সুশিক্ষা

সাদার্ন ইউনিভার্সিটির সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের বিদায় অনুষ্ঠান

????????????????????????????????????

সাদার্ন ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের গ্র্যাজুয়েট শিক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠান সম্প্রতি চট্টগ্রাম ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটের (আইইবি) অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রো-ভিসি ও সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ইঞ্জিনিয়ার আলী আশরাফের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. নুরুল মোস্তফা। আরও উপস্থিত ছিলেন উদ্যোক্তা ও প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক সরওয়ার জাহান, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের উপদেষ্টা অধ্যাপক ইঞ্জিনিয়ার মোজাম্মেল হক, বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. শরীফুজ্জামান, ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. ইসরাত জাহান, বিভিন্ন অনুষদের ডিন ও উপদেষ্টা, রেজিস্ট্রার, সাংবাদিক, আমন্ত্রিত অতিথি ও শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য বলেন, ইউনিভার্সিটির প্রধানতম কাজ শিক্ষা ও গবেষণা। তাই সাদার্ন গবেষণাধর্মী শিক্ষাকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে। শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের গবেষণা প্রবন্ধ দেশি-বিদেশি বিভিন্ন জার্নালে নিয়মিত প্রকাশ হচ্ছে। নিয়মিত আন্তর্জাতিক সম্মেলনের আয়োজন করছে সাদার্ন। আটটি বিভাগ ইতোমধ্যে বিশ্বব্যাংক ও ইউজিসির আইকিউএসি হেকেপ প্রজেক্টের পিয়ার রিভিউতে প্রশংসনীয় মার্কস অর্জন করেছে।

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, শুধু শিক্ষিত হলে হবে না, নৈতিকতাকেও ধারণ করতে হবে। সত্যিকারের মানুষ হতে না পারলে কোনো শিক্ষাই দেশ ও মানুষের কল্যাণে আসবে না।

অধ্যাপক সরওয়ার জাহান বলেন, আইইবির র‌্যাংকিংয়ে বিভাগটির অবস্থান ষষ্ঠ। সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ যোগ্যতাবলে আইইবির এ অ্যাক্রেডিটেশন পেয়েছে। উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে গুণগত মান অর্জন, অভিজ্ঞ শিক্ষকরা, আপডেটেড সিলেবাস, মানসম্মত ল্যাব, লাইব্রেরি ও শ্রেণিকক্ষ পরিচালনার স্বীকৃতি এ অর্জন।

অধ্যাপক ইঞ্জিনিয়ার মোজাম্মেল হক বলেন, জীবনে ইঞ্জিনিয়ার হতে পারলে কি না সেটা বড় কথা নয়, বরং ভালো মানুষ হয়েছো কি না সেটা চিন্তা করবে। আমাদের সমাজে এখন বেশি প্রয়োজন ভালো মানুষের। শিক্ষার্থী যখন সর্বোচ্চ আসনে অধিষ্ঠিত হয়, এর চেয়ে খুশি শিক্ষকদের জীবনে আর কিছু হতে পারে না।

পরে আমন্ত্রিত অতিথিরা সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রকাশনা ম্যাগাজিন ‘অ্যাংকর-২০১৯’ এর মোড়ক উšে§াচন করেন। বিভাগের ছাত্র মাহাদী হাসানের অকাল মৃত্যুতে শোক প্রকাশ ও মোনাজাতে মাগফিরাত কামনা করেন তারা। পরে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও প্রীতি ভোজের মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়।

সর্বশেষ..