কোম্পানি সংবাদ পুঁজিবাজার

সাপ্তাহিক দরপতনের শীর্ষে বাংলাদেশ ওয়েল্ডিং ইলেকট্রোডস

নিজস্ব প্রতিবেদক: প্রকৌশল খাতের কোম্পানি বাংলাদেশ ওয়েল্ডিং ইলেকট্রোডস লিমিটেড ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গত সপ্তাহে দর কমার তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছে। আলোচিত সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারদর কমেছে ১৩ দশমিক ১৬ শতাংশ। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্রমতে কোম্পানিটির প্রতিদিন গড়ে এক কোটি ১৫ লাখ ১৫ হাজার ৬০০ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। আর পুরো সপ্তাহে লেনদেন হয়েছে পাঁচ কোটি ৭৫ লাখ ৭৮ হাজার টাকার শেয়ার।

এদিকে সর্বশেষ কার্যদিবসে কোম্পানিটির শেয়ারদর ১০ শতাংশ বা দুই টাকা ১০ পয়সা বেড়ে প্রতিটি সর্বশেষ ২৩ টাকা ১০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ২৩ টাকা ১০ পয়সা। ওইদিন কোম্পানিটির ২২ লাখ ৫০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দিনজুড়ে ৯৭ হাজার ৫৭৯টি শেয়ার মোট ১২১ বার হাতবদল হয়। ওইদিন শেয়ারদর সর্বনিন্ম ২১ টাকা ৫০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ২৩ টাকা ১০ পয়সায় হাতবদল হয়। গত এক বছরে কোম্পানির শেয়ারদর ১২ টাকা ৫০ পয়সা থেকে ৩২ টাকা ২০ পয়সায় ওঠানামা করে।

দর কমার তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল ‘এ’ ক্যাটেগরির কোম্পানি মুন্নু সিরামিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড। আলোচিত সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারদর কমেছে ১১ দশমিক ৪৯ শতাংশ। কোম্পানিটির প্রতিদিন গড়ে ১০ কোটি ১৪ লাখ ২১ হাজার ২০০ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। আর পুরো সপ্তাহে লেনদেন হয়েছে ৫০ কোটি ৭১ লাখ ছয় হাজার টাকার শেয়ার।

তৃতীয় স্থানে অবস্থানে ছিল ‘বি’ ক্যাটেগরির কোম্পানি হাক্কানী পাল্প অ্যান্ড পেপার মিলস লিমিটেড। আলোচিত সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারদর কমেছে ১০ দশমিক ৯১ শতাংশ। কোম্পানিটির প্রতিদিন গড়ে তিন কোটি ৮১ লাখ ৪২ হাজার ৮০০ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। আর পুরো সপ্তাহে লেনদেন হয়েছে ১৯ কোটি সাত লাখ ১৪ হাজার টাকার শেয়ার।

সাপ্তাহিক দরপতনের শীর্ষ চতুর্থ ও পঞ্চম অবস্থানে ছিল যথাক্রমে  ‘জেড’ ক্যাটেগরির উসমানিয়া গ্লাস শিট ফ্যাক্টরি লিমিটেড এবং ‘এ’ ক্যাটেগরির আনোয়ার গ্যালভানাইজিং লিমিটেড।

উসমানিয়া গ্লাস শিট ফ্যাক্টরি লিমিটেডের শেয়ারদর কমেছে ১০ দশমিক ৬০ শতাংশ। কোম্পানিটির প্রতিদিন গড়ে ১৫ লাখ ১৯ হাজার ৮০০ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। আর পুরো সপ্তাহে লেনদেন হয়েছে ৭৫ লাখ ৯৯ হাজার টাকার শেয়ার।

আর আনোয়ার গ্যালভানাইজিং লিমিটেডের শেয়ারদর কমেছে ১০ দশমিক ৩৯ শতাংশ। কোম্পানিটির প্রতিদিন গড়ে এক কোটি ৮২ লাখ ৮৯ হাজার ৪০০ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। আর পুরো সপ্তাহে লেনদেন হয়েছে ৯ কোটি ১৪ লাখ ৪৭ হাজার টাকার শেয়ার।

এরপরের অবস্থানে থাকা লিগ্যাসি ফুটওয়্যার লিমিটেডের শেয়ারদর কমেছে ৯ দশমিক ৬১ শতাংশ। কোম্পানিটির প্রতিদিন গড়ে এক কোটি ৩৫ লাখ ৩৫ হাজার ২০০ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। আর পুরো সপ্তাহে লেনদেন হয়েছে ছয় কোটি ৭৬ লাখ ৭৬ হাজার টাকার শেয়ার।

সপ্তম অবস্থানে ছিল মিথুন নিটিং অ্যান্ড ডায়িং লিমিটেড। আলোচিত সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারদর কমেছে ৯ দশমিক ৪৯ শতাংশ। কোম্পানিটির প্রতিদিন গড়ে ছয় লাখ ৪৭ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। আর পুরো সপ্তাহে লেনদেন হয়েছে ৩২ লাখ ৩৫ হাজার টাকার শেয়ার।

এরপরের অবস্থানে থাকা কোম্পানিগুলো হলোÑযথাক্রমে স্টাইলক্রাফট, অ্যাকটিভ ফাইন কেমিক্যালস এবং শমরিতা হসপিটাল। কোম্পানিগুলোর শেয়ারদর কমেছে যথাক্রমে আট দশমিক ৫৬ শতাংশ, আট দশমিক ৪৩ শতাংশ এবং আট দশমিক ২৫ শতাংশ।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..