প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

স্পট মার্কেটে যাচ্ছে সোনালী আঁশ ইন্ডাস্ট্রিজ

নিজস্ব প্রতিবেদক: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত পাট শিল্প খাতের কোম্পানি সোনালী আঁশ ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের শেয়ার আগামী রোববার থেকে স্পট মার্কেটে লেনদেন হবে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে জানা গেছে এ তথ্য।

প্রাপ্ত তথ্যমতে, কোম্পানিটির লভ্যাংশ-সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারিত হয়েছে আগামী ৭ নভেম্বর মঙ্গলবার। তাই আগামী রবি ও সোমবার কোম্পানির শেয়ার স্পট মার্কেটে লেনদেন হবে। রেকর্ড ডেটের দিন শেয়ার লেনদেন বন্ধ থাকবে। রেকর্ড ডেট শেষ হওয়ার পরদিন থেকে শেয়ার লেনদেন স্বাভাবিক নিয়মেই চলবে।

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ ৩০ জুন, ২০২১ সমাপ্ত হিসাববছরের আর্থিক প্রতিবেদন বিশ্লেষণ করে বিনিয়োগকারীর জন্য ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে। আলোচিত সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ১৩ পয়সা। ৩০ জুন, ২০২১ তারিখে শেয়ারপ্রতি নেট সম্পদমূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ২২৫ টাকা ৬৫ পয়সা। এছাড়া এই হিসাববছরে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি নগদ অর্থপ্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১২ টাকা ৮৬ পয়সা (লোকসান)। ঘোষিত লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের সম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য আগামী ২২ ডিসেম্বর বেলা সাড়ে ১১টায় ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। এজন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ৭ ডিসেম্বর।

পাটশিল্প খাতের ‘এ’ ক্যাটেগরির কোম্পানিটি ১৯৮৫ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। ১০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন দুই কোটি ৭১ লাখ ২০ হাজার টাকা। রিজার্ভের পরিমাণ ৫৮ কোটি ৪৫ লাখ টাকা। কোম্পানিটির মোট ২৭ লাখ ১২ হাজার শেয়ার রয়েছে। ডিএসই’র সর্বশেষ তথ্যমতে, মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের কাছে রয়েছে ৫০ দশমিক ৭৮ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক পাঁচ দশমিক ৬৩ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীর কাছে রয়েছে ৪৩ দশমিক ৫৯ শতাংশ শেয়ার।

৩০ জুন, ২০২০ সমাপ্ত হিসাববছরে বিনিয়োগকারীদের জন্য ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে। আলোচিত সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৬২ পয়সা এবং ২০২০ সালের ৩০ জুন তারিখে শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ২২৫ টাকা ৫৩ পয়সা। আর এ হিসাববছরে শেয়ারপ্রতি নগদ অর্থপ্রবাহ হয়েছে চার টাকা ৬৯ পয়সা।

সর্বশেষ কার্যদিবসে ডিএসইতে শেয়ারদর শূন্য দশমিক ২৫ শতাংশ বা এক টাকা ২০ পয়সা কমে

প্রতিটি সর্বশেষ ৪২০ টাকা ১০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ৪২০ টাকা ২০ পয়সা। দিনভর শেয়ারদর ৪১৯ টাকা ২০ পয়সা থেকে ৪৩০ টাকার মধ্যে ওঠানামা করে। দিনজুড়ে এক

হাজার ৮৫৫টি শেয়ার মোট ৬৯ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর সাত লাখ ৮০ হাজার টাকা। গত এক বছরে শেয়ারদর ৩৮৯ টাকা ৩০ পয়সা থেকে ৭১১ টাকার মধ্যে ওঠানামা করে।