সারা বাংলা

সিরাজগঞ্জে ‘পশুর হাট’ অ্যাপে গরু বিক্রির পরিকল্পনা

প্রতিনিধি, সিরাজগঞ্জ: সিরাজগঞ্জে ‘পশুর হাট’ অ্যাপ দিয়ে ঈদুল আজহায় ৩০ হাজার গরু বিক্রির পরিকল্পনা করেছে জেলা প্রশাসন। এ লক্ষ্যে এরই মধ্যে কাজ শুরু করেছে জেলা প্রশাসন। কভিড-১৯ সংক্রমণের ঝুঁকি এড়ানোর লক্ষ্যে গত বছর সিরাজগঞ্জে অনলাইনে কোরবানির পশুর হাটের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করে জেলা প্রশাসন।

ক্রেতারা ঘরে বসে অনলাইনে এ অ্যাপ ও ওয়েবসাইট ব্যবহার করে পশু কিনতে পারবেন। অ্যাপে খামারির নাম, পশুর ছবি, আকার, রং, ওজন, উচ্চতা, দাঁত, জাত, দাম, বয়স ও মোবাইল ফোন নম্বর দেয়া থাকবে।

মূলত স্বাস্থ্যবিধি না মেনে পশুর হাটে ক্রেতাদের ভিড় নিরুৎসাহিত করতে এ ডিজিটাল হাটের আয়োজন।

পশু কেনাবেচার সব তথ্য, নির্দেশিকা ও সহায়তা এ অ্যাপে পাবে সব শ্রেণি-পেশার মানুষ। প্রযুক্তির সঙ্গে সম্পৃক্ত করার মাধ্যমে স্মার্ট খামারি তৈরিতে ‘পশুর হাট’ অ্যাপটি যুগান্তকারী ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবে।

জেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে পশু পালন কর্মকর্তাদের সহায়তায় প্রান্তিক খামারিদের কাছ থেকে পশুর বিস্তারিত তথ্য সরাসরি দেয়া হবে এ অ্যাপে। ফলে হাটে না গিয়েও নিজ নিজ এলাকার খামারিরা পশুর ছবি, ভিডিও, উচ্চতা, ওজন, বয়সসহ বিভিন্ন তথ্য দিয়ে অনলাইনে পশু বিক্রি করার সুযোগ পাবেন।

জানা গেছে, পশু বিক্রির ক্ষেত্রে দরকারি সব সুবিধাকে এ অ্যাপের মধ্যে যুক্ত করা হয়েছে।

এ অ্যাপের উদ্ভাবক সিরাজগঞ্জের সহকারী কমিশনার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট (রেকর্ড রুম, জেলা-ই সেবা কেন্দ্র, আইসিটি শাখা) প্রকৌশলী মাসুদুর রহমান।

তিনি বলেন, ‘পশুর হাট’ অ্যাপটি শুধু কোরবানির ঈদের জন্য করা হয়নি। অ্যাপটি এমনভাবে ডেভেলপ করা হয়েছে যাতে এটি সারা বছর আমাদের দেশের প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তাদের তত্ত্বাবধানে প্রান্তিক পর্যায়ের খামারিদের (হাঁস, মুরগি, গরু-ছাগল) উপকারে আসে। গত বছরের চেয়ে চলতি বছর অ্যাপটি আরও আধুনিক করা হচ্ছে।

ঈদুল আজহা সামনে রেখে পশু পরিচর্যায় ব্যস্ত সময় পার করছেন সিরাজগঞ্জের খামারিরা। তবে কভিড-১৯ সংক্রমণের আশঙ্কায় রয়েছেন সিরাজগঞ্জে খামারিরা। অনলাইনে পশু কেনাবেচা হলে সংক্রমণ কমার পাশাপাশি খামারিরা ন্যায্য দাম পাবেন বলে আশাবাদী সংশ্লিষ্টরা। চাহিদার চেয়ে বেশি গরু রয়েছে খামারগুলোয়। হাটে যাবেন না যারা, তাদের জন্য অনলাইনে পশু কেনার ব্যবস্থা করেছে জেলা প্রশাসন। বিভিন্ন ধরন ও ওজনের গরুর ছবি থাকবে অনলাইনে। পছন্দমতো সহজে গরু কিনতে পারবেন ক্রেতারা।

জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা আখতারুজ্জামান ভূইয়া বলেন, গরু কিনতে এবার হাটে যাওয়ার দরকার নেই। ঘরে বসে মানুষ এবার অনলাইনে কোরবানির পশু কিনতে পারবেন। প্রাণিসম্পদ ও জেলা প্রশাসন এ লক্ষ্যে কাজ করছে। এতে পাইকার ও দালালরা ক্রেতাদের ঠকাতে পারবে না, আর মহামারি থেকে রক্ষা পাবে মানুষ।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..