প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

হোয়াইটওয়াশ এড়াল বাংলাদেশ

ক্রীড়া ডেস্ক: হোয়াইটওয়াশের চোখরাঙানিতে শুরু হয়েছিল ম্যাচ। প্রথম ইনিংস শেষে সেই শঙ্কার মেঘ আরও ঘনীভূত হয়। কেননা স্কোরবোর্ডের পুঁজি আগের দুই ম্যাচের চেয়েও কম! তবে এবার বোলিং হলো ক্ষুরধার ও গোছানো। ভেঙে পড়ল জিম্বাবুয়ের ব্যাটিং। শঙ্কার মেঘ সরিয়ে শতরানের জয়ে খানিকটা স্বস্তিতে সিরিজ শেষ করতে পারল বাংলাদেশ।

ওয়ানডে ক্রিকেটে নিজেদের ৪০০তম ম্যাচ জিতে বাংলাদেশ এড়াল হোয়াইটওয়াশ। তিন ম্যাচ সিরিজের শেষ ওয়ানডেতে জিম্বাবুয়ে হারল ১০৫ রানে। আগের দুই ম্যাচে ৩০৩ ও ২৯০ রান করেও হেরে গিয়েছিল বাংলাদেশ। এবার সেখানে ৫০ ওভারে দল তুলতে পারে কেবল ২৫৬।

চোটের কারণে রেজিস চাকাভা ছিটকে পড়ায় এই ম্যাচে জিম্বাবুয়েকে নেতৃত্ব দেন আগের দুই ম্যাচের নায়ক সিকান্দার রাজা। তবে টানা দুই ম্যাচে ম্যাচ জেতানো অপরাজিত সেঞ্চুরির পর নেতৃত্বের অভিষেকে তিনি আউট হয়ে যান প্রথম বলে।

আগের ম্যাচগুলোর মতো আবার টস হেরে আগে ব্যাটিংয়ে নামতে হয় বাংলাদেশকে। বাংলাদেশ আড়াইশ পার করে এনামুল হক ও আফিফ হোসেনের দারুণ ব্যাটিংয়ের কল্যাণে।

জিম্বাবুয়েকে চাপে ফেলতে বাংলাদেশের প্রয়োজন ছিল দ্রুত উইকেট। দুই বোলার হাসান মাহমুদ ও মেহেদী হাসান মিরাজ প্রথম দুই ওভারে দলকে এনে দেন উইকেট। ওয়ানডে অভিষেকে ইবাদত হোসেন দুর্দান্ত দুটি ডেলিভারিতে টানা দুই বলে ফেরান ওয়েসলি মাধেভেরে ও সিকান্দার রাজাকে। ম্যাচের ভাগ্যও অনেকটা গড়া হয়ে যায় তখন। ৩১ রানে ৫ উইকেট হারানো জিম্বাবুয়ে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে।

শেষটা বড় জয় হলেও গত কয়েক বছরের মধ্যে বাংলাদেশের সবচেয়ে হতাশার সফর হয়ে থাকবে এটি। খর্বশক্তির জিম্বাবুয়ের কাছে টি-টোয়েন্টি ও ওয়ানডে সিরিজ হেরে ফিরছে দল।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ: ৫০ ওভারে ২৫৬/৯ (তামিম ১৯, এনামুল ৭৬, শান্ত ০, মুশফিক ০, মাহমুদউল্লাহ ৩৯, আফিফ ৮৫*, মিরাজ ১৪, তাইজুল ৫, হাসান ০, মুস্তাফিজ ০, ইবাদত ০*, এনগারাভা ১০-১-৫১-১, নিয়াউচি ৬-০-২৪-০, ইভান্স ৮-১-৫৩-২, রাজা ১০-০-৪২-১, জঙ্গুয়ে ৬-০-৩৮-২, কাইয়া ৪-০-১৬-০, মাধেভেরে ৬-০-২৭-০)।

জিম্বাবুয়ে: ৩২.২ ওভারে ১৫১ (কাইটানো ০, মারুমানি ১, কাইয়া ১০, মাধেভেরে ১, রাজা ০, মাডান্ডে ২৪, মুনিয়োঙ্গা ১৩, জঙ্গুয়ে ১৫, ইভান্স ২, এনগারাভা ৩৪*, নিয়াউচি ২৬; হাসান ৮-০-৩৮-১, মিরাজ ২-০-১৬-১, ইবাদত ৮-১-৩৮-২, তাইজুল ৯-০-৩৪-২, মুস্তাফিজ ৫.২-০-১৭-৪)।

ফল: বাংলাদেশ ১০৫ রানে জয়ী।

সিরিজ: ৩ ম্যাচ সিরিজে জিম্বাবুয়ে ২-১ ব্যবধানে জয়ী।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ: আফিফ হোসেন।

ম্যান অব দ্য সিরিজ: সিকান্দার রাজা।