প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সম্রাটের জামিন, দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা

নিজস্ব প্রতিবেদক: অবৈধ সম্পদের মামলায় ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের বহিষ্কৃত সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট জামিনে মুক্ত হয়েছেন। গতকাল ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার (কেরানীগঞ্জ) থেকে কারা কর্মকর্তা জামিনের কাগজ নিয়ে বিএসএমএমইউয়ের সিসিইউতে চিকিৎসাধীন থাকা সম্রাটের কাছে নিয়মকানুন মেনে তাকে জামিনে মুক্ত করা হয়। বিকাল সাড়ে ৪টায় তাকে জামিনে মুক্তি দেয়া হয়।

তার জামিনে তিনটি শর্ত দিয়েছেন আদালত। ওই শর্তগুলো হলো তিনি দেশের বাইরে যেতে পারবেন না, আদালতে পাসপোর্ট জমা দিতে হবে এবং নির্দিষ্ট সময় অন্তর অন্তর মেডিকেল রিপোর্ট জমা দিতে হবে।

সম্রাট অসুস্থ অবস্থায় কারা হেফাজতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) চিকিৎসাধীন। অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে তার পক্ষে জামিন আবেদন করা হয়।

গতকাল ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৬-এর বিচারক আল আসাদ মো. আসিফুজ্জামান ১০ হাজার টাকা বন্ডে জামিন মঞ্জুর করেন। ওই মামলায় সম্রাটের কারামুক্তিতে কোনো বাধা নেই বলে জানিয়েছেন তার আইনজীবী এহসানুল হক সমাজী।

একই দিনে মামলার চার্জ শুনানির দিন ধার্য ছিল। আসামিপক্ষের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে চার্জ শুনানির জন্য আগামী ৯ জুন দিন ধার্য করা হয়। 

২০১৯ সালের ১২ নভেম্বর দুদকের উপ-পরিচালক মো. জাহাঙ্গীর আলম এদিন দুই কোটি ৯৪ লাখ ৮০ হাজার ৮৭ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে সম্রাটের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, সম্রাট বিভিন্ন অবৈধ ব্যবসা ও অবৈধ কার্যক্রমের মাধ্যমে দুই কোটি ৯৪ লাখ ৮০ হাজার ৮৭ টাকা জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন করেছেন।

মামলাটি তদন্ত করে ২০২০ সালের ২৬ নভেম্বর সম্রাটের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেন দুদকের উপপরিচালক মো. জাহাঙ্গীর আলম। গত ২২ মার্চ তার বিরুদ্ধে চার্জশিট গ্রহণ করে আদেশ দেন ঢাকার মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ কেএম ইমরুল কায়েশ। একইসঙ্গে অভিযোগ গঠনের দিন ঠিক করে মামলাটি এই আদালতে বদলির আদেশ দেন।

২০১৯ সালের ৭ অক্টোবর সম্রাটকে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম থেকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব।