স্মরণীয়-বরণীয়

বিংশ শতাব্দীর বিশ্ববরেণ্য স্পেনীয় চিত্রশিল্পী পাবলো পিকাসো। তিনি কিউবিস্ট আন্দোলনের সহ-প্রতিষ্ঠাতা, গঠনকৃত ভাস্কর্য ও কোলাজের সহ-উদ্ভাবক। শুধু চিত্রশিল্পী হিসেবে নয়, পিকাসোর কৃতিত্ব ও শ্রেষ্ঠত্ব ভাস্কর, প্রিন্টমেকার, মৃৎশিল্পী, মঞ্চ নকশাকারী, কবি ও নাট্যকার হিসেবেও। চিত্রকলা ও ভাস্কর্যে উত্তর আধুনিকতার জনক বলা যায় তাকে। চিত্রসম্রাট পাবলো পিকাসো ১৮৮১ সালের ২৫ অক্টোবর স্পেনের মালাগায় জন্মগ্রহণ করেন। তার পুরো নাম পাবলো দিয়াগো হোসে ফ্রান্সিসকো ডি পওলা জোয়ান নেপোমেসিনো মারিয়া ডি লস রেমেডিওস সিপ্রিয়ানো ডি লা সান্টিসিমা ত্রিনিদাদ রউস ই পিকাসো। বড় হয়ে নিজের নাম রাখেন পাবলো পিকাসো। অল্প বয়স থেকেই আঁকাআঁকিতে পিকাসোর ঝোঁক ছিল। পিকাসোর বাবা ছিলেন বার্সেলোনার চারুকলা বিদ্যালয়ের অধ্যাপক। বাবার কাছেই তার ফিগার ড্রইং ও তৈলচিত্রের আনুষ্ঠানিক হাতেখড়ি। ১৪ বছর বয়সে তিনি পাণ্ডিত্যপূর্ণ ছবি আঁকার দক্ষতা অর্জন করেন। ১৯ বছর বয়সে শিল্প সমালোচকদের নজর কাড়েন পিকাসো। ১৯০৪ সালে মাদ্রিদের পড়াশোনা শেষে তিনি প্যারিসে চলে আসেন। এখানে বন্ধু ম্যাক্স জ্যাকবের সহায়তায় ভাষা ও সাহিত্যে দক্ষতা অর্জন করেন। তার নিজ চেষ্টায় ১৯১০ সালের মধ্যেই তিনি কিউবিস্ট অঙ্কনশৈলী পূর্ণতা লাভ করে। সাত দশকেরও বেশি সময় ধরে কাজ করে বিশ্বের চারুকলাকে সমৃদ্ধ করেছেন তিনি। পিকাসোর প্রায় ২০ হাজারেরও অধিক চিত্রশিল্প বিশ্বের বিভিন্ন জাদুঘরে নিদর্শন হিসেবে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে আছে। রাজনৈতিকভাবে তিনি ছিলেন শান্তিবাদী এবং সাম্যবাদী। তিনি ফরাসি কমিউনিস্ট পার্টির একজন সক্রিয় সদস্য ছিলেন। পাবলো পিকাসোর উল্লেখযোগ্য শিল্পকর্ম হলোÑল্যা মুল্যাঁ দা ল গালেৎ, দ্য বল্টু রুম, ওল্ড গিটারিস্ট, সালত্যাঁবাঁক, সেলফ-পোর্ট্রেট, আভাগঁর রমণীবৃন্দ, থ্রি মিউজিশিয়ানস, স্কাল্পটর, মডেল অ্যান্ড ফিশবৌল, থ্রি ডান্সার্স, গিটার, গ্লাস অব আবস্যাঁৎ, সিটেড বাথার, পালোমা ও গোয়ের্নিকা ইত্যাদি। চিত্রশিল্পের বাইরে তিনি শতাধিক কবিতাও লিখেছেন। ১৯৭০ সালে তার জীবনব্যাপী শিল্পকর্ম বার্সেলোনার মিউজিয়ামকে দান করে যান। তিনি ১৯৭৩ সালের ৮ এপ্রিল মৃত্যুবরণ করেন।

কাজী সালমা সুলতানা

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন   ❑ পড়েছেন  ৯০  জন  

সর্বশেষ..