স্পোর্টস

হেড কোচের শূন্যতা অনুভব করছে না টাইগ্রেসরা

ক্রীড়া ডেস্ক: গেল টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর থেকেই হেড কোচ বিহীন চলছে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। তারপরও খুব একটা সমস্যা হচ্ছে না টাইগ্রেসরা। ঘরের মাঠে আসন্ন দক্ষিণ আফ্রিকা নারী ইমার্জিং দলের বিপক্ষে খেলার জন্য গত এক মাস ধরে লাল-সবুজরা প্রস্তুতি নিচ্ছে দেশিয় কোচের অধীনে। তাই হেড কোচের শূন্যতা অনুভব করছেন না বলে জানিয়েছেন জাহানারা আলম।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাংলাদেশের ব্যর্থতার পর প্রধান কোচ আঞ্জু জেইনের সাথে আর চুক্তি নবায়ন করেনি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। তবে গত বছরের ডিসেম্বরে ইংল্যান্ডের সাবেক কোচ মার্ক রবিনসনকে নারী ক্রিকেট দলের প্রধান কোচ হিসাবে নিয়োগ দেয়া প্রায় চূড়ান্ত করে ফেলে বিসিবি। তবে, ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে রবিনসন আসেননি বাংলদেশে। তাই হেড কোচ শূন্য টিম টাইগ্রেস।

আগামী ৪ এপ্রিল থেকে দক্ষিণ আফ্রিকা নারী ইমার্জিং দলের বিপক্ষে শুরু হবে বাংলাদেশ নারী দলের ওয়ানডে সিরিজ। ক্রিকেটারদের শারীরিক ও মানষিক ভাবে চাঙ্গা করতে তাই কোচ নিয়োগ দেওয়ার পরই ৩ জানুয়ারি থেকে সিলেটে প্রস্তুতি ক্যাম্প শুরু করে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। সেখানে প্রধান কোচ যোগ না দিলেও ব্যাটিং কোচ, বোলিং কোচ ও ফিল্ডিং কোচ যোগ দিয়েছেন দলের সাথে। আর সবার সমন্বয়ে করে কাজ করার কারণেই প্রধান কোচের অভাব বোধ করছেন না নারী দলের অলরাউন্ডার জাহানারা আলম। শনিবার এ ব্যাপারে তিনি বলেছেন,‘এটা আসলে সঠিক পরিকল্পনার ওপর নির্ভর করে, যে আমরা কি পরিকল্পনা পাচ্ছি এবং কি ধরণের অনুশীলন করছি। আমার মনে হয় না যে এখানে প্রধান কোচের কোন অভাব আমরা দেখতে পাচ্ছি। এটা আসলেই পুরোটা বোর্ডের ব্যাপার। আমাদের সহকারী কোচ আছেন, আমাদের স্কিল অনুযায়ী কোচও দেয়া হয়েছে।’

জাহানারা আরও বলেন, ‘যেমন সিলেটে আমাদের সঙ্গে নির্বাচক এবং ম্যানেজার মঞ্জু ভাই ছিলেন। উনি যেহেতু একজন পেস বোলার ছিলেন। তিনি কাজ করেছেন বিশেষ করে পেস বোলারদের নিয়ে। এখানে আসার পরে দেখা যাচ্ছে ব্যাটিং কোচ আছেন শানু স্যার, স্পিন বোলিং কোচ ওয়াহেদ গণি স্যার। তাই সবকিছু মিলিয়ে বলতে পারেন যে আমরা মোটামুটি ভালোই পরিকল্পনা অনুযায়ী চলছি।’

বর্তমানে ভারপ্রাপ্ত প্রধান কোচ হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন নারী দলের সহকারী কোচ ফয়সাল হোসেন ডিকেন্স। নারী দলের নির্বাচক ও ম্যানেজার মোহাম্মদ মঞ্জুরুল ইসলাম কাজ করছেন পেসারদের নিয়ে এবং স্পিনারদের দায়িত্বে রয়েছেন ওয়াহিদুল গণি। এছাড়া ক্যাম্পের সার্বিক তত্ত্বাবধায়নে রয়েছেন বিসিবির গেম ডেভলপমেন্ট বিভাগ।

আগামী ২৮ মার্চ ওয়ানডে সিরিজ খেলতে বাংলাদেশ সফরে আসছে দক্ষিণ আফ্রিকা ইমার্জিং নারী ক্রিকেট দল। ওয়ানডে ম্যাচগুলো অনুষ্ঠিত হবে ৪ এপ্রিল থেকে। শেষে হবে ১৩ এপ্রিল। মাঝে ৩টি ওয়ানডে হবে ৬, ৮ ও ১১ এপ্রিল। এই সিরিজে বাংলাদেশ নারী দলের বিপক্ষে পাঁচটি ওয়ানডে খেলবে তারা। সবগুলো খেলা অনুষ্ঠিত হবে সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..