প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সপ্তাহ শেষে ঊর্ধ্বমুখী সূচক ও লেনদেন

নিজস্ব প্রতিবেদক: সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে উভয় পুঁজিবাজারে সূচক ও লেনদেনে ঊর্ধ্বগতি ছিল। তবে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচক বাড়লেও বাকি দুটো সূচক নিম্নমুখী ছিল। চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সিএসই ৩০ ও সিএসআই সূচক ছাড়া বাকিগুলো ইতিবাচক ছিল। লেনদেনও বেড়েছে। ডিএসইতে গতকাল লেনদেনের শুরুতে সূচক বাড়লেও দুপুর ১২টার পর থেকে নামতে থাকে। ১টার পর আবার বাড়তে থাকে। শেষ পর্যন্ত প্রায় ১৭ পয়েন্ট বৃদ্ধি দিয়ে লেনদেন শেষ হয়। এদিন ৪৪ শতাংশ শেয়ারের দর বেড়েছে, কমেছে ৪৩ শতাংশের।

বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স গতকাল ১৬ দশমিক ৭৩ পয়েন্ট বা দশমিক ২৭ শতাংশ বেড়ে ছয় হাজার ১৮ দশমিক ২৫ পয়েন্টে অবস্থান করে। ডিএসইএস বা শরিয়াহ্ সূচক সাত দশমিক ৪১ পয়েন্ট বা দশমিক ৫৬ শতাংশ কমে এক হাজার ৩১৬ দশমিক ৪৭ পয়েন্টে আর ডিএস৩০ সূচক সাত দশমিক ৯৯ পয়েন্ট বা দশমিক ৩৬ শতাংশ কমে দুই হাজার ১৭৩ দশমিক ৮৮ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল ডিএসইর বাজার মূলধন বেড়ে চার লাখ এক হাজার ৯৪ কোটি ৭১ লাখ ৯ হাজার টাকা হয়।

ডিএসইতে গতকাল লেনদেন হয় ৬৬২ কোটি ৯৯ লাখ ৫৮ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের দিন লেনদেন হয় ৫৮২ কোটি ৮৩ লাখ ১৫ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসেবে লেনদেন বেড়েছে ৮০ কোটি ১৬ লাখ টাকা। এদিন ১৪ কোটি ৭৬ লাখ ৯ হাজার ৭৪৫টি শেয়ার এক লাখ ৩৮ হাজার ৬০২ বার হাতবদল হয়। লেনদেন হওয়া ৩৩০টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৪৬টির, কমেছে ১৪৩টির ও অপরিবর্তিত ছিল ৪১টির।

টাকার অঙ্কে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে জেমিনি সি ফুড। ৩২ কোটি ৬৯ লাখ টাকায় কোম্পানিটির তিন লাখ ২৩ হাজার ৭৯৩টি শেয়ার লেনদেন হয়। গতকাল কোম্পানিটি ১২৫ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ ঘোষণা করায় শেয়ারটির দর ৩৮৬ টাকা ৮০ পয়সা বেড়েছে। এর পরের অবস্থানগুলোয় ছিল ব্র্যাক ব্যাংক, আইডিএলসি, লংকাবাংলা ফিন্যান্স, সিটি ব্যাংক, ইফাদ অটোস, জিপি, বিবিএস কেবল্স, সাফকো স্পিনিং ও আমরা নেট।

৬৫ শতাংশ বেড়ে দরবৃদ্ধির শীর্ষে উঠে আসে জেমিনি সি ফুড। গতকাল শেয়ারটির লেনদেনে কোনো সীমা আরোপিত ছিল না। ১০ শতাংশ বেড়েছে সাফকো স্পিনিংয়ের দর। এরপরে ৯ দশমিক ৬৫ শতাংশ বাড়ে এমারেল্ড অয়েলের। ওয়াটা কেমিক্যালের দর বেড়েছে আট দশমিক ৭৩ শতাংশ ও হাক্কানি পাল্পের দর বেড়েছে আট দশমিক ১৩ শতাংশ। অন্যদিকে ১১ দশমিক ৩৬ শতাংশ দর কমেছে জিল বাংলার। সুহƒদ ইন্ডাস্ট্রিজের দর ১০ শতাংশ, বেক্সিমকো ফার্মার দর সাত দশমিক ৩১ শতাংশ, লিবরা ইনফিউশনের দর ছয় দশমিক ৬১ শতাংশ ও শ্যামপুর সুগারের দর ছয় দশমিক ২২ শতাংশ কমেছে।

চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) গতকাল সিএসসিএক্স মূল্যসূচক ৯ দশমিক ১৫ পয়েন্ট বেড়ে ১১ হাজার ২৪৮ পয়েন্টে এবং সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ১৩  দশমিক ৯৫ পয়েন্ট বেড়ে ১৮ হাজার ৫৯৭ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল দিনজুড়ে ২৩৭টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়। এর মধ্যে ৯৮টির দর বেড়েছে, কমেছে ১১৩টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ২৬টির।

সিএসইতে এদিন ৪৪ কোটি ৯৮ লাখ ৫৪ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয় ৩৩ কোটি ২৭ লাখ সাত হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। সে হিসেবে লেনদেন বেড়েছে ১১ কোটি ৭১ লাখ টাকা। সিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে থাকা কোম্পানিগুলোর মধ্যে আইডিএলসির ১০ কোটি ৪৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।