প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

স্থগিত হচ্ছে দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে যোগাযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক: নতুন শনাক্ত হওয়া কভিডের ‘ওমিক্রন’ বি.১.১.৫২৯ নামের ভ্যারিয়েন্টের বিস্তার ঠেকাতে দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে যোগাযোগ স্থগিত করছে বাংলাদেশ। গতকাল সকালে সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় অনুষ্ঠিতব্য ‘ওয়ার্ল্ড হেলথ অ্যাসেম্বলি সেকেন্ড স্পেশাল সেশন’-এ অংশ নিতে যাত্রাকালে এক অডিও বার্তায় এসব কথা জানান স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ তথ্য কর্মকর্তা মাইদুল ইসলাম প্রধান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, সম্প্রতি আফ্রিকাসহ ইউরোপের কিছু দেশে ছড়িয়ে পড়েছে ওমিক্রন নামক কভিডের নতুন একটি ভ্যারিয়েন্ট। এ বিষয়ে দেশের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অবগত রয়েছে। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাও নেয়া হচ্ছে। এ ভাইরাসটি কভিডের অন্যান্য ভ্যারিয়েন্টের তুলনায় কিছুটা বেশি অ্যাগ্রেসিভ।

ভাইরাসটি নিয়ে আতঙ্কিত না হয়ে দেশবাসীকে কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার অনুরোধ জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আফ্রিকার সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ স্থগিত করা হচ্ছে। সব বিমানবন্দর, স্থলবন্দর বা দেশের সব প্রবেশপথে স্ক্রিনিং আরও জোরদার করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। সারাদেশে স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে মেনে চলতে ও মাস্ক পরতে জেলা প্রশাসনকে নির্দেশনা দেয়া হচ্ছে।

জাহিদ মালেক বলেন, বিশ্বের আক্রান্ত অন্যান্য জায়গা থেকেও যারা আসবে তাদের বিষয়েও সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। স্ক্রিনিং ছাড়া যেন আক্রান্ত দেশের কোনো ব্যক্তি দেশে প্রবেশ করতে না পারে সে ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট শাখাগুলোকেও নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, দক্ষিণ আফ্রিকায় শনাক্ত হয়েছে কভিডের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন, যা নিয়ে ইতোমধ্যে

 বিশ্বজুড়ে উদ্বেগ তৈরি হয়েছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এরই মধ্যে একে ‘উদ্বেগের ভ্যারিয়েন্ট’ বলেছে। দক্ষিণ আফ্রিকা ও প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে ফ্লাইট বাতিল করেছে ব্রিটেন। একই সঙ্গে ওই দেশগুলো থেকে আসা ব্রিটিশ ভ্রমণকারীদেরও কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

ওমিক্রন বি.১.১.৫২৯ নামের ভ্যারিয়েন্টটি কভিডের সবচেয়ে বেশিবার জিন বদলানো সংস্করণ। দক্ষিণ আফ্রিকা, বতসোয়ানা ও হংকংয়ে মোট ৫৯ জন এ ভ্যারিয়েন্টে সংক্রমিত হয়েছে বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।