বাণিজ্য সংবাদ শিল্প-বাণিজ্য

সরকারের এ মেয়াদেই দেশে ফাইভজি চালু হবে: জয়

শেয়ার বিজ ডেস্ক: আওয়ামী লীগ সরকারের এ মেয়াদেই দেশে ফাইভজি প্রযুক্তি চালু হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়। রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে গতকাল ‘বাংলাদেশ ডিজিটাল ফেয়ার’ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। খবর: বিডিনিউজ।

জয় বলেন, ‘আমরা বিশ্বের অন্য সব দেশের মতো ফাইভজি শুরু করতে যাচ্ছি। আওয়ামী লীগের এ সরকারের শেষ সময়ে আমরা ফাইভজি চালু করব। আমরা আমাদের গত আমলে ফোরজি শুরু করেছিলাম, তার আগে থ্রিজি। ফাইভজি চালু করতে আমরা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।’

বিশ্বে এখন ফাইভজি নিয়ে সবচেয়ে বেশি আলোচনা হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা এখন ধরে নিয়েছি, আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে আমরা ফাইভজিতে উন্নীত হব। বাংলাদেশ আর পিছিয়ে থাকবে না। আমরাও ফাইভজি প্রযুক্তিতে ভূমিকা রাখতে শুরু করব।’ ‘চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের’ কথা মাথায় রেখে তথ্যপ্রযুক্তি খাতের উদ্যোক্তাদের ‘জ্ঞানভিত্তিক’ পণ্য ও সেবা বাড়ানোর পরামর্শ দেন সজীব ওয়াজেদ জয়।

তিনি বলেন, ‘সরকারি হিসাবে আমরা দেখছি, তথ্যপ্রযুক্তি খাত থেকে আমরা প্রতি বছর এক বিলিয়ন ডলারের বেশি রপ্তানি করছি। তবে অধিকাংশ তথ্যপ্রযুক্তি সেবাই যেহেতু ইন্টারনেটভিত্তিক, তাই রপ্তানির মাত্রা বের করা অসম্ভব। তবে আমরা আশা করব, আনঅফিশিয়ালি আরও এক বিলিয়ন বা আরও দুই বিলিয়ন ডলারও রপ্তানি হয়েছে।’

দেশে থ্রিজি ও ফোরজি অ্যানাবল স্মার্টফোন না থাকার কারণে ডেটা ব্যবহারের সমস্যা থাকার কথা তুলে ধরেন সজীব ওয়াজেদ জয়। তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর ওই বাস্তবতা বিবেচনায় নিয়ে সমাধান খোঁজার চেষ্টা করলাম। ভাবতে শুরু করলাম কীভাবে দেশকে আরও এগিয়ে নিয়ে যাওয়া যায়। আমরা এ বিষয়টাকে চাপিয়ে দিতে পারতাম না। আমরা ঠিক করলাম, আমরা দেশেই মোবাইল উৎপাদন করে তা কম দামে মানুষের মাঝে দেব, যাতে বাংলাদেশের সব মানুষ মোবাইল ফোন কিনতে পারে। এক সময় আমরা ৩০ মিলিয়ন মোবাইল প্রতি বছর আমদানি করতাম, সেখানে আজকে ২০ মিলিয়ন মোবাইল ফোন বাংলাদেশেই উৎপাদিত হচ্ছে।’

মোবাইল ফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান স্যামসাং এখন বাংলাদেশে তাদের মোবাইল ফোন সংযোজন করছে। স্যামসাংয়ের সে মোবাইল ফোনগুলো ফিলিপিন্সে উৎপাদিত মোবাইল ফোনের চেয়ে ‘ঢের ভালো’ বলে মনে করেন জয়।

তিনি বলেন, ‘ফোরজি চালু করার জন্য আমাদের সে মানের স্মার্টফোন দরকার ছিল। তবে বিদেশে থেকে আনা স্মার্টফোনগুলো ছিল বেশ দামি। ইন্ডাস্ট্রির সঙ্গে সহযোগিতার ভিত্তিতে কাজ করতে গিয়ে স্মার্টফোন উৎপাদনের সব বাধা দূর করেছি। আজকে শুধু বাংলাদেশিদের চাহিদা পূরণের জন্যই আমরা স্মার্টফোন উৎপাদন করছি না। আমরা দেশের বাইরেও স্মার্টফোন রপ্তানি করছি, এমনকি বিশ্বের অন্যতম ধনী দেশ আমেরিকাতেও।’

পঞ্চম প্রজন্মের মোবাইল ফোন প্রযুক্তিসহ (ফাইভজি) দেশের ডিজিটাল উন্নয়নের নানা দিক তুলে ধরতে প্রথমবারের মতো ডিজিটাল বাংলাদেশ মেলা আয়োজন করেছে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ। ‘বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলার প্রযুক্তির মহাসড়ক’ প্রতিপাদ্য নিয়ে আয়োজিত মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি একেএম রহমতুল্লাহ, ডাক মন্ত্রণালয়ের সচিব নূর উর রহমান, হুয়াওয়ে টেকনোলজিস (বাংলাদেশ) লিমিটেডের সিইও ঝাং ঝেং জুন উপস্থিত ছিলেন।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..