সুদানে সামরিক অভ্যুত্থান সরকার বিলুপ্ত, জরুরি অবস্থা

শেয়ার বিজ ডেস্ক: সুদানে অভ্যুত্থানের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীসহ মন্ত্রিসভার একাধিক সদস্যকে গ্রেপ্তারের পর দেশটির ক্ষমতাসীন কাউন্সিলের প্রধান ও সেনা কর্মকর্তা আবদেল ফাত্তাহ আল-বুরহান দেশজুড়ে জরুরি অবস্থা জারির ঘোষণা দিয়েছেন। একই সঙ্গে অন্তর্বর্তীকালীন সার্বভৌম কাউন্সিল এবং সরকার ভেঙে দিয়েছেন তিনি। গতকাল অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতাসীন সরকারকে হটিয়ে সুদানের ক্ষমতা দখলে নিয়েছে সেনাবাহিনী। খবর: বিবিসি, রয়টার্স, আল জাজিরা।

স্থানীয় সময় গতকাল প্রথম প্রহর থেকে পূর্ব আফ্রিকার এ দেশটির রাজধানী খার্তুমে সামরিক ও আধা সামরিক বাহিনীর সদস্যদের ভারী অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে অবস্থান নিতে দেখা গেছে।   রাজনৈতিক সংকটে টালমাটাল সুদানে এক সামরিক অভ্যুত্থানে প্রধানমন্ত্রী আবদাল্লা হামদককে গৃহবন্দি রাখা হয়েছে। একই সঙ্গে সরকারের কয়েকজন জ্যেষ্ঠ মন্ত্রী ও সরকার-সমর্থক রাজনৈতিক নেতাদের আটক করা হয়।

এদিকে অভ্যুত্থানের প্রতিবাদে দেশটির বিভিন্ন শহরে সুদানের জাতীয় পতাকা নিয়ে রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন সাধারণ মানুষ। বিক্ষোভে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন। 

উদ্ভূত পরিস্থিতিতে খার্তুম আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর বন্ধ করে দিয়ে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চলাচল স্থগিত রাখা হয়েছে। খার্তুমে ইন্টারনেটও বন্ধ রাখা হয়েছে বলে খবর দিয়েছে স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলো।

বিশ্লেষকরা বলছেন, সেপ্টেম্বরের ব্যর্থ সেনা অভ্যুত্থানের পর থেকে সামরিক বাহিনী ও বেসামরিক সরকারের মধ্যে যে তিক্ততা ও টানাপড়েন শুরু হয়েছিল, সোমবারের ঘটনাপ্রবাহ তারই পরিণতি।

আল জাজিরা জানিয়েছে, সুদানের তথ্যমন্ত্রী হামজা বালোউল, ক্ষমতাসীন সভরেইন কাউন্সিলের মুখপাত্র মোহাম্মদ আল ফিকে সুলাইমান, শিল্পমন্ত্রী ইব্রাহিম আল-শেখ ও খার্তুমের গভর্নর আইমান খালিদকে আটক করা হয়। এরই মধ্যে সামরিক বাহিনীর একটি দল রাজধানী খার্তুমে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে অভিযান চালিয়ে তাকে গৃহবন্দি করে।

যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষ দূত জেফ্রি ফেল্টম্যান বলেছেন, সুদানে অন্তর্বর্তী সরকারকে উৎখাত করে সামরিক অভ্যুত্থানের খবরে তার দেশ উদ্বিগ্ন। এ ঘটনায় ‘গভীর উদ্বেগ’ জানিয়েছে আরব লিগ। আর জার্মানি বলছে, সামরিক অভ্যুত্থানের পদক্ষেপ দ্রুতই বন্ধ করা উচিত।


সর্বশেষ..