সারা বাংলা

সিরাজগঞ্জে পানিবন্দি সাড়ে পাঁচ লাখ মানুষ

প্রতিনিধি, সিরাজগঞ্জ: সিরাজগঞ্জে যমুনা নদীর পানি কমায় জেলায় বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে। তবে যমুনা নদীর পানি সিরাজগঞ্জ পয়েন্টে এখনও বিপদসীমার ওপর রয়েছে। গতকাল বুধবার সকাল ৬টায় সিরাজগঞ্জ শহর রক্ষা বাঁধ হার্ড পয়েন্ট এলাকায় বিপদসীমার ২০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। জেলার কাজীপুর, সদর, বেলকুচি, শাহজাদপুর, চৌহালী, উল্লাপাড়া ও তাড়াশ উপজেলার পাঁচ লাখ ৩৮ হাজার মানুষ পানিবন্দি রয়েছেন।

বন্যায় এ পর্যন্ত তিন শিশুসহ চারজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। বন্যার পানি সম্পূর্ণ সরে যেতে আরও সময় লাগবে বলে জানিয়েছেন সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ড। এদিকে জেলায় এক মাসেরও বেশি সময় ধরে বন্যার পানি থাকায় দুর্গত এলাকার মানুষের খাদ্য সংকটসহ নানা দুর্ভোগ রয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন এলাকায় সড়কে যোগাযোগ সম্পূর্ণ বন্ধ রয়েছে।

জানা গেছে, জেলার বিস্তীর্ণ এলাকার ফসলের মাঠ, গো চারণ ভূমি, বসতবাড়ী, গ্রামীণ হাটবাজার পানিতে নিমজ্জিত রয়েছে। পানি কমার সঙ্গে নদীভাঙন দেখা দিয়েছে। ভাঙনরোধে কাজ করছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের মাঝে সহায়তার হাত বাড়িয়েছেন জনপ্রতিনিধি, জেলা প্রশাসন ও বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। এদিকে পানি কমার সঙ্গে সঙ্গে দুর্গতদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ছে পানিবাহিত বিভিন্ন রোগ। বাড়িঘর থেকে পানি নেমে না যাওয়ায় অনেকেই শহর রক্ষা উঁচু বাঁধ ও বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আশ্রয় নিয়ে আছে। পানিবন্দি লোকের সংখ্যার হিসেবে ত্রাণের পরিমাণ কম হয়েছে বলে বানভাসিদের অভিযোগ।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..