শোবিজ

সম্মাননা পাচ্ছেন রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা

শোবিজ ডেস্ক

বরেণ্য সংগীতশিল্পী রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা। তিনি রবীন্দ্রসংগীতে বিশেষ অবদান রাখার জন্য ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর কালচারাল রিলেশনস (আইসিসিআর) অ্যালামনাই পুরস্কার পাচ্ছেন। আগামী ১৫ নভেম্বর সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় জাতীয় জাদুঘরের প্রধান মিলনায়তনে এ পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানের আয়োজন করতে যাচ্ছেু ঢাকাস্থ ইন্দিরা গান্ধী সাংস্কৃতিক কেন্দ্র। তার হাতে এ পুরস্কার তুলে দেবেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার রীভা গাঙ্গুলী দাশ। ইন্দিরা গান্ধী সাংস্কৃতিক কেন্দ্র সূত্রে জানা যায়, ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর কালচার রিলেশনের অ্যালামনাই পুরস্কার পাচ্ছেন বিশ্বভারতীর সাবেক এ শিক্ষার্থী। ওইদিন সন্ধ্যায় সংগীত পরিবেশন করবে তার গানের সংগঠন সুরের ধারা। এর আগে সাহিত্য ও সংস্কৃতির ক্ষেত্রে অবদানের জন্য স্বাধীনতা পুরস্কার, পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারের সর্বোচ্চ পুরস্কার বঙ্গভূষণ, সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের সংগীত সম্মান পুরস্কার, শ্রেষ্ঠ নারী রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী হিসেবে পরপর দুবার আনন্দ সংগীত পুরস্কার এবং ফিরোজা বেগম স্মৃতি স্বর্ণপদকসহ আরও অনেক সম্মাননা পেয়েছেন। তিনি গানের মাধ্যমে শ্রোতা-দর্শকের অকুণ্ঠ ভালোবাসা অর্জন করেছেন। দেশে-বিদেশে অসংখ্য প্রশংসা পেয়েছে তার সংগীত পরিবেশনা। তার সংগীত পরিবেশনা ও নির্ভুল উচ্চারণ শ্রোতাদের মুগ্ধ করে। বাংলাদেশ, ভারতসহ বিভিন্ন দেশে তার বহুসংখ্যক অ্যালবাম প্রকাশিত হয়েছে। তার প্রকাশিত উল্লেখযোগ্য অ্যালবামের মধ্যে রয়েছেÑস্বপ্নের আবেশে, সকাল-সাঁঝে, ভোরের আকাশে, লাগুক হাওয়া, আপন পানে চাহি, প্রাণ খোলা গান, এলাম নতুন দেশে, সুদূরের মিতা, মাটির ডাক, কালের সাথি, গেঁথেছিনু অঞ্জলি, মনের মাঝে যে গান বাজে, মোর দরদিয়া, সুরের আসনখানি, সুরের খেয়া প্রভৃতি। উল্লেখ্য, তিনি রংপুরে জš§গ্রহণ করেন। প্রথমে ছায়ানট, পরে বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন। সেখানে শান্তিদেব ঘোষ, কণিকা বন্দ্যোপাধ্যায়, নীলিমা সেন ও আশীষ বন্দ্যোপাধায়ের মতো শিক্ষকদের পেয়েছিলেন। দেশে ফিরে অর্থনীতিতে পড়াশোনা শুরু করেন এবং বুলবুল ললিতকলা একাডেমিতে ভর্তি হন। রবীন্দ্রসংগীত ছাড়াও ধ্রুপদী, টপ্পা ও কীর্তন গানের ওপর শিক্ষালাভ করেছেন। বর্তমানে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নাট্যকলা ও সংগীত বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক এবং নৃত্যকলা বিভাগের চেয়ারপার্সন হিসেবে কর্মরত আছেন।

সর্বশেষ..