বিশ্ব সংবাদ

হোয়াইট হাউস ছাড়ার ইঙ্গিত দিলেন ট্রাম্প

শেয়ার বিজ ডেস্ক : হোয়াইট হাউস ছাড়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি বলেছেন, ইলেক্টোরাল কলেজ যদি ৩ নভেম্বরের নির্বাচনে বিজয়ী হিসেবে জো বাইডেনকে সত্যায়ন করে তাহলে তিনি হোয়াইট হাউস ছেড়ে যাবেন। বৃহস্পতিবার মার্কিন সেনা সদস্যদের সঙ্গে থ্যাঙ্কসগিভিং ভিডিও কনফারেন্স শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি এ কথা বলেন। খবর: আল জাজিরা।

ট্রাম্পের কাছে সাংবাদিকরা জানতে চান, বাইডেনকে অফিশিয়ালি বিজয়ী ঘোষণা করা হলে তিনি হোয়াইট হাউস ছাড়বেন কিনা! উত্তরে ট্রাম্প বলেন, ‘অবশ্যই! এবং আপনারাও এটি জানেন।’

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হতে হলে একজন প্রার্থীকে ২৭০টি ইলেক্টোরাল কলেজ ভোট পেতে হয়। বেসরকারি হিসাবে এবারের নির্বাচনে জো বাইডেন পেয়েছেন ৩০৬টি ইলেক্টোরাল কলেজ ভোট। অন্যদিকে ট্রাম্প পেয়েছেন ২৩২টি। ইলেক্টোরাল কলেজ ভোটাররা সাধারণভাবে ইলেক্টর হিসেবে পরিচিত। আগামী ১৪৭ ডিসেম্বর তাদের বৈঠকের কথা রয়েছে। ইলেক্টররা মূলত নিজ নিজ রাজ্যে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রাপ্ত ফলের ভিত্তিতেই তাদের রায় দেন।

বাইডেনের জয় সার্টিফায়েড হলে হোয়াইট হাউস ছাড়ার কথা বললেও এদিনও নির্বাচনে বড় ধরনের জালিয়াতির অভিযোগ করেন ট্রাম্প। তবে নিজের এমন অভিযোগের স্বপক্ষে কোনো প্রমাণ দেখাতে পারেননি তিনি।

এদিকে নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, ক্ষমতা হস্তান্তরের ব্যাপারে হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকে আন্তরিক সাড়া পাওয়া গেছে। এনবিসি নিউজকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, এখন পর্যন্ত হোয়াইট হাউসের পক্ষ দেখে রুষ্ট আচরণ দেখেননি এবং তা দেখতেও চান না।

আগামী ২০ জানুয়ারি মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেবেন জো বাইডেন। নির্বাচনে জালিয়াতির অভিযোগ তুলে শুরু থেকেই ক্ষমতা হস্তান্তরে অস্বীকৃতি জানিয়ে আসছিলেন বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে সোমবার আনুষ্ঠানিকভাবে ক্ষমতা হস্তান্তরের প্রক্রিয়া শুরুর ব্যাপারে আপত্তি প্রত্যাহার করেন ট্রাম্প। অবশ্য, এখনও তিনি পরাজয় মেনে নিতে রাজি নন। বারবারই ভিত্তিহীনভাবে দাবি করছেন যে নির্বাচনে কারচুপি হয়েছে।

এরইমধ্যে, নিজের সম্ভাব্য মন্ত্রিসভার শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তাদের নাম ঘোষণা করেছেন বাইডেন। এনবিসির নাইটলি নিউজকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এ ডেমোক্র্যাট নেতা জানিয়েছেন, এখনও প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গে তার কথা হয়নি। তবে তিনি আশা করেন, তার মেয়াদের শুরুতেই ক্ষমতা হস্তান্তর প্রক্রিয়াজনিত বিলম্বের প্রভাব পড়বে না। বাইডেন বলেন, ‘এটি ধীরগতির সূচনা। তবে কাজ তো হচ্ছে। আরও দুই মাস বাকি আছে। কাজের গতির ব্যাপারে আমি আশাবাদী।’

সদ্য বিজয়ী এ ডেমোক্র্যাট নেতা আরও বলেন, ভ্যাকসিন বিতরণ ও ভ্যাকসিন সহজলভ্য করার জন্য পদক্ষেপ নিতে হোয়াইট হাউসের কভিড-১৯ টাস্ক ফোর্সকে দায়িত্ব দেবেন তিনি। গত মঙ্গলবার ডেলাওয়ারের উইলমিংটনে দেওয়া ভাষণে বাইডেন বলেন, ‘আমেরিকার প্রত্যাবর্তন হয়েছে এবং বিশ্বকে নেতৃত্ব দিতে প্রস্তুত আছে। আমেরিকা সেখান থেকে পিছু হটবে না।’

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..