প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

  ১২ ম্যাচ পর থামলো দক্ষিণ আফ্রিকা

 

 

ক্রীড়া ডেস্ক: অবশেষে দক্ষিণ আফ্রিকার জয়যাত্রা থামালো নিউজিল্যান্ড। টানা ১২ ম্যাচ জয়ের পর গতকাল কিউইদের কাছে ৬ রানে হেরেছে প্রোটিয়ারা। ওয়ানডেতে সবচেয়ে বেশি ২১টি ম্যাচ জিতেছে অস্ট্রেলিয়া। এরপরই রয়েছে এবি ডি ভিলিয়ার্সের দল। ক্রাইস্টচার্চের হেগলি ওভালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ২৯০ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ৯ উইকেটে ২৮৩ রানে শেষ হয় আফ্রিকার ইনিংস। ৬ রানের এই জয়ে তিন ম্যাচ সিরিজে ১-১-এ এখন সমতা বিরাজ করছে।

টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামা নিউজিল্যান্ডকে বড় স্কোর গড়তে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেন রস টেইলর। আর তাকে বেশ সঙ্গ দেন কিউই অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। শেষদিকে জেমস নিশামের ৫৭ বলে ৭১ রানের ইনিংসটির রয়েছে বেশ গুরুত্ব।

কিছুদিন আগেই অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সেঞ্চুরি করে নিউজিল্যান্ডের পক্ষে সবচেয়ে বেশি সেঞ্চুরি করা ব্যাটসম্যান হিসেবে নাথান অ্যাস্টলের পাশে (১৬ সেঞ্চুরি) বসেছিলেন টেলর। গতকাল দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে নিজের ১৭তম সেঞ্চুরিটি তুলে তাকে ছাড়িয়ে গেলেন টেলর। একই সঙ্গে নিজের করে নিয়েছেন নিউজিল্যান্ডের পক্ষে সবচেয়ে দ্রুততম সময়ে ৬ হাজার রানের কীর্তিও।

দক্ষিণ আফ্রিকার প্রিটোরিয়াস ৪০ রানে নেন ২ উইকেটে। একটি করে উইকেট নেন ওয়াইন পার্নেল ও ইমরান তাহির।

২৯০ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ৫১ রানে হাসিম আমলা ও ফ্যাফ ডুপিসিকে হারায় আফ্রিকা। তবে কুইন্টন ডি কক ও জেপি ডুমিনির ৫৭ রানের জুটি ম্যাচে ফিরিয়েছিল প্রোটিয়াদের। এরপর ৬৮ রান যোগ করেন অধিনায়ক এবি ডি ভিলিয়ার্স ও ডেভিড মিলার। তবে হঠাৎ করেই খেই হারিয়ে বসে আফ্রিকা। মাত্র ২২ রানের মধ্যে আউট হয়ে ফেরেন এবি ডি ভিলিয়ার্স, ওয়াইন পার্নেল ও ক্রিস মরিস। তারপরও নিউজিল্যান্ডে বিপক্ষে প্রতিরোধ গড়েন ডোয়াইন প্রিটোরিয়াস ও আন্দিলে ফিকোয়াও ৬১ রানের জুটি। মাত্র ২৭ বলে ৪ চার ও ২ ছক্কায় ৫০ রান করেন প্রিটোরিয়াস। কিন্তু ট্রেন্ট বোল্টের বলে প্রিটোরিয়াস বোল্ড হয়ে গেলে হঠাৎ? জেগে ওঠা আশা শেষ হয়ে যায় আফ্রিকার নিউজিল্যান্ডের হয়ে ৩ উইকেট তুলে নিয়েছেন ৬৩ রানে। ২ উইকেট নিয়েছেন মিচেল স্যান্টনার।