কোম্পানি সংবাদ পুঁজিবাজার

সূচকের ইতিবাচক প্রবণতায় শেষ হলো সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস

নিজস্ব প্রতিবেদক: সূচকের ইতিবাচক প্রবণতায় শেষ হয় সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস। তবে গতকাল সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচকের ইতিবাচক প্রবণতা থাকলেও লেনদেন আগের কার্যদিবসের তুলনায় কমেছে। এদিন শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত উত্থান-পতনের মধ্য দিয়ে লেনদেন শেষ হয়। অন্যদিকে চিটাগং স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই) একই চিত্র দেখা গেছে।

বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৩২ দশমিক শূন্য দুই পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৬৪ শতাংশে বেড়ে চার হাজার ৯৯৫ দশমিক ৩১ পয়েন্টে পৌঁছায়। ডিএসইএস বা শরিয়াহ্ সূচক ছয় দশমিক ২৩ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৫৫ শতাংশ বেড়ে এক হাজার ১২৬ দশমিক ৬১ পয়েন্টে অবস্থান করে। অন্যদিকে ডিএস৩০ সূচক ১৪ দশমিক ৭১ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৮৬ শতাংশ বেড়ে এক হাজার ৭১০ দশমিক ৭১ পয়েন্টে স্থির হয়।

গতকাল ডিএসইতে লেনদেন হয় ৮৭৩ কোটি ৪৯ লাখ ৪০ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৯১৪ কোটি ৩৭ লাখ ১৫ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসাবে লেনদেন কমেছে ৪০ কোটি ৮৭ লাখ ৭৫ হাজার টাকার। এদিন ৩৭ কোটি ৬৬ লাখ ২৪ হাজার ৮৮৯টি শেয়ার এক লাখ ৭০ হাজার ৭৫ বার হাতবদল হয়।

এদিন মোট ৩৫৫টি কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ১৯৪টির এবং কমেছে ১০৬টির। বাকি ৫৫টি কোম্পানির শেয়ারদর অপরিবর্তিত ছিল। গতকাল ডিএসইর বাজার মূলধন তিন হাজার ৭৫৩ কোটি ৩২ লাখ ১৮ হাজার টাকা বেড়ে দাঁড়িয়েছে চার লাখ তিন হাজার ৩৯৫ কোটি ৫২ লাখ ৮৮ হাজার টাকায়।

গতকাল টাকার অঙ্কে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড। কোম্পানিটির ৪৫ কোটি ১৮ লাখ ২৭ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। শেয়ারটির দর এক টাকা ২০ পয়সা বেড়েছে। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা বাংলাদেশ এক্সপোর্ট-ইমপোর্ট কোম্পানি লিমিটেডের ৪২ কোটি ৪৬ লাখ ১০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। শেয়ারদর এক টাকা ৫০ পয়সা বেড়েছে। প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল লিমিটেডের ২৮ কোটি ৭২ লাখ পাঁচ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিটির শেয়ারদর দুই টাকা ৬০ পয়সা বেড়েছে। এরপরের অবস্থানগুলোতে থাকা ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেডের ২৫ কোটি তিন লাখ ১৫ হাজার, কন্টিনেন্টাল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ২৪ কোটি ৫৬ লাখ ৮৫ হাজার টাকার, বাংলাদেশ ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডের ১৭ কোটি ৫০ লাখ ৫৩ হাজার, সন্ধানী ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ১৭ কোটি পাঁচ লাখ ১৯ হাজার, লংকাবাংলা ফাইন্যান্স লিমিটেডের ১৫ কোটি ৪৮ লাখ দুই হাজার টাকার, নিটল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ১৪ কোটি ৪৫ লাখ ৮১ হাজার এবং রিপাবলিক ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ১৩ কোটি ৭৪ লাখ ২২ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

১০ শতাংশ বেড়ে দর বৃদ্ধির শীর্ষে ছিল এসইএমএল লেকচার ইকুইটি ম্যানেজমেন্ট ফান্ড। জিকিউ বলপেন ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ৯ দশমিক ৯৭ শতাংশ, খান বাহাদুর পিপি ওভেন ব্যাগ ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ৯ দশমিক ৮৭ শতাংশ, ইউনিয়ন ক্যাপিটাল লিমিটেডের ৯ দশমিক ৮৭ শতাংশ, সিএপিএম আইবিবিএল ইসলামিক মিউচুয়াল ফান্ডের ৯ দশমিক ৮৩ শতাংশ, কন্টিনেন্টাইল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ৯ দশমিক ৭৩ শতাংশ, পিএইচপি ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ডের ৯ দশমিক ৬৭ শতাংশ, ইবিএল এনআরবি মিউচুয়াল ফান্ডের ৯ দশমিক ৫২ শতাংশ, ইয়াকিন পলিমার লিমিটেডের ৯ দশমিক ৩২ শতাংশ এবং ইবিএল ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ডের ৯ দশমিক শূন্য ৯ শতাংশ শেয়ারদর বেড়েছে।

অন্যদিকে পাঁচ দশমিক ৪১ শতাংশ দর কমে পতনের শীর্ষে উঠে আসে জনতা ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড। এশিয়া প্যাসিফিক জেনারেল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের দর চার দশমিক ৮৬ শতাংশ, বাংলাদেশ জেনারেল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের চার দশমিক ৪৪ শতাংশ, মেঘনা লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের চার দশমিক ৩৮ শতাংশ, ইস্টল্যান্ড ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের চার দশমিক ৩৫ শতাংশ, নর্দান ইসলামী ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের দর চার দশমিক শূন্য ছয় শতাংশ, সন্ধানী ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের চার শতাংশ, তাকাফুল ইসলামী ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের তিন দশমিক ৯২ শতাংশ, বিচ হ্যাচারি লিমিটেডের তিন দশমিক ৮৪ শতাংশ এবং পাইওনিয়র ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের তিন দশমিক ৭৫ শতাংশ শেয়ারদর কমেছে।

অন্যদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) প্রধান সূচক সিএসসিএক্স ৬৮ দশমিক শূন্য তিন পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৭৯ শতাংশ বেড়ে আট হাজার ৫৭৫ দশমিক ৪৮ পয়েন্টে এবং সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ১২০ দশমিক ২৮ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ৮৪ শতাংশ বেড়ে ১৪ হাজার ২৮৭ দশমিক ৫১ পয়েন্টে অবস্থান করে। সিএসইতে ২৭০টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়েছে। দর বেড়েছে ১৬৬টির, কমেছে ৬৪টির এবং ৪০টির দর অপরিবর্তিত ছিল। সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৪২ কোটি পাঁচ লাখ ৭৩ হাজার ৪৯৯ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৬০ কোটি সাত লাখ ৮৮ হাজার ৫৬ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসাবে লেনদেন কমেছে ১৮ কোটি দুই লাখ ১৪ হাজার ৫৫৭ টাকা।

সিএসইতে এদিন লেনদেনের শীর্ষে ছিল যমুনা ব্যাংক লিমিটেড। কোম্পানিটির ৯ কোটি ২২ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা বাংলাদেশ জেনারেল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ছয় কোটি ৮৭ লাখ ৬০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..