Print Date & Time : 26 February 2021 Friday 3:55 pm

স্পুটনিক ৫ টিকার প্রয়োগ শুরু করছে রাশিয়া

প্রকাশ: December 5, 2020 সময়- 09:55 pm

শেয়ার বিজ ডেস্ক: নিজেদের তৈরি কভিড-১৯ টিকা ‘স্পুটনিক ৫’-এর প্রয়োগ শুরু করতে যাচ্ছে রাশিয়া। রাজধানী মস্কোর হাসপাতালগুলো থেকে এ কার্যক্রম শুরু হতে যাচ্ছে। চলতি বছরের আগস্টে এই টিকার নিবন্ধন করেছিল রাশিয়া। এদিকে বিশ্বের দ্বিতীয় দেশ হিসেবে ফাইজার ও বায়োএনটেকের টিকার জরুরি অনুমোদন দিল মধ্যপ্রাচ্যের বাহরাইন। গতকাল শুক্রবার দেশটির পক্ষ থেকে এ ঘোষণা দেয়া হয়। এর আগে যুক্তরাজ্য এ টিকাটির অনুমোদন দিয়েছিল। খবর : বিবিসি

প্রতিবেদন মতে, রাশিয়ার টিকা স্পুটনিক ৫ ৯৫ শতাংশ কার্যকর এবং এর উল্লেখযোগ্য কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই। কিন্তু তারপরেও এর বিপুল পরিমাণে পরীক্ষামূলক প্রয়োগ চলছে। জানা গেছে, স্পুটনিক ৫ এর প্রথম দুই ডোজ নিতে ইতোমধ্যে কয়েক হাজার মানুষ নিবন্ধন করেছেন। তবে রাশিয়া ঠিক কত ইউনিট প্রস্তুতে সক্ষম সে বিষয়ে এখনও কিছু জানা যায়নি। উৎপাদনকারীরা শুধু চলতি বছরের শেষ নাগাদ ২০ লাখ ইউনিট প্রস্তুত করতে পারবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

মস্কোর মেয়র সের্গেই সোবিয়ানিন জানান, তার শহরের মোট এক কোটি ৩০ লাখ মিলিয়ন জনসংখ্যার মধ্যে সবার আগে শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও সামাজিক কর্মকাণ্ডে সংযুক্ত কর্মীদের টিকা নেয়ার জন্য বলা হয়েছে। উৎপাদন বাড়লে ক্রমান্বয়ে তা আরও মানুষকে দেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

এদিকে বাহরাইনের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম বাহরাইন নিউজ এজেন্সি গত শুক্রবার রাতে রাতে দেশটিতে ফাইজারের টিকার জরুরি অনুমোদনের বিষয়টি  ঘোষণা করে। সংস্থাটি জানায়, বাহরাইনের ন্যাশনাল হেলথ রেগুলেটরি অথোরিটি সব উপলব্ধ তথ্যের পুঙ্খানুপুঙ্খ বিশ্লেষণ এবং পর্যালোচনা অনুসরণ করে টিকাটির অনুমোদনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। বাহরাইন অবশ্য কী পরিমাণ টিকা কিনছে, সে তথ্য প্রকাশ করেনি। দেশটি কবে থেকে টিকাদান কর্মসূচি চালু করবে তাও জানানো হয়নি। গত বুধবার বিশ্বে প্রথম দেশ হিসেবে ফাইজার ও বায়োএনটেকের করোনার টিকা ব্যবহারের অনুমোদন দেয় যুক্তরাজ্য। দেশটির সংশ্লিষ্ট নিয়ন্ত্রক সংস্থা এমএইচআরএ বলেছে, ফাইজার ও বায়োএনটেকের করোনার টিকা নিরাপদ। যুক্তরাজ্যে এ টিকার প্রয়োগ আগামী সপ্তাহে শুরু হবে।

ফাইজার ও বায়োএনটেকের দাবি, তাদের উদ্ভাবিত করোনার টিকা ৯৫ শতাংশ কার্যকর। ফাইজারের টিকা তৈরিতে এমআরএনএর মতো যে নতুন প্রযুক্তি ব্যবহার করা হচ্ছে, তা ভাইরাসের বিরুদ্ধে মানুষের প্রতিরোধী শক্তিকে সক্রিয় করে। তবে টিকাটি সংরক্ষণে মাইনাস ৭০ ডিগ্রি সেলসিয়াস (মাইনাস ৯৪ ডিগ্রি ফারেনহাইট) তাপমাত্রার প্রয়োজন পড়ে।