সারা বাংলা

সিরাজগঞ্জে আবার শিশু চুরি

প্রতিনিধি, সিরাজগঞ্জ: এবার সিরাজগঞ্জের হাটিকুমরুল সাখাওয়াত এইচ মেমোরিয়াল হাসপাতাল থেকে নবজাতক চুরির অভিযোগ উঠেছে।

গতকাল শনিবার বিকাল সোয়া ৪টার দিকে এ ঘটনা ঘটে বলে নিশ্চিত করেন সালঙ্গা থানার ওসি আব্দুল কাদের জিলানী। তিনি বলেন, প্রসব বেদনা নিয়ে সকাল ৮টার দিকে তাড়াশ উপজেলার নওগাঁ গ্রামের সাবিতা খাতুন হাসপাতালে ভর্তি হন। বেলা ১১টার দিকে সি সেকশনে ছেলে সন্তানের জন্ম দেন তিনি। নবজাতকের নাম রাখা হয় সামিউল।

আব্দুল মাজেদ ও সাবিতা খাতুন দম্পতির প্রথম সন্তান সামিউল। সিজারের পর শিশু ওয়ার্ডে রাখা হয় মা ও নবজাতককে। সিসিটিভির ফুটেজে দেখা যায় বিকালে পরিবারের সদস্যদের অনুপস্থিতিতে ওই শিশুকে নিয়ে সটকে পড়েন এক নারী। ছবি দেখে তাকে শনাক্তের চেষ্টা চলছে।

চার দিন আগে সিরাজগঞ্জের ২৫০ শয্যার বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতাল থেকে ২৪ দিনের নবজাতক মাহিম চুরি হয়। ওই শিশুকে শনিবার সন্ধ্যায় এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত উদ্ধার করা যায়নি।

সদর থানার ওসি বাহাউদ্দিন ফারুকী বলেন, আমরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। চারটি টিম মাঠে রয়েছে। শিশুটির সন্ধানে প্রযুক্তির সহায়তা নেয়া হচ্ছে। কাজ করছেন র‌্যাব ও গোয়েন্দা পুলিশের সদস্যরাও।

চুরি যাওয়া নবজাতকটি উল্লাপাড়া উপজেলার ভাদালিয়া গ্রামের চয়ন ইসলামের ছেলে। সন্তান নিখোঁজের পর শিশুর মা মঞ্জুয়ারা বেগম বলেন, ঠাণ্ডাজনিত কারণে ছয় দিন আগে হাসপাতালে ভর্তি হই। কাপড় ধোয়ার জন্য বাইরে যান। ফিরে এসে দেখেন তার ছেলে মাহিম নেই। অনেক খোঁজাখুঁজির পরও তাকে পাওয়া যায়নি।

হাসপাতালের ক্লোজড সার্কিট টেলিভিশন (সিসিটিভি) ক্যামেরার ফুটেজে দেখা গেছে, বোরকা পরা দুই নারী শিশুটিকে কোলে নিয়ে হাসপাতাল থেকে বের হয়ে যাচ্ছে। কিন্তু হিজাবে মুখ ঢাকা থাকায় ও সিসিটিভির ফুটেজ স্পষ্ট না হওয়ায় তাদের চেহারা বোঝা যায়নি।

ঘটনার দিন রাতে শিশুটির বাবা চয়ন ইসলাম পাঁচ অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তির বিরুদ্ধে সদর থানায় মামলা করেন।

ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। পাঁচ কর্মদিবসের মধ্যে কমিটিকে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

এসব ঘটনার সঙ্গে কোনো সিন্ডিকেট জড়িত কি না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..