প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সূচকের উত্থান, কমেছে লেনদেন

নিজস্ব প্রতিবেদক: সপ্তহের শেষ কার্যদিবস গতকাল বৃহস্পতিবার সূচকের সামান্য উত্থান হয়েছে পুঁজিবাজারে। সব সূচকই বেড়েছে। তবে টাকার পরিমাণে লেনদেন এবং অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানে দর কমেছে। সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেনে অংশ নেয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে ১৬২টির বা ৪২ দশমিক ৫১ শতাংশ শেয়ার ও ইউনিট দর কমেছে। শেয়ার দর সবচেয়ে বেশি কমেছে এপেক্স ট্যানারির।

ডিএসইতে দর পতনের শীর্ষ তালিকায় উঠে আসা অন্যান্য কোম্পানির মধ্যে আলহাজ্ব টেক্সটাইলের ১ দশমিক ৯৯ শতাংশ, হাক্কানি পাল্পের ১ দশমিক ৯৯ শতাংশ, ড্যাফোডিল কম্পিউটারের ১ দশমিক ৯৭ শতাংশ, প্রগ্রেসিভ লাইফ ইন্সুরেন্সের ১ দশমিক ৯৭ শতাংশ, ইমাম বাটনের ১ দশমিক ৯৬ শতাংশ, বঙ্গজ লিমিটেডের ১ দশমিক ৯৫ শতাংশ, এইচ আর টেক্সটাইলের ১ দশমিক ৯৪ শতাংশ, সোনালী পেপারের ১ দশমিক ৯১ শতাংশ, ইসলামি ইন্সুরেন্সের ১ দশমিক ৯১ শতাংশ, শতাংশ দর কমেছে।

গতকাল ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে লেনদেনে অংশ নেয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে ১৪৫টির বা ৩৮ দশমিক ০৫ শতাংশ শেয়ার ও ইউনিট দর বেড়েছে। শেয়ার দর সবচেয়ে বেশি বেড়েছে মেঘনা ইন্সুরেন্সের।

আগের কার্যদিবস বুধবার মেঘনা ইন্সুরেন্সের ক্লোজিং দর ছিল ২৮ টাকা ১০ পয়সা। লেনদেন শেষে এর ক্লোজিং দর দাঁড়ায় ৩০ টাকা ৯০ পয়সা। অর্থাৎ গতকাল কোম্পানিটির শেয়ার দর ২ টাকা ৮০ পয়সা বা ৯.৯৬ শতাংশ বেড়েছে। এর মাধ্যমে মেঘনা ইন্সুরেন্স ডিএসইর দর বৃদ্ধির তালিকার শীর্ষে উঠে আসে।

ডিএসইতে দর বৃদ্ধির শীর্ষ তালিকায় উঠে আসা অন্যান্য কোম্পানিগুলোর মধ্যে গ্লোবাল হেবি কেমিক্যালের ৯ দশমিক ৫৮ শতাংশ, সুহƒদ ইন্ডাস্ট্রিজের ৮ দশমিক ৫৭ শতাংশ, তিতাস গ্যাসের ৬ দশমিক ০৯ শতাংশ, ডেসকোর ৫ দশমিক ৮৩ শতাংশ, ইউনাইটেড ইন্সুরেন্সের ৫ দশমিক ৩৪ শতাংশ, সমরিতা হসপিটালের ৫ দশমিক ১৫ শতাংশ, আরামিট সিমেন্টের ৪ দশমিক ৬৬ শতাংশ, বার্জার পেইন্টসের ৪ দশমিক ৬৩ শতাংশ, একটি পেস্টিসাইডের ৪ দশমিক ৫৭ শতাংশ দর বেড়েছে।

প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৯ দশমিক ৮৫ পয়েন্ট বা ০ দশমিক ১৫ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬ হাজার ৩২৭ দশমিক ৬৫ পয়েন্টে। ডিএসইর অপর সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ১ দশমিক ৪৫ পয়েন্ট বা ০ দশমিক ১০ শতাংশ এবং ডিএসই-৩০ সূচক ৪ দশমিক ৬৪ পয়েন্ট বা ০ দশমিক ২০ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে এক হাজার ৩৮২ দশমিক ৯২ পয়েন্টে এবং ২২৯৮ দশমিক ৬০ পয়েন্টে।

ডিএসইতে গতকাল টাকার পরিমাণে লেনদেন হয়েছে ৬৮৩ কোটি ৭৪ লাখ টাকার। যা আগের কার্যদিবস থেকে ১০ কোটি ৬৩ লাখ টাকা কম। আগের কার্যদিবস লেনদেন হয়েছিল ৬৯৪ কোটি ৩৭ লাখ টাকার।

ডিএসইতে ৩৮১টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১৪৫টির বা ৩৮ দশমিক ০৬ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর বেড়েছে। দর কমেছে ১৬২টির বা ৪২ দশমিক ৫২ শতাংশের এবং ৭৪টির বা ১৯৪ দশমিক ২ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

অন্যদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই এদিন ১৭ দশমিক ৭০ পয়েন্ট বা ০.০৯ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৮ হাজার ৬১৯.৯৫ পয়েন্টে। সিএসইতে হাত বদল হওয়া ২৮৭টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ১২০টির, কমেছে ১২৬টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪১টির দর। সিএসইতে ২৩ কোটি ২৪ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।