প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সূচক ও লেনদেনে নিম্নমুখী প্রবণতা

নিজস্ব প্রতিবেদক: উভয় পুঁজিবাজারে গতকাল সোমবার নিম্নমুখী প্রবণতায় লেনদেন শেষ হয়েছে। সবগুলো সূচক কমার পাশাপাশি লেনদেনও কমেছে উল্লেখযোগ্য হারে। কমেছে বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ারদর।  ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে  লেনদেনের শুরুতে কেনার চাপে সূচক বাড়তে শুরু করলেও আধাঘণ্টার মধ্য আবার নামতে থাকে। এরপর দু-একবার বাড়ার চেষ্টা করলেও সফল হতে পারেনি। শেষ ঘণ্টায় বিক্রির চাপ অনেক বাড়াতে সূচকের পতন হয়। শেষ পর্যন্ত প্রধান সূচকের ২০ পয়েন্ট পতন দিয়ে লেনদেন শেষ হয়। চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও সব ধরনের সূচক পতনের পাশাপাশি লেনদেন কমে গেছে।

বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স ২০ দশমিক ২৯ পয়েন্ট বা  দশমিক ৩৪ শতাংশ কমে পাঁচ হাজার ৮২৪ দশমিক ৪২ পয়েন্টে অবস্থান করছে। ডিএসইএস বা শরিয়াহ্ সূচক তিন দশমিক ২৭ পয়েন্ট বা দশমিক ২৪ শতাংশ কমে এক হাজার ৩২৪ দশমিক ১৩ পয়েন্টে আর ডিএস ৩০ সূচক দশমিক ৩৩ পয়েন্ট বা দশমিক শূন্য এক শতাংশ কমে দুই হাজার ১৩৩ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

ডিএসইতে এক হাজার ১৪৭ কোটি ৬০ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল এক হাজার ২৬৩ কোটি ৪৬ লাখ টাকার শেয়ার। লেনদেন কমেছে ১১৫ কোটি ৮৬ লাখ টাকা। গতকাল ডিএসইর বাজার মূলধন ছিল তিন লাখ ৯২ হাজার সাত কোটি ৮৬ লাখ ৬০ হাজার ৯১১ টাকা। ৩১ কোটি ৯৮ লাখ ৭৩ হাজার ৬৫৫টি শেয়ার এক লাখ ৬১ হাজার ৪৭৩ বার হাতবদল হয়। লেনদেন হওয়া ৩২৯টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৮২টির, কমেছে ২১৪টির, অপরিবর্তিত ছিল ৩৩টির দর।

সবচেয়ে বেশিসংখ্যক শেয়ার লেনদেন হয় কেয়া কসমেটিকসের। দুই কোটি ১৮ লাখ ১০ হাজার ৫৩০টি শেয়ার ৩৭ কোটি ৩৬ লাখ টাকায় লেনদেন হয়। এর পরের অবস্থানগুলোয় ছিল জেনারেশন নেক্সট, সিমটেক্স, ফু-ওয়াং ফুড, প্রিমিয়ার লিজিং, ওয়ান ব্যাংক, সিঅ্যান্ডএ টেক্স, বেক্সিমকো, বিবিএস, মার্কেন্টাইল ব্যাংক। সাত দশমিক ৯১ শতাংশ দর বেড়ে বৃদ্ধির শীর্ষে উঠে আসে বিডি অটোকার। শেয়ারটির সর্বশেষ দর হয় ১০১ টাকা ১০ পয়সা। এরপর সাত দশমিক ১৫ শতাংশ বেড়েছে ইউনিক হোটেলের। আইপিডিসি পাঁচ দশমিক ৯৫ শতাংশ, এপেক্স স্পিনিং পাঁচ দশমিক ৩৪ শতাংশ, আইসিবি এএমসিএল সেকেন্ড মিউচুয়াল ফান্ডের দর পাঁচ দশমিক ২১ শতাংশ বেড়েছে। অন্যদিকে ছয় দশমিক ৫৫ শতাংশ দর কমেছে ইউনাইটেড ইন্স্যুরেন্সের, মেঘনা পেট ছয় দশমিক ২৯ শতাংশ, মেঘনা কনডেন্সড মিল্ক পাঁচ দশমিক ৮০ শতাংশ, কেঅ্যান্ডকিউ দর চার দশমিক ৯২ শতাংশ, ফু-ওয়াং ফুডের দর চার দশমিক ১৭ শতাংশ কমেছে।

চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) গতকাল সিএসসিএক্স মূল্যসূচক ৪৭ দশমিক ১৮ পয়েন্ট কমে ১০ হাজার ৯০৫ পয়েন্টে, সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৭৬ পয়েন্ট কমে ১৮ হাজার ৫০ পয়েন্টে অবস্থান করছে। ২৬৯টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার এবং ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে ৭৯টির দর বেড়েছে। কমেছে ১৬৬টির। অপরিবর্তিত ছিল ২৪টির দর। এদিন ৬৩ কোটি ৫১ লাখ ১০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৭৪ কোটি ১৪ লাখ ৯৪ হাজার টাকার শেয়ার। সে হিসাবে সিএসইতে লেনদেন কমেছে ১০ কোটি ৬৩ লাখ টাকা। গতকাল সিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে ছিল বেঙ্গল উইন্ডসর কোম্পানি। কোম্পানটির চার কোটি ৪৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। আফতাব অটো তিন কোটি ৪১ লাখ টাকার, কেয়া কসমেটিকস দুই কোটি ৯৫ লাখ টাকার, ফু-ওয়াং ফুড দুই কোটি ৬৯ লাখ টাকার, ইউসিবির দুই কোটি ৩৪ লাখ টাকার, বেক্সিমকো দুই কোটি ১১ লাখ টাকার, জেনারেশন নেক্সট দুই কোটি চার লাখ, ইফাদ অটোস দুই কোটি তিন লাখ টাকার, আমান ফিড এক কোটি ৬৬ লাখ টাকার এবং কনফিডেন্স সিমেন্টের এক কোটি ৩২ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।