প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সাপ্তাহিক লেনদেনের ৬ দশমিক ২৯ শতাংশ বেক্সিমকোর

নিজস্ব প্রতিবেদক: সাপ্তাহিক বাজার বিশ্লেষণে দেখা গেছে, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গত সপ্তাহে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে বিবিধ খাতের কোম্পানি বাংলাদেশ এক্সপোর্ট ইমপোর্ট কোম্পানি লিমিটেড (বেক্সিমকো)। সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির এক কোটি ৪৯ লাখ ৩৪ হাজার ৮২৮টি শেয়ার ২০৩ কোটি ৫৩ লাখ ৪৩ হাজার টাকায় লেনদেন হয়, যা মোট লেনদেনের ৬ দশমিক ২৯ শতাংশ। সপ্তাহজুড়ে শেয়ারটির দর ৮ দশমিক ০১ শতাংশ কমেছে।

এদিকে সর্বশেষ কার্যদিবসে ডিএসইতে কোম্পানিটির শেয়ারদর ২ দশমিক ০৮ শতাংশ বা ২ টাকা ৮০ পয়সা কমে প্রতিটি সর্বশেষ ১৩২ টাকা ১০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দরও ছিল একই। দিনভর শেয়ারদর সর্বনি¤œ ১৩০ টাকা ২০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ১৩৬ টাকা ৮০ পয়সায় ওঠানামা করে। এক বছরের মধ্যে শেয়ারদর ৮৪ টাকা ৭০ পয়সা থেকে ১৮৭ টাকা ৯০ পয়সায় ওঠানামা করে।

এদিকে ২০২১ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাববছরের জন্য কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ সাধারণ বিনিয়োগকারীদের জন্য ৩৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে। আলোচিত সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে ৭ টাকা ৫৩ পয়সা। আর ৩০ জুন ২০২১ কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য দাঁড়িয়েছে ৭৮ টাকা ২৮ পয়সা। আর আলোচিত সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি নগদ অর্থপ্রবাহ হয়েছে ২ টাকা ৩ পয়সা লোকসান।

এদিকে চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২১) কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে চার টাকা ৫৬ পয়সা, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল ১ টাকা ৭৮ পয়সা। অর্থাৎ, ইপিএস বেড়েছে ২ টাকা ৭৮ পয়সা। আর প্রথম দুই প্রান্তিকে (জুলাই-ডিসেম্বর, ২০২১) ইপিএস হয়েছে ৮ টাকা ৬৭ পয়সা। ২০২১ সালের ৩১ ডিসেম্বর শেয়ারপ্রতি নেট সম্পদমূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৮৩ টাকা ৭২ পয়সা। আর প্রথম দুই প্রান্তিকে কোম্পানির শেয়ারপ্রতি নগদ অর্থপ্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১৪ টাকা ৬২ পয়সা।

‘এ’ ক্যাটেগরির কোম্পানিটি ১৯৮৯ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। এক হাজার কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ৮৭৬ কোটি ৩১ লাখ ৯০ হাজার টাকা। রিজার্ভের পরিমাণ ৫ হাজার ৮১৫ কোটি ৮৪ লাখ টাকা। কোম্পানিটির ৮৭ কোটি ৬৩ লাখ ১৮ হাজার ৮৭৯ শেয়ার রয়েছে।

আর লেনদেনের এ তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে উঠে আসে শাইনপুকুর সিরামিকস লিমিটেড। সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির ৩ কোটি ৫৯ লাখ ৩৪ হাজার ৫৪৮টি শেয়ার ১৫৯ কোটি ৪৯ লাখ ৩১ হাজার টাকায় লেনদেন হয়, যা মোট লেনদেনের ৪ দশমিক ৯৩ শতাংশ। সপ্তাহজুড়ে শেয়ারটির দর ৫ দশমিক ৮১ শতাংশ বেড়েছে।