বিশ্ব সংবাদ

সিনোভ্যাকের টিকাদান শুরু ব্রাজিলে

শেয়ার বিজ ডেস্ক: চীনের সিনোভ্যাক বায়োটেকের প্রস্তুতকৃত কভিড-১৯ টিকা প্রয়োগ শুরু করেছে ব্রাজিল। গত সোমবার থেকে দক্ষিণ আমেরিকার দেশটিতে এ টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয়েছে। খবর : রয়টার্স।

ব্রাজিলের নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষ রোববার সিনোভ্যাক ও অ্যাস্ট্রাজেনেকার দুটো টিকার জরুরি ব্যবহারে অনুমতি দেয়। তবে ভারতীয় বিশেষজ্ঞদের অনুমোদনের ঘাটতির কারণে অ্যাস্ট্রাজেনেকার দুই লাখ ডোজ টিকা শিগগিরই ব্রাজিলে পৌঁছানোর পরিকল্পনা ঝুলে গেছে।

উপকরণের ঘাটতির কারণে ব্রাজিলের সাও পাওলো রাজ্যের বুটানটান ইন্সটিটিউট ও কেন্দ্রীয় অর্থায়নে পরিচালিত ফায়োক্রুজ বায়োমেডিকেল সেন্টার করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিনও বানাতে পারছে না। যে কারণে ব্রাজিলে টিকাদান কর্মসূচি শুরু হলেও তার গতি শপথ হয়ে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

বেশ কয়েকটি টিকার জরুরি ব্যবহারে অনুমোদন ও প্রাপ্তি নিয়ে কয়েক সপ্তাহের টানাপড়েন শেষে সোমবার থেকে টিকাদান কর্মসূচি শুরু হওয়ায় ব্রাজিলজুড়ে অসংখ্য মানুষের উচ্ছ্বাস দেখা গেছে। সাও পাওলোর ক্লিনিকগুলোতে ছিল উপচেপড়া ভিড়।

ব্রাজিলের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সোমবার বিকাল ৫টা থেকে সব রাজ্যে টিকাদান শুরুর ‘সবুজ সংকেত’ দিলেও অনেকগুলো রাজ্য আগেই এ কর্মসূচি শুরু করে।

অনুমোদন মিললেও সোমবার সন্ধ্যা পর্যন্ত ব্রাজিলের ২৬টি রাজ্যের বেশিরভাগের কাছেই টিকার চালান না পৌঁছানোয় বয়স্ক ও সম্মুখসারির স্বাস্থ্যকর্মীদের করোনাভাইরাসে প্রতিষেধক দিতে দেরি হচ্ছে। অন্যদিকে রোববার আনভিসার অনুমোদন মেলার কয়েক মিনিট পরই সাও পাওলোতে ৫৪ বছর বয়সী নার্স মনিকা কালজানাসকে টিকা দেয়া হয়। মনিকাই হলেন ব্রাজিলে গণ টিকাদান কর্মসূচিতে করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক পাওয়া প্রথম নাগরিক।

আনুষ্ঠানিকভাবে টিকাদান কর্মসূচি শুরুর আগে সাও পাওলোতে টিকা দেয়ার ঘটনায় রাজ্যটির গভর্নর জোয়াও দোরিয়ার ওপর চটেছেন ব্রাজিলের স্বাস্থ্যমন্ত্রী এদুয়ার্দো পাজুয়েলো।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..