দিনের খবর বাণিজ্য সংবাদ শিল্প-বাণিজ্য

সাতক্ষীরা অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার কার্যক্রম শুরু

সৈয়দ মহিউদ্দীন হাশেমী, সাতক্ষীরা: আধুনিক ও গতিশীল ব্যবসাবান্ধব বিনিয়োগ-সহায়ক প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলে দেশে ব্যবসার ব্যয় কমিয়ে সহজে ব্যবসা সূচকে দ্রুত উন্নতি নিশ্চিত করতে চায় সরকার। তারই ধারাবাহিকতায় ২০৩০ সালের মধ্যে দেশে ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলার কাজ শুরু করেছে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ (বেজা)। এসব অঞ্চলে শিল্পকারখানায় এক কোটি মানুষের কর্মসংস্থান ও বাড়তি ৪০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার রপ্তানির সুযোগ তৈরি হবে বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে। এরই মাধ্যমে ২০৪১ সাল নাগাদ ১২ হাজার মার্কিন ডলারের মাথাপিছু আয় নিয়ে উন্নত দেশের কাতারে শামিল হতে চাচ্ছে সরকার। এরই ধারাবাহিকতায় সাতক্ষীরায় অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ (বেজা) সাতক্ষীরা জেলায় স্থান নির্বাচন, সরকারি খাসজমি থাকলে তার বিবরণ, জমি অধিগ্রহণ ব্যয়সহ ৯ ধরনের তথ্য চেয়ে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক বরাবর চিঠি দিয়েছে।

চিঠি সূত্রে জানা যায়, অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে দেশে সুষম উন্নয়ন, পরিকল্পিত শিল্পায়ন আর কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে। এছাড়া অর্থনৈতিকভাবে পিছিয়ে থাকা জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নত হবে। রপ্তানি আয় বাড়ার মাধ্যমে বিশ্ব অর্থনীতিতেও শক্ত অবস্থান তৈরি হবে বাংলাদেশের। দেশীয় বিনিয়োগের পাশাপাশি বিদেশি বিনিয়োগকারীদের আকৃষ্ট করতে সরকারের প্রণোদনাও রয়েছে। দেয়া হচ্ছে কর অবকাশ, আয়ের ওপর কর মওকুফ, যন্ত্রপাতি আমদানিতে শুল্কমুক্ত সুবিধাসহ আরও অনেক কিছুই। এর মাধ্যমে বিনিয়োগের অনুকূল পরিবেশ তৈরি হবে।

দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের জেলা সাতক্ষীরা ইতিহাস-ঐতিহ্যসমৃদ্ধ সুন্দরবনের কোলঘেঁষা পর্যটনশিল্পের সম্ভাবনাময় কলকাতাকেন্দ্রিক স্থল ও নৌ-বাণিজ্যের সুবিধা-সংবলিত জাতীয় অর্থনীতির বিকাশে অপার সম্ভাবনাময় একটি জেলা, যা ব্রিটিশ আমল থেকেই সমৃদ্ধ। কলকাতা থেকে ভোমরা বন্দরের দূরত্ব ৫৫ কিলোমিটার। বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনকারী চিংড়ির ৭০ শতাংশই সাতক্ষীরায় উৎপাদিত হয়। সাতক্ষীরার বাগদা ও গলদা চিংড়ি বহির্বিশ্বে হোয়াইট গোল্ড নামে পরিচিত।

বাংলাদেশ থেকে সাতক্ষীরার আম সর্বপ্রথম বিদেশে রপ্তানি হয়। দেশের দ্বিতীয় দুগ্ধ উৎপাদনকারী জেলা সাতক্ষীরা। ব্রিটিশ আমল থেকে কৃষি বাণিজ্যে সমৃদ্ধ জেলা ছিল সাতক্ষীরা। সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ী ও অর্থনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, এ জেলায় অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা পেলে জাতীয় বাণিজ্যের সঙ্গে সঙ্গে বৈদেশিক বাণিজ্য সম্প্রসারণের গতি ত্বরান্বিত হবে।

উল্লেখ্য, সাতক্ষীরায় অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে দীর্ঘদিন ধরে দাবি জানিয়ে আসছেন স্থানীয়রা। তারই পরিপ্রেক্ষিতে গত ২৬ জানুয়ারি সদর আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি সাতক্ষীরায় অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার জন্য  বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ (বেজা) বরাবর আধাসরকারি পত্র দেন। ওই পত্রের পরিপ্রেক্ষিতে প্রাথমিক ধাপ হিসেবে বেজা ডিসি অফিস বরাবর ওই চিঠি পাঠায়।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..