কোম্পানি সংবাদ

সাপ্তাহিক দরপতনের শীর্ষে আরএসআরএম লিমিটেড

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গত সপ্তাহে সাপ্তাহিক দরপতনের তালিকার শীর্ষে উঠে আসে প্রকৌশল খাতের রতনপুর স্টিল রি-রোলিং মিলস লিমিটেড বা আরএসআরএম লিমিটেড। সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির দর কমেছে ১৪ দশমিক ৭৫ শতাংশ।  ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। আরএসআরএম কোম্পানিটির সপ্তাহজুড়ে লেনদেন হয় দুই কোটি ৫২ লাখ ৫৯ হাজার টাকা। গড়ে প্রতিদিন লেনদেন হয় ৬৩ লাখ ১৪ হাজার ৭৫০ টাকার। 

এদিকে সপ্তাহের শেষদিনে ডিএসইতে কোম্পানিটির শেয়ার দর সাত দশমিক ৮৩ শতাংশ বা দুই টাকা ২০ পয়সা কমে সর্বশেষ লেনদেন হয় ২৫ টাকা ৯০ পয়সায়। লেনদেন শেষে সর্বশেষ দর দাঁড়ায় ২৬ টাকায়। ওইদিন কোম্পানিটির তিন লাখ ২৯ হাজার ৭৫৬টি শেয়ার মোট ৪৫৪ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর ৮৬ লাখ ৫০ হাজার টাকা। দিনভর শেয়ারদর ২৫ টাকা ৮০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ২৭ টাকা ৫০ পয়সায় ওঠানামা করে। গত এক বছরে শেয়ারটির সর্বোচ্চ দর ছিল ৫৬ টাকা ৯০ পয়সা।  সর্বনি¤œ দর ২৫ টাকা ৮০ পয়সা। 

কোম্পানিটির চলতি হিসাববছরের প্রথম প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। জুলাই-সেপ্টেম্বর, ১৯ এই তিন মাসে শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে ৫৫ পয়সা, যা আগের বছর একই সময়ে ছিল এক টাকা ৭৫ পয়সা। ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ পর্যন্ত শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য দাঁড়ায় ৫০ টাকা শূন্য তিন পয়সা; যা ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ পর্যন্ত ছিল ৪৬ টাকা ৪৯ পয়সা।

৩০ জুন, ২০১৯ সালের জন্য কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদ ১২ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করে। এজন্য ২৯ ডিসেম্বর, ২০১৯ কোম্পানিটির বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হবে। রাজধানীর এয়ারপোর্ট রোডের শাহীন গল্ফ অ্যান্ড কান্ট্রি ক্লাবে বেলা ১১টায় অনুষ্ঠিত হবে। এজন্য রেকর্ড ডেট আগামী ৫ ডিসেম্বর। ওই বছর কোম্পানির শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে পাঁচ টাকা ৫৮ পয়সা। শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য দাঁড়িয়েছে ৪৯ টাকা ৪৮ পয়সা, যা আগের বছর একই সময়ে ছিল সাত টাকা পাঁচ পয়সা ও ৪৪ টাকা ৭৪ পয়সা।    

২০১৪ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়ে বর্তমানে ‘এ’ ক্যাটেগরিতে অবস্থান করছে কোম্পানিটি। ৫০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ১০১ কোটি ১৯ লাখ টাকা। রিজার্ভের পরিমাণ ২৭৬ কোটি ৫৫ লাখ ৯০ হাজার টাকা। কোম্পানিটির ১০ কোটি ১১ লাখ ৮৯ হাজার ৮৮টি শেয়ার রয়েছে। মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের কাছে ৪৭ দশমিক শূন্য তিন শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক ২৩ দশমিক শূন্য ৯ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে রয়েছে ২৯ দশমিক ৮৮ শতাংশ শেয়ার। সর্বশেষ বার্ষিক প্রতিবেদন ও বাজারদরের ভিত্তিতে শেয়ারের মূল্য-আয় অনুপাত তিন দশমিক ৬৯ এবং হালনাগাদ অনিরীক্ষিত ইপিএসের ভিত্তিতে চার দশমিক ৬৬।

দরপতনের তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে ছিল বসুন্ধরা পেপার মিলস লিমিটেড। গত সপ্তাহজুড়ে শেয়ারটির দর ১৩ দশমিক ৪০ শতাংশ কমেছে। গত সপ্তাহে কোম্পানিটির তিন কোটি ৬৯ লাখ ৮৯ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। গড়ে প্রতিদিন লেনদেন হয় ৯২ লাখ ৪৭ হাজার টাকার। দরপতনের তালিকায় তৃতীয় স্থানে উঠে আসে মিরাকল ইন্ডাস্ট্রিজ। সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির শেয়ারদর ১৩ দশমিক ১৬ শতাংশ কমেছে। সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির দুই কোটি ৪৯ লাখ ১৮ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। গড়ে প্রতিদিন লেনদেন হয় ৬২ লাখ ২৯ হাজার ৫০০ টাকার।

১৩ দশমিক ১৬ শতাংশ কমে চতুর্থ অবস্থানে উঠে আসে রিজেন্ট টেক্সটাইল মিলস। সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির ৩১ লাখ ৭৬ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। গড়ে প্রতিদিন লেনদেন হয় ৭৯ লাখ ৪০ হাজার টাকার শেয়ার।

এরপরে পঞ্চম অবস্থানে উঠে আসে শ্যামপুর সুগার মিলস। সপ্তাহজুড়ে ১৩ দশমিক শূন্য আট শতাংশ দর কমেছে। গড়ে প্রতিদিন লেনদেন হয় ১২ হাজার ৭৫০ টাকার। সপ্তাহজুড়ে লেনদেন হয় ৫১ হাজার টাকার। তালিকায় ষষ্ঠ অবস্থানে উঠে আসে প্রাইম টেক্সটাইল স্পিনিং মিলস। দর কমেছে ১২ দশমিক ৯৫ শতাংশ।

 সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির এক কোটি ৬৮ লাখ ১৫ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। গড়ে প্রতিদিন লেনদেন হয় ৪২ লাখ তিন হাজার টাকার। দরপতনে সপ্তম অবস্থানে ছিল বাংলাদেশ ওয়েল্ডিং ইলেকট্রোড। সপ্তাহজুড়ে শেয়ারটির দর ১২ দশমিক ৫৭ শতাংশ কমেছে। সপ্তাহজুড়ে লেনদেন হয় ১৮ লাখ ১৩ হাজার টাকার। গড়ে প্রতিদিন লেনদেন হয় চার লাখ ৫৩ হাজার টাকার। অষ্টম অবস্থানে থাকা শাইনপুকুর সিরামিকসের দর ১২ দশমিক ২৬ শতাংশ, ম্যাকসন্স স্পিনিংয়ের দর ১২ দশমিক ২৪ শতাংশ ও জেমিনি সি ফুডের দর ১১ দশমিক ৭৫ শতাংশ কমেছে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..