বিশ্ব সংবাদ

হংকংয়ের প্রধান নির্বাহীর বিরুদ্ধে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা

শেয়ার বিজ ডেস্ক : চীনা বিশেষ প্রশাসনিক অঞ্চল হংকংয়ের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ক্যারি লামের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। এ অঞ্চলের রাজনৈতিক স্বাধীনতা খর্ব করতে ভূমিকা রাখার দায়ে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে। ক্যারি ছাড়াও সাবেক ও বর্তমান পুলিশপ্রধানসহ আরও ১০ জনের বিরুদ্ধে এ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। খবর: বিবিসি ও রয়টার্স।

হংকংয়ের ভিন্ন মতাবলম্বীদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপের কারণে চীনকে শাস্তি দিতে গত মাসে এক নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সেই আদেশের আওতায় শুক্রবার হংকংয়ের প্রধান নির্বাহীসহ অন্যদের ওপর এ নিষেধাজ্ঞা আনল ওয়াশিংটন। নভেম্বরে পুনঃনির্বাচনের দৌড়ে ট্রাম্পের অংশ নেওয়ার আগে বেইজিংয়ের বিরুদ্ধে এ পদক্ষেপ নিলো মার্কিন প্রশাসন।

ক্যারি লাম ছাড়াও হংকংয়ের পুলিশ কমিশনার ক্রিস ট্যাং এবং সাবেক পুলিশ কমিশনার স্টিফেন লো, হংকংয়ের সেক্রেটারি অব সিকিউরিটি জন লি কা-চিউ ও সেক্রেটারি অব জাস্টিস তেরেসা চেংয়ের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। মার্কিন ট্রেজারি বিভাগ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ড্রাকোনীয় জাতীয় নিরাপত্তা আইন জারির মাধ্যমে হংকংয়ের স্বায়ত্তশাসন খর্ব এবং মূল ভূখণ্ডের নিরাপত্তা বাহিনীকে দায়মুক্তি দিয়েছে বেইজিং। একই সঙ্গে এ আইনের মাধ্যমে যেসব প্রতিষ্ঠান অথবা ব্যক্তি চীনের প্রতি বৈরী মনে হবে তাদের বিরুদ্ধে সেন্সরশিপের ভিত্তি তৈরি করা হয়েছে।

এতে আরও বলা হয়েছে, হংকংয়ে বেইজিংয়ের স্বাধীনতা এবং গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া দমন নীতি বাস্তবায়নের জন্য সরাসরি দায়ী এর প্রধান নির্বাহী ক্যারি লাম। মার্কিন অর্থমন্ত্রী স্টিভেন মুচিন বলেন, ‘হংকংয়ের জনগণের পাশে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র রয়েছে। আমরা হংকংয়ের স্বায়ত্তশাসন ক্ষুণœকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে আমাদের অস্ত্র এবং কর্তৃত্ব ব্যবহার করব। নিষেধাজ্ঞার ফলে হংকংয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের যুক্তরাষ্ট্রে থাকা সম্পদ বাজেয়াপ্ত হবে। এছাড়া এ কর্মকর্তাদের সঙ্গে কোনো ধরনের কার্যক্রমে অংশ নিতে পারবেন না মার্কিনিরা।

চীন এবং যুক্তরাষ্ট্রের মাঝে উত্তেজনা দিনে দিনে চরম আকার ধারণ করছে। শুক্রবার চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলছে, চীনা মালিকানাধীন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম উইচ্যাট এবং ভিডিও শেয়ারিং অ্যাপ টিকটকের সঙ্গে লেনদেন নিষিদ্ধে ট্রাম্পের নির্বাহী আদেশের তীব্র বিরোধিতা করে বেইজিং।

বৃহস্পতিবার রাতে টিকটকের মালিক প্রতিষ্ঠান বাইটড্যানস ও ইউচ্যাটের মালিক প্রতিষ্ঠান টেনসেন্টের সঙ্গে সব ধরনের আর্থিক নেনদেন নিষেধাজ্ঞা জারির নির্বাহী আদেশ সই করেন ট্রাম্প।

এ নির্বাহী আদেশের ফলে যুক্তরাষ্ট্রে আগামী ৪৫ দিন পর টেনসেন্ট এবং বাইটড্যান্সের সঙ্গে সব লেনদেন নিষিদ্ধ হয়ে যাবে। বাইটড্যান্স বলছে, মার্কিন প্রেসিডেন্টের নিষেধাজ্ঞার রূপরেখার এ নির্বাহী আদেশে তারা ‘বিস্মিত।’ টিকটক বলছে, আইনের শাসন যে বর্জনীয় নয়, তা নিশ্চিত করতে সব ধরনের প্রতিকার ব্যবস্থা অবলম্বন করা হবে।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ তীব্র আকারে বৃদ্ধি পাওয়ায় গত মাসে হংকংয়ের পার্লামেন্টের নির্বাচন আগামী এক বছরের জন্য পিছিয়ে দেওয়ার ঘোষণা দেন ক্যারি ল্যাম। বেইজিংয়ের আরোপিত বিতর্কিত জাতীয় নিরাপত্তা আইনের কারণে তৈরি হওয়া ক্ষোভকে পুঁজি করে আগামী সেপ্টেম্বরের আইন পরিষদের নির্বাচনে বিরোধীরা সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়ার আশা করছেন।

হংকংয়ের স্বাধীনতা খর্ব করতে নতুন নিরাপত্তা আইন জারি করা হয়েছে উল্লেখ করে এর তীব্র বিরোধিতা করে আসছেন গণতন্ত্রপন্থি আন্দোলনকারীরা। গত বছরের জেলা পরিষদ নির্বাচনে নজিরবিহীন জয় পায় গণতন্ত্রপন্থি প্রার্থীরা; পরিষদেও ১৮টি আসনের ১৭টিতেই জয় পান তারা।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..