Print Date & Time : 25 October 2021 Monday 11:26 pm

হারারে টেস্টে জয় থেকে ৭ উইকেট দূরে বাংলাদেশ

প্রকাশ: July 10, 2021 সময়- 10:36 pm

ক্রীড়া ডেস্ক: লক্ষ্য পবর্তময়। তাই দ্বিতীয় ইনিংস যেন টি-টোয়েন্টির গতিতে ব্যাট চালালেন ব্রেন্ডন টেইলর। তবে সেটাই কাল হলো তার। জিম্বাবুয়ের অধিনায়ককে থামিয়ে জয়ের আশা বাড়াল বাংলাদেশ। হারারে টস্ট জিততে টাইগারদের শেষ দিনে ৭ উইকেট।

এরআগে শনিবার দিনের শুরুতে সাদমাম ইসলাম ও নাজমুল হোসেন শান্তর সেঞ্চুরিতে জিম্বাবুয়েকে ৪৭৬ রানের চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেয় বাংলাদেশ।

প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরিতে ১৯৬ বলে ১১৫ রানে অপরাজিত থাকেন সাদমান। দ্বিতীয় টেস্ট সেঞ্চুরিতে ১১৮ বলে অপরাজিত ১১৭ করেন শান্ত।

১ উইকেটে ২৮৪ রানে দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করে বাংলাদেশ। প্রথম ইনিংসের ১৯২ রান মিলিয়ে লিড দাঁড়ায় ৪৭৬ রানের। জিম্বাবুয়ে দিন শেষ করে ৩ উইকেটে ১৪০ রানে।

বিশাল পুঁজি নিয়ে শনিবার স্পিন দিয়ে শুরু করে বাংলাদেশ। কিন্তু কাজ হচ্ছিলো না। তাই ষষ্ঠ ওভারে আক্রমণে তাসকিন আহমেদ। দ্বিতীয় বলেই উইকেট! লেংথ থেকে লাফানো গতিময় এক ডেলিভারিতে তৃতীয় স্লিপে ক্যাচ দেন মিল্টন শুম্বা।
এরপরই শুরু টেইলরের পাল্টা আক্রমণ। কাইটানোর সঙ্গে অদ্ভুতুড়ে এক জুটি গড়ে ওঠে তার।
সে ধারাবাহিকতা ধরে রেখে টেইলর ফিফটি ছুঁয়ে ফেলেন ৩৩ বলেই। এ তারকা এগিয়ে যান শতরানের পথে। তবে প্রথম ইনিংসের মতো এবারও হয়নি তার সেঞ্চুরি। এবারও আউট সেই মিরাজের বলেই। মিরাজের বলে কট এন্ড বোল্ড হয়ে ফেরেন তিনি। তার আগে তার ব্যাট থেকে আসে ১৬ চারে ৭৩ বলে ৯২ রান!

দ্বিতীয় উইকেটে ৯৫ রানের জুটিতে কাইটানোর অবদান কেবল ২। শেষ পর্যন্ত দারুণ এক আর্ম ডেলিভারিতে কাইটানোর দেয়াল ভাঙেন সাকিব। ১৪৬ মিনিট ক্রিজে কাটিয়ে ১০২ বলে ৭ রানে ফেরেন অভিষিক্ত ওপেনার।

আরেক অভিষিক্ত ডিওন মায়ার্স অবশ্য দিন শেষেও আছেন অপরাজিত। তবে টেইলের বিদায়ের পর জয়ের আশায় করছে বাংলাদেশ।

এর আগে সাদমান-নাজমুলের সেঞ্চুরিতে হারারে টেস্টে নিয়ন্ত্রণ আরও বেড়েছিল সফরকারীদের। ৪৫ রানের অবিচ্ছিন্ন ওপেনিং জুটি এদিন ভেঙেছিল ৮৮ রানে। ৪৩ রান করে রিচার্ড এনগারাভার বাইরের বলে ব্যাট চালিয়ে গালিতে মায়ার্সের দারুণ ক্যাচে পরিণত হয়েছিলেন সাইফ হাসান। এরপরের গল্প শুধুই সাদমান-নাজমুলের। ১০১ বলে ফিফটির পর সাদমান সেঞ্চুরি পূর্ণ করেছেন ১৮০ বলে। এনগারাভার বলে সিঙ্গেল নিয়ে নড়বড়ে নব্বইয়ে তামিম ইকবাল ছাড়া ২০১৫ সালের পর এ পজিশনে বাংলাদেশের হয়ে সেঞ্চুরি ছিল শুধু ইমরুল কায়েসের। শেষ পর্যন্ত ১৯৬ বলে ১১৫ রান করে অপরাজিত ছিলেন সাদমান, ইনিংসে মেরেছেন ১১টি চার।

বাংলাদেশ অবশ্য দ্রুত ইনিংস ঘোষণা করতে পেরেছে নাজমুলের ঝোড়ো গতির ব্যাটিংয়ে। ক্যারিয়ারে প্রথম সেঞ্চুরি করতে যেখানে নাজমুল খেলেছিলেন ২৩৫ বল, এদিন মাত্র ১০৯ বলেই তিন অঙ্কে পৌঁছে গেছেন তিনি। ১১৮ বলে ১১৭ রান করে অপরাজিত ছিলেন তিনি, ৫টি চারের সঙ্গে মেরেছেন ৬টি ছয়। তার জোড়া সেঞ্চুরিতে ভর করে এখন হারারে টস্ট জয়ের স্বপ্ন বুনছে বাংলাদেশ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ ১ম ইনিংস: ৪৬৮

জিম্বাবুয়ে ১ম ইনিংস: ২৭৬

বাংলাদেশ ২য় ইনিংস: (আগের দিন ৪৫/০) ৬৭.৪ ওভারে ২৮৪/১ (ডি.)(সাদমান ১১৫*, সাইফ ৪৩, শান্ত ১১৭*; মুজারাবানি ১২-৪-২৭-০, এনগারাভা ৯-০-৩৬-১, টিরিপানো ১১-২-৩৩-০, নিয়াউচি ১০-১-৩৬-০, শুম্বা ১২.৪-০-৬৭-০, কাইয়া ১৩-২-৮৪-০)।

জিম্বাবুয়ে ২য় ইনিংস: (লক্ষ্য ৪৭৭) ৪০ ওভারে ১৪০/৩ (শুম্বা ১৫, কাইটানো ৭, টেইলর ৯২, মায়ার্স ১৮*, টিরিপানো ৭*; সাকিব ১২-৪-২৩-১, মিরাজ ১৪-২-৪৫-১, তাসকিন ৭-০-৩৯-১, ইবাদত ৩-০-১৯-০, মাহমুদউল্লাহ ৪-০-৯-০)।