খবর

সরবরাহ কমায় বেড়েছে সবজির দাম

নিজস্ব প্রতিবেদক: শীতের বেশিরভাগ সবজির সরবরাহ কমায় রাজধানীতে বেড়ে গেছে সবজির দাম। প্রতিকেজি বেগুন খুচরো বাজারে বিক্রি হচ্ছে ৪০-৫০ টাকায়। যা আগের সপ্তাহে ছিল ৩০ থেকে ৩৫ টাকা। পাইকারি বাজারেও দাম বেড়েছে বেগুনের। খুচরো বাজারে প্রতি কেজি টমেটো ৩০ টাকা থেকে বেড়ে ৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। প্রতি কেজি করলা বিক্রি হচ্ছে ৫৫-৬০ টাকায়। প্রতি কেজি শিম বিক্রি হচ্ছে ৩৫- ৪০, গাজর ২৫-৩০, আলু ১৫-২০, ফুলকপি ২০-২৫ টাকা থেকে বেড়ে ২৫ থেকে ৩০, কাচকলা ২০-২৫ টাকা হালি বিক্রি হচ্ছে।

এছাড়া দেশি রসুন বিক্রি হচ্ছে ১৪০-১৫০ টাকা এবং আমদানি করা রসুন বিক্রি হচ্ছে ২০০ টাকা কেজি। আদা বিক্রি হচ্ছে ১০০-১২০ টাকায়। পাশাপাশি কাঁচামরিচ বিক্রি হচ্ছে ৬০-৮০ টাকায়।

সবজির দাম বৃদ্ধির কারণ জানতে চাইলে কারওয়ান বাজারের পাইকারি বিক্রেতা লিয়াকত আলী বলেন, শীতকালীন সবজির উৎপাদন ধীরে ধীরে কমছে। যে কারণে ঢাকায় আসছে কম। এজন্য দাম বাড়ছে।

জানা গেছে, গত সপ্তাহে তেলের দাম বৃদ্ধির পর এখন প্রতি কেজি খোলা সয়াবিন বিক্রি হচ্ছে ৯৫ টাকায়। আর এক লিটারের তীর ও রূপচাঁদা বিক্রি হচ্ছে ১০০-১০৫ টাকায়। পাঁচ লিটারের বোতল বিক্রি হচ্ছে ৫১০ -৫২০ টাকায়।

বিভিন্ন খুচরো বাজারের তথ্যানুযায়ী, সবজির দাম ঊর্ধ্বমুখী হলেও স্থিতিশীল রয়েছে মাছ ও মাংসের দাম। প্রতি কেজি গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৪৪০-৪৫০ টাকায়। খাসির ৭০০-৭৫০, ব্রয়লার মুরগি ১৪০-১৫০, দেশি মুরগি ৩৫০-৩৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া বড় আকারের রুই মাছ প্রতি কেজি ২৮০-৩০০ এবং ছোট আকারের ২০০-২২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। ৬০০-৬৫০ গ্রামের ইলিশ প্রতি হালি বিক্রি হচ্ছে ২০০০-২৪০০, কই মাছ ২২০-২৫০, টেংরা ৪৫০-৫৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

টিসিবির প্রতিদিনের পণ্যবাজারের হালনাগাদ তথ্য থেকে জানা গেছে, ঢাকার বিভিন্ন খুচরো বাজারে চিকন চাল বিক্রি হচ্ছে ৪৪-৫৬ টাকায়। নাজির/মিনিকেট প্রকারভেদে ৪৪-৪৮, হালকা মোটা চাল ৪০-৪৫, পাইজাম (সাধারণ) ৪০-৪২, পাইজাম (ভালো মানের) ৪২-৪৫ এবং মোটা চাল বিক্রি হচ্ছে ৩৬-৩৮ টাকায়। আর খোলা আটা বিক্রি হচ্ছে ২৬-৩৪ এবং প্যাকেটজাত বিক্রি হচ্ছে ৩২-৩৪ টাকায়।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..