সুস্বাস্থ্য

সুবিধাবঞ্চিত মানুষের পাশে ব্র্যাক ও ইউনিলিভার

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে

বাংলাদেশে নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে যৌথভাবে কাজ করছে ব্র্যাক ও ইউনিলিভার। প্রাথমিক ধাপে সংস্থা দুটি সারাদেশের সুবিধাবঞ্চিত মানুষের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি সম্পর্কে প্রচার চালানোর পাশাপাশি এ সপ্তাহে প্রায় পাঁচ লাখ প্যাকেট লাইফবয় তরল সাবান বিতরণ করেছে।
দেশের ৪৩ জেলার ৮ পৌরসভা ও ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণসহ ১২ সিটি করপোরেশনের দরিদ্র পরিবারের মধ্যে এসব প্যাকেট বিতরণ করা হয়েছে।
যৌথ উদ্যোগের অংশ হিসেবে ব্যক্তিগত পরিচ্ছন্নতা, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা ও নির্দিষ্ট কিছু সামাজিক শিষ্টাচার পালনের মাধ্যমে সংক্রমণের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলার ক্ষেত্রে জনসচেতনতা সৃষ্টিতে কাজ করছে সংস্থা দুটি। পাশাপাশি জনগণের মধ্যে ব্যক্তিগত পরিচ্ছন্নতায় সহায়ক উপকরণও বিতরণ করছে।
এ বিষয়ে ব্র্যাকের নির্বাহী পরিচালক আসিফ সালেহ্ বলেন, করোনাভাইরাস সংক্রমণজনিত অভূতপূর্ব স্বাস্থ্য সংকট মোকাবেলায় ব্র্যাক সর্বশক্তি নিয়োগ করেছে। সংক্রমণ মোকাবেলায় গৃহীত জাতীয় পরিকল্পনা বাস্তবায়নে আমরা বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করছি। ওরস্যালাইনের প্রসার, শিশুর জীবনরক্ষাকারী টিকাদান কার্যক্রম, শরণার্থী সংকটসহ নানা সংকট ও দুর্যোগ মোকাবেলায় ব্র্যাকের দীর্ঘ অভিজ্ঞতা রয়েছে। সে অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে এ সংক্রমণ প্রতিরোধে আমরা সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গেও সমন্বিত উদ্যোগ নিয়েছি। এক্ষেত্রে যে-কোনো ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ফলপ্রসূ কাজ করতে আমরা আগ্রহী। সবার ঐক্যবদ্ধ প্রয়াসে এ সংকট মোকাবেলা সম্ভব বলে আমাদের বিশ্বাস।
ইউনিলিভার বাংলাদেশের এমডি ও সিইও কেদার লেলে বলেন, বিশ্বব্যাপী আমাদের কর্মী ও তাদের পরিবারের সদস্যদের করোনা ভাইরাসের ঝুঁকি থেকে রক্ষার জন্য ইতোমধ্যে নানা পদক্ষেপ নিয়েছে ইউলিভার। আমরা দ্রুত পদক্ষেপ নিয়েছি। প্রাণপণ চেষ্টা করছি সম্মিলিতভাবে সব ধরণের সহায়তা নিশ্চিত করতে। আমরা লাইফবয়ের মাধ্যমে আমাদের অংশীদারদের সঙ্গে নিয়ে প্রতিনিয়ত সবার কাছে পরিস্কারভাবে হাত ধোয়ার বার্তা পৌঁছে দিচ্ছি।
ইউনিলিভার ও ব্রাক একসঙ্গে পার্টনারশিপের মাধ্যমে বাংলাদেশের প্রান্তিক ও এ দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে এমন জনগণের কাছে সচেনতনতামূলক স্বাস্থ্য বার্তা পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে কাজ করছে। মানবজাতিকে এ অদৃশ্য ভাইরাস থেকে রক্ষা করার প্রয়াসে সুশৃঙ্খলাভাবে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্টরা।
সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমসহ নানা মাধ্যমে কোভিড-১৯-’র বিরুদ্ধে জনসচেতনতা সৃষ্টিতে ইতোমধ্যে নানা কর্মসূচী বাস্তবায়ন করেছে ব্র্যাক ও ইউনিলিভার। ব্র্যাকের মাঠপর্যায়ের ৫০ হাজার স্বাস্থ্যকর্মী ও নগর উন্নয়ন কর্মসূচি, অতি দরিদ্র কর্মসূচি, মাইক্রোফাইন্যান্স কর্মসূচি ও জলবায়ু পরিবর্তন কর্মসূচিসহ সব উন্নয়ন কর্মসূচির মাঠপর্যায়ের কর্মীদের ব্যাপক গণসচেতনতা সৃষ্টির জন্য জরুরি ভিত্তিতে সংগঠিত করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে প্রতিষ্ঠানটির লক্ষ্য এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে দেশের ৫০ লাখ মানুষের মধ্যে সংক্রমণ প্রতিরোধে করণীয় সম্পর্কে বার্তা পৌঁছে দেওয়া।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..