার লেনদেন হয় পাঁচ কোটি ৬৯ লাখ চার হাজার ৭৫০ টাকা সমমূল্যের শেয়ার ইউনিট। সপ্তাহ শেষে এসে দাঁড়ায় ২২ কোটি ৭৬ লাখ ১৯ হাজার টাকা। কোম্পানি ফেডারেল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড। বি ক্যাটেগরির এই কোম্পানিটির শেয়ার লেনদেন হয় দৈনিক সাত কোটি ৫৩ লাখ ৬৬ হাজার টাকা, যা সপ্তাহ শেষে দাঁড়ায় মোট ৩০ কোটি ১৪ লাখ ৬৪ হাজার টাকা।

তালিকার চতুর্থ অবস্থানে ছিল সিএপিএম বিডিবিএল মিউচুয়াল ফান্ড। একটা ঘড়ির আলোচিত এই কোম্পানিটির দৈনিক শেয়ার লেনদেন হয় ৫৫ লাখ ৬৩ হাজার টাকা, যা সপ্তাহ শেষে এসে দাঁড়ায় মোট দুই কোটি ২২ লাখ ৫২ হাজার টাকা। তালিকার পঞ্চম স্থানে ছিল এসইএমএল আইবিবিএল শরিয়াহ্ ফান্ড। এ ক্যাটেগরির এ কোম্পানিটির শেয়ার লেনদেন হয় দৈনিক ৪১ লাখ ৭৪ হাজার ৭৫০ টাকা সমমূল্যের, যা সপ্তাহ শেষে এসে দাঁড়ায় এক কোটি ৬৬ লাখ ৯৯ হাজার টাকা সমমূল্যের।

তালিকার ষষ্ঠ স্থানে ছিল প্রাইম ফাইন্যান্স ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড। টি ক্যাটেগরির এ কোম্পানিটির শেয়ার দৈনিক লেনদেন হয় ৬১ লাখ ৭৯ হাজার ৫০০ টাকা সমমূল্যের, যা সপ্তাহ শেষে এসে দাঁড়ায় দুই কোটি ৪৭ লাখ ১৮ হাজার টাকা। ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট কোম্পানি লিমিটেড। এ ক্যাটেগরির এই কোম্পানিটির দৈনিক লেনদেন হয় ২১ কোটি ৩৯ লাখ ৭৯ হাজার টাকা, যা সপ্তাহ শেষে এসে দাঁড়ায় ৮৫ কোটি ৫৯ লাখ ১৬ হাজার টাকায়।

স্থানে ছিল ইবিএল এনআরবি মিউচুয়াল ফান্ড। এ ক্যাটেগরির এই কোম্পানিটির দৈনিক লেনদেন হয় ২৪ লাখ ৪২ হাজার ৫০০ টাকা, যা সপ্তাহ শেষে এসে দাঁড়ায় ৯৭ লাখ ৭০ হাজার টাকা। তালিকার নবম স্থানে ছিল এই জেনারেশন কোম্পানি লিমিটেড। সমমূল্যের শেয়ার ইউনিট সপ্তাহ শেষে এসে দাঁড়ায় পাঁচ কোটি ৭৩ লাখ ৫৪ হাজার টাকা। তালিকার দশম স্থানে ছিল আইএফআইসি ব্যাংক ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড। এসে দাঁড়ায় এক কোটি ৪৮ লাখ ১২ হাজার টাকা।

করোনা মহামারি বিস্তার রোধে সরকার ঘোষিত লকডাউনের মধ্যে শেষ হয়েছে চলতি সপ্তাহের পুঁজিবাজারের লেনদেন। সরকারের দেয়া প্রাথমিক নির্দেশনায় ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান  বন্ধের নির্দেশনা থাকলেও পরবর্তীতে তা খোলা রাখার সিদ্ধান্ত হয়। এর আগে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ব্যাংক খোলা থাকলে পুঁজিবাজার খোলা থাকবে বলে জানানো হয়। সেই হিসাবে পুঁজিবাজারে লেনদেন চালু থাকে।