কোম্পানি সংবাদ

সূচক শেয়ারদর ও লেনদেন সামান্য ইতিবাচক

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গতকাল সূচকের মিশ্র প্রবণতায় লেনদেন হয়েছে। প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ও ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক সামান্য ইতিবাচক হওয়ার পাশাপাশি লেনদেন সামান্য বেড়েছে। এছাড়াও বেশিরভাগ কোম্পানির দর ইতিবাচক ছিল। গতকাল লেনদেনের শুরুতে সূচক ঊর্ধ্বমুখী হলেও তা বেশি সময় স্থায়ী হয়নি। আধঘণ্টার মধ্যে সূচক নিন্মমুখী হয়ে যায়। এরপর আরেকবার ঊর্ধ্বমুখী হওয়ার চেষ্টা ব্যর্থ হয়। বেলা ১টার পর থেকে ধীরগতিতে সূচকের উত্থান হতে থাকে। দিনশেষে ডিএইএক্স সূচকের তিন দশমিক ৪৪ পয়েন্ট ইতিবাচক হয়। অন্যদিকে চিটাগং স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) একই চিত্র দেখা গেছে।
বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স তিন দশমিক ৪৪ পয়েন্ট বা দশমিক শূন্য ছয় শতাংশ বেড়ে পাঁচ হাজার ২৭৫ দশমিক ৮৩ পয়েন্টে অবস্থান করে।
ডিএসইএস বা শরিয়াহ্ সূচক দুই দশমিক ৩২ পয়েন্ট বা দশমিক ১৯ শতাংশ বেড়ে এক হাজার ২২০ দশমিক ৩০ পয়েন্টে অবস্থান করে। আর ডিএস৩০ সূচক ছয় দশমিক ৭০ পয়েন্ট বা দশমিক ৩৬ শতাংশ কমে এক হাজার ৮৫১ দশমিক ৩৪ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল ডিএসইর বাজার মূলধন তিন লাখ ৮৮ হাজার ৫৯২ কোটি টাকা হয়। ডিএসইতে গতকাল লেনদেন হয় ৩৭৬ কোটি ২২ লাখ ২৫ হাজার টাকার শেয়ার ওৃ মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৩৩১ কোটি ৭৮ লাখ ৩৯ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসেবে লেনদেন বেড়েছে ৪৪ কোটি ৪৩ লাখ টাকা। এদিন ১২ কোটি ৭৩ লাখ ২৭৩টি শেয়ার এক লাখ তিন হাজার ৫৮৩ বার হাতবদল হয়। লেনদেন হওয়া ৩৪৪ কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৬৪টির, কমেছে ১২৮টির ও অপরিবর্তিত ছিল ৫২টির দর।
গতকাল টাকার অঙ্কে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে ফরচুন শুজ। কোম্পানিটির ১৯ কোটি ২২ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দর কমেছে ৬০ পয়সা। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা ইন্দোবাংলা ফার্মার ১৫ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ৭০ পয়সা। এ্যাসকোয়ার নিটের ১৩ কোটি ৫৯ লাখ টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে এক টাকা ৩০ পয়সা। এর পরের অবস্থানে থাকা কাট্টলী টেক্সটাইলের ৯ কোটি ৯২ লাখ টাকা, ফাইন ফুডসের ৯ কোটি ৩৯ লাখ, মুন্নু সিরামিকের আট কোটি ৯১ লাখ, এসএস স্টিলের আট কোটি ৮৭ লাখ, জেনেক্স ইনফোসিসের আট কোটি ৮৫ লাখ, পাওয়ার গ্রিডের আট কোটি ৭০ লাখ ও ইন্ট্রাকো রিফুয়েলিংয়ের আট কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। ৯ দশমিক ৮৬ শতাংশ বেড়ে দর বৃদ্ধির শীর্ষে উঠে আসে ওইম্যাক্স ইলেকট্রোড। এরপর ন্যাশনাল ফিড মিলের দর ৯ দশমিক ৭৩ শতাংশ, ফু-ওয়াং সিরামিকের ৯ দশমিক ২৪ শতাংশ, ফু-ওয়াং ফুডের সাত দশমিক ৭৯ শতাংশ, ইন্ট্রাকো রিফুয়েলিংয়ের সাত দশমিক ৩৫ শতাংশ, ভিএফএস থ্রেডের ছয় দশমিক ৭২ শতাংশ, এসএস স্টিলের দর ছয় দশমিক ৭০ শতাংশ বেড়েছে। এর পরের অবস্থানগুলোয় ছিল অলিম্পিক এক্সেসরিজ, দেশবন্ধু পলিমার, আমান কটন ফাইব্রাস।
অন্যদিকে ছয় দশমিক ১৫ শতাংশ দর কমেছে ড্যাফোডিল কম্পিউটার্সের। রেকিট বেনকিজারের দর চার দশমিক ৫৪ শতাংশ, মার্কেন্টাইল ইন্স্যুরেন্সের দর চার দশমিক ৩৪ শতাংশ, তাকাফুল ইন্স্যুরেন্সের তিন দশমিক ৯০ শতাংশ, রিলায়েন্স ওয়ান মিউচুয়াল ফান্ডের তিন দশমিক ২২ শতাংশ, এলআর গ্লোবাল মিউচুয়াল ফান্ডের তিন দশমিক ১২ শতাংশ, রূপালী লাইফ ইন্স্যুরেন্সের তিন দশমিক শূন্য চার শতাংশ, জিলবাংলা সুগার মিলের তিন শতাংশ, সোনার বাংলা ইন্স্যুরেন্সের দুই দশমিক ৯৩ শতাংশ, ডেল্টা ব্র্যাক হাউজিংয়ের দর দুই দশমিক ৯২ শতাংশ কমেছে।
সিএসইতে গতকাল সিএসসিএক্স মূল্যসূচক ১৪ দশমিক ৫৭ পয়েন্ট বা দশমিক ১৪ শতাংশ কমে ৯ হাজার ৮০০ দশমিক ৬৪ পয়েন্টে এবং সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ২৩ দশমিক ২৮ পয়েন্ট বা দশমিক ১৪ শতাংশ কমে ১৬ হাজার ১৮৬ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল সর্বমোট ২২৪টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১০৬টির, কমেছে ৮২টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ৩৬টির দর।
সিএসইতে এদিন ২০ কোটি সাত লাখ ৩৭ হাজার ৬৪৮ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয় ১৬ কোটি ২১ লাখ ৩৪ হাজার ৮৮০ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসাবে লেনদেন বেড়েছে তিন কোটি ৮৬ লাখ টাকা। সিএসইতে গতকাল লেনদেনের শীর্ষে অবস্থান করে সায়হাম টেক্সটাইল। কোম্পানিটির দুই কোটি দুই লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। এরপর ইন্দোবাংলা ফার্মার এক কোটি ৬০ লাখ টাকার, এ্যাসকোয়ার নিটের এক কোটি ২৯ লাখ, ডরিন পাওয়ারের এক কোটি ১৬ লাখ, ইন্ট্রাকোর এক কোটি ১৫ লাখ, এসএস স্টিলের ৮০ লাখ, বসুন্ধরা পেপার মিলের ৬৮ লাখ, বিএসসির ৬০ লাখ, বেক্সিমকো ৩৯ লাখ ও সিলভা ফার্মার ৩২ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..