সরকার গঠন করছে এসপিডি

জার্মানিতে মেরকেল জোটের হোঁচট

শেয়ার বিজ ডেস্ক: জার্মানির সাধারণ নির্বাচনে হোঁচট খেল অ্যাঙ্গেলা মেরকেলের দল ক্রিশ্চিয়ান ডেমোক্র্যাটিক ইউনিয়ন (সিডিইউ)। খুব সামান্য ব্যবধানে সিডিইউকে হারিয়ে জয় লাভ করেছে মধ্য-বামপন্থি সোশ্যাল ডেমোক্র্যাটিক পার্টি (এসপিডি)। ফলে জার্মানিতে মেরকেলের দীর্ঘ ১৬ বছরের শাসনামলের অবসান হতে চলছে। তবে ক্ষমতা গ্রহণ করতে হলে এসপিডিকে জোট গঠন করতে হবে। এরই মধ্যে সরকার গঠনের জন্য জোট গড়ার প্রক্রিয়া শুরু করছে এসপিডির প্রধান ওলাফ শলৎস। খবর: রয়টার্স, ডয়েচে ভেলে।

রোববার জার্মানির ২০তম জাতীয় নির্বাচনে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। ১৬টি অঙ্গরাজ্যে একযোগে সকাল ৮টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। গতকাল সোমবার সকালে নির্বাচন কমিশন প্রাথমিক ফল প্রকাশ করে।

প্রাথমিক ফলাফলে, মধ্য-বামপন্থি দল এসপিডি মোট ভোটের ২৫ দশমিক সাত শতাংশ পেয়েছে। মেরকেলের রক্ষণশীল জোট সিডিইউ/সিএসইউ পেয়েছে ২৪ দশমিক এক শতাংশ ভোট। তৃতীয় অবস্থানে থাকা গ্রিন পার্টি ১৪ দশমিক আট শতাংশ এবং লিবারেল ফ্রি ডেমোক্র্যাটস (এফডিপি) পেয়েছে ১১ দশমিক পাঁচ শতাংশ ভোট।

গতকাল সরকার গঠনে চ্যান্সেলর পদপার্থী এসপিডির প্রধান ওলাফ শলৎস গ্রিন পার্টি এবং এফডিপির আনুষ্ঠানিক আলোচনা করেছেন। আশা করা হচ্ছে দু’একদিনের মধ্য জোট সরকার গঠন করা হবে।

এসপিডির প্রার্থী ওলাফ শলৎসকে পরবর্তী চ্যান্সেলর করার চেষ্টা করা হবে জানিয়ে দলটির সাধারণ সম্পাদক লার্স ক্লিংবেইল এআরডি টেলিভিশনকে বলেছেন, ‘এসপিডি প্রথম স্থানে রয়েছে। নির্বাচনে আমরা জিতেছি।’ 

৬৩ বছর বয়সী ওলাফ শলৎস জোট গঠনে সফল হলে যুদ্ধপরবর্তী সময়ে তিনি হতে পারেন এসপিডির চতুর্থ চ্যান্সেলর। অ্যাঙ্গেলা মেরকেলের মন্ত্রিসভায় অর্থমন্ত্রীর দায়িত্বে থাকা শলৎস একসময় হামবুর্গের মেয়র ছিলেন।

দুই রাজ্য নির্বাচনেও এসপিডির জয়: এদিকে সংসদ নির্বাচনের পাশাপাশি রোববার জার্মানির দুটি রাজ্যেও নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েচে। মেকলেনবুর্গ ওয়েস্টার্ন পমেরানিয়া ও বার্লিন রাজ্যেও এসপিডি দল সরকার গড়তে চলেছে। ফলে সংসদের উচ্চ রক্ষে দলের শক্তি অক্ষত রইলো।

২০২২ সালে জার্মানির চারটি রাজ্যে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সিডিইউ নেতা আরমিন লাশেটের নথব্রাইন ওয়েস্টফেলিয়াও তার মধ্যে রয়েছে। এসপিডি দলের জয়যাত্রা অব্যাহত থাকলে এ রাজ্যও সিডিইউ-র হাতছাড়া হতে পারে। উত্তরের শ্লেসভিক হলস্টাইন ও দক্ষিণের সারলান্ড রাজ্যেও ২০২২ সালে সিডিইউ পরাজয়ের মুখ দেখলে এসপিডি সংসদের উচ্চ কক্ষে নিজস্ব ক্ষমতা আরও জোরদার করতে পারবে। style=’Aٹ�� �

সর্বশেষ..