কোম্পানি সংবাদ পুঁজিবাজার

সূচকের মিশ্র প্রবণতায় ডিএসইতে লেনদেন কমেছে ৮৮ কোটি টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গতকাল মঙ্গলবার সপ্তাহের তৃতীয় কার্যদিবসে সূচকের মিশ্র প্রবণতায় লেনদেন ৮৮ কোটি টাকা কমেছে। এদিন বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ারদর অপরিবর্তিত ছিল। বাকি শেয়ারের মধ্যে বেশিরভাগ শেয়ারের দর কমায় লেনদেন কমেছে, একইসঙ্গে সূচকের মিশ্র প্রবণতা লক্ষ্য করা গেছে। গতকাল বাজারে লেনদেনের শুরুতে সূচকের ঊর্ধ্বমুখী গতি দেখা যায়, আধা ঘণ্টা পর থেকে বাজারে উত্থানপতনের মধ্য দিয়ে শেষ পর্যন্ত পতন দেখা যায়। অন্যদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচক কমলেও লেনদেন বেড়েছে।

বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৭ দশমিক ৩৬ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ১৮ শতাংশ কমে চার হাজার ৮২ দশমিক ১৪ পয়েন্টে পৌঁছায়। ডিএসইএস বা শরিয়াহ সূচক এক দশমিক ২৮ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ১৩ শতাংশ বেড়ে ৯৫২ দশমিক ১৩ পয়েন্টে অবস্থান করে। অন্যদিকে ডিএস৩০ সূচক ২ দশমিক ০২ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ১৪ শতাংশ কমে এক হাজার ৩৭৪ দশমিক ০৪ পয়েন্টে স্থির হয়।

গতকাল ডিএসইতে লেনদেন হয় ২৮৯ কোটি ৩১ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৩৭৭ কোটি ৯৫ লাখ ৬৩ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসাবে লেনদেন কমেছে ৮৮ কোটি ৬৪ লাখ ৬৩ হাজার টাকার। এদিন ৮ কোটি ৬৪ লাখ ৫৩ হাজার ১৯২টি শেয়ার ৬৫ হাজার ৫৯৬ বার হাতবদল হয়।

এদিন মোট ৩৪৭টি কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ৪৩টির এবং কমেছে ১২০টির। বাকি ১৮৪টি কোম্পানির শেয়ারদর অপরিবর্তিত ছিল। গতকাল ডিএসইর বাজার মূলধন ৬৯৬ কোটি ৯৯ লাখ ৫৭ হাজার টাকা কমে দাঁড়িয়েছে তিন লাখ ১৫ হাজার ৬৯৮ কোটি ৪৪ লাখ ৯৬ হাজার টাকায়।

গতকাল টাকার অঙ্কে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড। কোম্পানিটির ১৯ কোটি ১৭ লাখ ১৫ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। শেয়ারটির দর দুই টাকা ৭০ পয়সা বেড়েছে। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড ১৪ কোটি ২৮ লাখ ৮৭ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। শেয়ারদর এক টাকা ৪০ পয়সা বেড়েছে। ইন্দো-বাংলা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ১১ কোটি ৫৪ লাখ ৭৮ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিটির শেয়ারদর ৮০ পয়সা বেড়েছে। এরপরের অবস্থানগুলোয় থাকা প্যারামাউন্ট টেক্সটাইলস লিমিটেডের ১১ কোটি ৩৪ লাখ ৩৭ হাজার টাকার, বাংলাদেশ সাবমেরিন কেব্ল কোম্পানি লিমিটেডের ৯ কোটি ১৯ লাখ ৮৫ হাজার টাকার, নাহি অ্যালুমিনিয়াম কম্পোজিট প্যানেল লিমিটেডের ৮ কোটি ৫ লাখ ৯২ হাজার টাকার, খুলনা পাওয়ার কোম্পানি লিমিটেডের ৭ কোটি ৭৩ লাখ ১০ হাজার টাকার, এমএল ডায়িং লিমিটেডের ৭ কোটি ৬০ লাখ ৫৭ হাজার টাকার, ওরিয়ন ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ৭ কোটি ১৭ লাখ ৯৭ হাজার টাকার এবং বারাকা পাওয়ার কোম্পানি লিমিটেডের ৫ কোটি ৪২ লাখ ২৯ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

৯ দশমিক ৯০ শতাংশ বেড়ে দরবৃদ্ধির শীর্ষে ছিল রিপাবলিক ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড। প্যারামাউন্ট টেক্সটাইলস লিমিটেডের ৯ দশমিক ১০ শতাংশ, জিকিউ বলপেন ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ৮ দশমিক ৬৮ শতাংশ, প্যারামাউন্ট ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ৭ দশমিক ৪২ শতাংশ, অগ্রণী ইন্স্যুরেন্সের ৭ দশমিক ১৭ শতাংশ, বারাকা পাওয়ার কোম্পানি লিমিটেডের ৬ দশমিক ০৪ শতাংশ, নাহি অ্যালুমিনিয়াম কম্পোজিট প্যানেল লিমিটেডের ৪ দশমিক ৬৩ শতাংশ, ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের ৪ দশমিক ৩৯ শতাংশ, বাংলাদেশ সাবমেরিন কেব্ল কোম্পানি লিমিটেডের তিন দশমিক ৭০ শতাংশ এবং সিটি জেনারেল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ৩ দশমিক ৬৪ শতাংশ শেয়ারদর বেড়েছে।

অন্যদিকে ৬ দশমিক ৮৯ শতাংশ দর কমে পতনের শীর্ষে উঠে আসে সিটি ব্যাংক লিমিটেড। পপুলার লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের দর ৬ দশমিক ৭৯ শতাংশ, তু হাই নিটিংয়ের দর ৫ শতাংশ, লিব্রা ইনফিউশনসের ৪ দশমিক ২২ শতাংশ, এডিএন টেলিকম লিমিটেডের ৪ দশমিক ১৬ শতাংশ শেয়ারদর কমেছে।

অন্যদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) প্রধান সূচক সিএসসিএক্স ২ দশমিক ৬৪ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ০৩ শতাংশ কমে ৭ হাজার ৩১ দশমিক ২৭ পয়েন্টে এবং সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৫ দশমিক ৫৩ পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ০৪ শতাংশ কমে ১১ হাজার ৬০১ দশমিক ১৭ পয়েন্টে অবস্থান করে। সিএসইতে ১৯০টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়েছে। দর বেড়েছে ৪১টির, কমেছে ৬১টির এবং ৮৮টির দর অপরিবর্তিত ছিল। সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ১৭ কোটি ৬৩ লাখ ১১ হাজার ৯৮৫ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ১৩ কোটি ১৫ লাখ ৫৮ হাজার ৩০৬ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসাবে লেনদেন বেড়েছে ৪ কোটি ৪৭ লাখ ৫৩ হাজার ৬৭৯ টাকার।

সিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে ছিল জেনেক্স ইনফোসিস লিমিটেড। কোম্পানিটির ৯ কোটি ২১ লাখ ১০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা সিলকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের এক কোটি ১০ লাখ ৮০ হাজার টাকার এবং এরপরের অবস্থানে থাকা স্ট্যান্ডার্ড ইন্স্যুরেন্স লিমিটেডের এক কোটি ৭ লাখ ৫০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ৫৮ লাখ ৪০ হাজার টাকার, বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ৩৮ লাখ ১০ হাজার টাকার, ইন্দো-বাংলা ফার্মার ৩১ লাখ ৮০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..