প্রথম পাতা

সিটি ইউনিভার্সিটিকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) নির্দেশনা না মেনে আইন বিভাগে (এলএলবি) ৫০ জনের বেশি শিক্ষার্থী ভর্তি করায় সিটি ইউনিভার্সিটিকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা করেছেন আদালত। সিটি ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক শাহ-ই-আলম আদালতের তলবে গতকাল সুপ্রিম কোর্টে হাজির হলে তার উপস্থিতিতে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন চার বিচারকের আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালত বলেছে, ‘জরিমানার ওই অর্থ বাংলাদেশ বার কাউন্সিলে জমা দিতে হবে। সে রসিদ দেখালে সিটি ইউনিভার্সিটির ২৫ শিক্ষার্থী আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি বার কাউন্সিল পরীক্ষায় অংশ নেওয়া সুযোগ দেওয়া হবে।

আদালতে বার কাউন্সিলের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী এ ওয়াই মশিউজ্জামান। আর শিক্ষার্থীদের পক্ষে ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এএম আমিন উদ্দিন।

মশিউজ্জামান বলেন, জরিমানার অর্থ কোনোভাবেই শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে নেওয়া যাবে না, বিশ্ববিদ্যালয়ের তহবিল থেকেই তা পরিশোধ করতে হবে বলে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

২০১৪ সালের ২৩ এপ্রিল ইউজিসির জারি করা এক নির্দেশনায় বলা হয়, কোনো বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আইন বিভাগে প্রতি সেমিস্টারে ৫০ জনের বেশি শিক্ষার্থী ভর্তি নিতে পারবে না। ইউজিসির নির্দেশনার বিষয়টি জানিয়ে ২০১৯ সালের ১ অক্টোবর বার কাউন্সিল এক নোটিসে জানায়, কোনো বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতি সেমিস্টারে ৫০ জনের বেশি শিক্ষার্থী ভর্তি নিলে নিবন্ধন দেওয়া হবে না।

পরবর্তীতে ১১টি বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই হাজার শিক্ষার্থী বিভিন্ন সময়ে বার কাউন্সিলের সিদ্ধান্ত চ্যালেঞ্জ করে রিট আবেদন করেন। সেসব আবেদনে হাইকোর্ট বিভিন্ন সময়ে রুল জারি করে এবং তাদের পরীক্ষা দেওয়ার অনুমতি দেয়।

সিটি ইউনিভার্সিটির ২৫ শিক্ষার্থীর করা রিটে গত বছর ২৪ অক্টোবর হাইকোর্ট আইনজীবী হিসেবে তাদের তালিকাভুক্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য নিবন্ধন ও ফরম পূরণের সুযোগ দিতে বার কাউন্সিলকে নির্দেশ দেয়।

এর বিরুদ্ধে বার কাউন্সিল আপিল বিভাগে আবেদন করলে গত ১৮ ফেব্রুয়ারি আদালত সিটি ইউনিভার্সিটির উপাচার্যকে তলব করে এবং উপস্থিত হয়ে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলে। এরই ধারাবাহিকতায় উপাচার্য অধ্যাপক  শাহ-ই-আলম আদালতে হাজির হলে শুনানি শেষে এ জরিমানার আদেশ দেন।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন
ট্যাগ »

সর্বশেষ..