শোবিজ

ভ্যালেন্টাইনস ডেতে ‘ভালো থাকার উৎসব’

ভ্যালেন্টাইনস ডেতে প্রথমবার অনুষ্ঠিত

‘ভ্যালেন্টাইনস ডে’তে সকাল ১০টা থেকেই কাপলরা আসতে শুরু করেন। ব্যতিক্রমী আয়োজনটি দেশে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হলো। মূলত এ আয়োজনের উদ্দেশ্য ছিল বিবাহিত যুগল/কাপলদের পারিবারিক জীবনের গতিশীলতা রক্ষা, জীবনযাপনে ভারসাম্যসহ সুন্দরভাবে কাটানো। ছিল তাদের নিয়ে নানারকম মোটিভেশনাল কর্মশালা। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত বিশেষজ্ঞ দ্বারা প্রিমিয়াম কাপল কাউন্সেলিং, দেশ-বিদেশে ভ্রমণ সহায়তা, প্রাথমিক স্বাস্থ্য পরীক্ষা, ডায়েট কাউন্সেলিং, আর্থিক ব্যবস্থাপনা, গেম শো, কাপল ফটোসেশন, গিফট বক্স, স্ন্যাক্স, আনলিমিটেড ফুচকা, বিশেষ দিন উদ্যাপন পরিকল্পনাসহ নানা রকম পর্বে ভরপুর ছিল আয়োজনটি। এটির আয়োজনে ছিল ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট এজেন্সি মিডিয়া মিক্স কমিউনিকেশন্স।

রাজধানীর ধানমন্ডির ২৭ নম্বর এলাকার ডব্লিউডিএ অডিটোরিয়াম হলে ভালোবাসা দিবসে ভালো থাকার দিনব্যাপী উৎসবটি চারটি সেশনে অন্তর্ভুক্ত ছিল।

অনুষ্ঠানে আগত সাদিকুর রহমান ও নাজনীন আক্তার দম্পতির তিন বছর আগে বিয়ে হয়। তারা জানান, এমন আয়োজন সত্যিই ব্যতিক্রমী। দিনটি খুবই ভালোভাবে উপভোগ করছি। এটি আমাদের পারিবারিক জীবনকে আরও গতিশীল করবে।

বেসরকারি টেলিভিশন একাত্তরের বিজনেস এডিটর কাজী আজিজুল ইসলাম ও ইশরাত জাহান দিলরুবা তাদের এক সন্তানকে নিয়ে এসেছিলেন। তারা জানান, ঢাকায় এমন আয়োজন সত্যিই ব্যতিক্রমী। দিনব্যাপী আমরা উপভোগ করেছি। সৃজনশীল ও ব্যতিক্রমী এ অনুষ্ঠানের জন্য তারা আয়োজকদের ধন্যবাদ জানান।

অনুষ্ঠানের আয়োজক মিডিয়া মিক্স কমিউনিকেশন্সের নির্বাহী আবদুল্লা হাসান এ প্রতিবেদককে জানান, কয়েক বছরে আমাদের মধ্যে একটি ধারণার প্র্যাকটিস শুরু হয়েছে যে, জীবনসঙ্গীর প্রতি আমরা শুধু ভালোবাসা একদিনের জন্য প্রকাশ করতে সচেষ্ট হই। ওই দিনকে কেন্দ্র করে আমরা নানারকম পরিকল্পনা করি। কিন্তু যে মানুষটির সঙ্গে সারা জীবন থাকতে চাই, তাকে যে প্রতিদিনই ভালোবাসতে হবে, ভালো রাখতে হব এ ব্যাপারে আমাদের কোনো পরিকল্পনা থাকে না।

বিয়ের সম্পর্ক দৃঢ় করার নির্দিষ্ট কোনো ফর্মুলা নেই। কিন্তু আমরা একে অপরকে ভালোভাবে অনুধাবন করলে, সময় বের করে একটু বেড়িয়ে এলে এবং ভালো থাকার কিছু অনুষঙ্গ মেনে চললে মনে করি আমাদের সম্পর্কগুলো আরও সুন্দর হবে। ভালোবাসা দিবসটি হোক আগামীতে ভালো থাকার অনুষঙ্গ এটাই আমাদের আগামীর চাওয়া।

আয়োজনটির সহ-আয়োজক ছিল বেকসন ইভেন্ট ফার্ম। উৎসবটি বাস্তবায়নে সহযোগিতায় ছিল ওলিলা, কেয়ার মি, গ্র্যান্ড সুলতান, হারমোনি স্পা বিউটি পার্লার, নলেজ পার্টনার সিকিউর অর্গানাইজেশন। উৎসবের অনুপ্রেরক ছিল হেলদি বাংলাদেশ মুভমেন্ট।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..