স্পোর্টস

সিরিজ জয়ের স্বপ্ন দেখছেন মাহমুদউল্লাহ

ক্রীড়া প্রতিবেদক

অনেকটা তারুণ্যনির্ভর দল নিয়েই ভারতে গেছে বাংলাদেশ। তাই প্রত্যাশার পারদটা বেশি ছিল না। কিন্তু মুশফিকুর রহিমের অসাধারণ ব্যাটিং নৈপুণ্যে প্রথম ম্যাচ জিতে সেটা বেড়েছে টাইগারদের। আজ তো রাজকোটের সৌরাষ্ট্র ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি জিতে সিরিজ নিশ্চিতের স্বপ্ন দেখছেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। 

প্রথম ম্যাচে ৭ উইকেটে জিতে খোশ মেজাজে রয়েছে বাংলাদেশ। গতকাল অনুশীলনেও সেই চিত্রই ফুটে ওঠে টাইগারদের শরীরী ভাষায়। তবে বসে নেই ভারত। আজই জিতে সমতায় ফিরতে চায় রোহিত শর্মার দল। গত পরশু এমন হুঙ্কারই দিয়েছিলেন স্বাগতিক স্পিনার চাহেল। তবে সফরকারীরা ব্যাপারটি নিয়ে সতর্ক। গতকাল অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ জানিয়ে দেন, সিরিজ জেতার সুযোগ কাজে লাগাতে অধীর হয়ে আছে বাংলাদেশ।

দিল্লিতে হারের পর ভারত কতটা তেতে আছে অনুভব করছেন মাহমুদউল্লাহ, ‘আমরা হয়তো কিছুটা হলেও আঁচ করতে পারছি, তারা দৃঢ়ভাবে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করবে। আরও বেশি আগ্রাসী ক্রিকেট খেলার চেষ্টা করবে। ওরা মরিয়া হয়ে আছে, আমরাও কিন্তু মরিয়া হয়ে আছি। এটা কিন্তু অনেক বড় একটা সুযোগ আমাদের জন্য, আমাদের ক্রিকেটের জন্য। আমরা প্রথমবারের মতো ভারতে একটা দ্বিপক্ষীয় সিরিজ খেলতে এসেছি। যদি আমরা ভালো খেলে সিরিজটা জিততে পারি আমাদের জন্য অনেক বড় একটা অর্জন হবে।’

জিততে আজ তিন বিভাগেই ভালো করতে হবে বাংলাদেশকে। ব্যাপারটি বুঝতে পারছেন মাহমুদউল্লাহ। এরই মধ্যে এ তারকা সতীর্থদের কানেও মন্ত্র ঢুকিয়েছেন, ‘টি-টোয়েন্টিতে আমার মনে হয়, আপনি যদি উইকেট বুঝতে পারেন, সেই অনুযায়ী বোলিংয়ের লেংথ ঠিক করতে পারেন এবং ফিল্ড প্লেসিং করতে পারেন, তাহলে আপনার জেতার ভালো সুযোগ থাকবে। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটই এমন, এখানে সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। একটি পরিকল্পনা নিয়ে আপনি এগোলেন; এরপর হয়তো সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করতে হলোÑএ ধরনের বিষয় মানিয়ে নেওয়ার সামর্থ্য থাকা বেশি প্রয়োজন।’

আজকের ম্যাচে খারাপ খেললেও সমালোচনার তীর ধেয়ে আসবে না। মন খুলে খেলতে নামার ভাবনাও দিচ্ছে টাইগারদের স্বস্তি। অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহও ব্যাপারটি গতকাল স্পষ্টই করেছেন, ‘অবশ্যই এটা দুর্দান্ত সুযোগ (সিরিজ জেতার)। যখন আপনি প্রথম ম্যাচে জিতে এগিয়ে থাকবেন, সব সময়ই ভালো সুযোগ। ছেলেরাও উদ্যমী হয়ে আছে ভালো কিছু করতে। আশা করি, আজ ভালো কিছু করে দেখাতে পারব।’

আগে কি হয়েছে, না হয়েছে; সেসব মোটেও ভাবছেন না মাহমুদউল্লাহ। তার চিন্তায় শুধুই আজকের ম্যাচ, ‘শুরু থেকে আমাদের ওপর কোনো চাপ ছিল না। কারণ এখানে আমাদের হারানোর কিছু ছিল না। পাওয়ার ছিল অনেক। আজও তেমন আমাদের পাওয়ার থাকবে অনেক কিছু। আমরা আগ্রাসী ও ইতিবাচক ক্রিকেট খেলব।’

রাজকোটের সৌরাষ্ট্র ক্রিকেট স্টেডিয়ামে এখন পর্যন্ত আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি হয়েছে দুটি। দুটিতেই দেখা গেছে রানবন্যা। আজও এখানকার উইকেট হবে ব্যাটিং সহায়ক। ব্যাপারটি তাই মাথায় রাখছে বাংলাদেশ। তারপরও এখন নিশ্চিত নয় একাদশ। আজ রাজকোটের উইকেট দেখেই সিদ্ধান্ত নেবেন তারা।

এখন পর্যন্ত বাংলাদেশ-ভারত টি-টোয়েন্টিতে মুখোমুখি হয়েছে ৯ বার। এর মধ্যে একবারই জিতেছে টাইগাররা। আজও সেই ধারাবাহিকতা ধরে রাখার লক্ষ্য সফরকারীদের। এজন্য নিজেদের সেরাটা দিতে তৈরি মুশফিক-লিটন-আফিফরা।

সর্বশেষ..