Print Date & Time : 20 May 2022 Friday 12:57 am

সুলভে তাজা ফল ও সবজির জোগান নিশ্চিতে নগর কৃষি নীতিমালা জরুরি

নিজস্ব প্রতিবেদক: প্রতি বছর পর্যাপ্ত সবজি ও ফল খাওয়া সম্ভব হলে ২.৭ মিলিয়ন মানুষের জীবন রক্ষা করা সম্ভব হবে। বাংলাদেশ বিশ্বের অন্যতম সবজি এবং ফলমূল উৎপাদনকারী দেশ হলেও, এখানে জনগোষ্ঠী প্রয়োজনের তুলনায় কম তাজা ফল ও শাকসবজি গ্রহণ করছে। তাজা ফল ও শাকসবজি গ্রহণের সঙ্গে প্রাপ্তি ও দামের একটি নিবিড় সম্পর্ক রয়েছে। নগরে তাজা ফল ও শাকসবজির জোগান নিশ্চিতে নগর কৃষি নীতিমালা প্রণয়ন জরুরি।

গতকাল ‘নগরে স্বাস্থ্যসম্মত খাদ্য নিশ্চিতে সহায়ক নীতি গ্রহণে করণীয়’ শীর্ষক এক ওয়েবিনারে দেশের স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা এ কথা বলেন।

আর্ক ফাউন্ডেশন, সেন্টার ফর ল অ্যান্ড পলিসি অ্যাফেয়ার্স (সিএলপিএ), ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ও মেয়র অ্যালায়েন্স ফর হেলদি সিটি’র যৌথ উদ্যোগে এ ওয়েবিনার অনুষ্ঠিত হয়।

বক্তারা বলেন, অসংক্রামক রোগ বিশ্বে প্রতিরোধযোগ্য মৃত্যুর অন্যতম কারণ। বাংলাদেশেও এটি ভয়ঙ্কর রূপ ধারণ করেছে। কারণ বর্তমানে দেশে ৬৭ শতাংশ মৃত্যুর কারণ অসংক্রামণজনিত রোগ। এসডিজির লক্ষ্য বাস্তবায়নে বাংলাদেশকে ২০৩০ সালের মধ্যে অসংক্রামক রোগজনিত মৃত্যু ৩০ শতাংশে নামিয়ে আনতে হবে।

বক্তারা বলেন, অসংক্রামক রোগ বৃদ্ধির প্রধান কারণ দ্রুত বৃদ্ধি পাওয়া নগরায়ণ এবং জনসংখ্যা বৃদ্ধির পাশাপাশি অস্বাস্থ্যকর জীবনযাত্রা, অস্বাস্থ্যকর খাদ্য গ্রহণের অভ্যাস, তাজা শাকসবজি-ফলমূল কম খাওয়া, শরীরচর্চা, ব্যায়াম বা পর্যাপ্ত শারীরিক পরিশ্রমের অভাব, অতিরিক্ত স্থূলতা, অনিয়ন্ত্রিত মাদক সেবন এবং ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্যের ব্যবহার এবং পরিবেশ দূষণ।

তারা আরও বলেন, অসংক্রামক রোগ প্রতিরোধে স্বাস্থ্যকর খাদ্য গ্রহণে উৎসাহী করতে ফল, সবজি গ্রহণে উৎসাহী এবং ট্রান্সফ্যাট, অতিরিক্ত চিনি, লবণ গ্রহণে নিরুৎসাহিত করতে সচেতনতা, পুষ্টি-সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক মানদণ্ড প্যাকেটে যুক্ত করা, খাদ্যে লবণ গ্রহণে নিরুৎসাহিত করা, উচ্চ কর আরোপ, অস্বাস্থ্যকর খাদ্যের বাজার নিয়ন্ত্রণ এবং বিজ্ঞাপন বন্ধ করার পদক্ষেপ গ্রহণ জরুরি।

বক্তারা, নগরে ছাদ কৃষির জন্য নিজের কর্মএলাকায় গাইড লাইন প্রস্তুত ও বাস্তবায়ন, ছাদ কৃষিতে উৎসাহ করতে নাগরিকদের প্রণোদনা প্রদান, স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব জায়গায় ফসল উৎপাদনের উদ্যোগ গ্রহণ, নগরের আশপাশে হতে সহজে এবং কম খরচে যেন মালামাল নিয়ে আসতে পারে তার জন্য যোগাযোগ ব্যবস্থা নিশ্চিত করা, নগরে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী (হকার, ফেরিওয়ালা, কৃষকদের) বসার ও বিক্রয়ের ব্যবস্থা নিশ্চিত করা, জাতীয়ভাবে নগর কৃষি নীতিমালার প্রণয়নের জন্য সম্মিলিতভাবে উদ্যোগ গ্রহণ করার সুপারিশ করেন।

ওয়েবিনারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষক ও আর্ক ফাউন্ডেশনের প্রধান নির্বাহী অধ্যাপক ড. রুমানা হকের সভাপতিত্বে আলোচক ছিলেনÑরংপুর সিটি মেয়র মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তফা, মানিকগঞ্জ পৌরসভার মেয়র গাজী কামরুল হুদা সেলিম, ধামরাই পৌরসভার মেয়র আলহাজ গোলাম কবির, সুন্দরগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আব্দুর রশিদ ডাবলু, গাইবান্ধা ১ আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী।